Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৫ জুন ২০২১ ||  আষাঢ় ১ ১৪২৮ ||  ০৩ জিলক্বদ ১৪৪২

করোনামুক্তির জন্য জুমাতুল বিদায় বিশেষ দোয়া

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৫৮, ৭ মে ২০২১   আপডেট: ১৬:৫৯, ৭ মে ২০২১
করোনামুক্তির জন্য জুমাতুল বিদায় বিশেষ দোয়া

বায়তুল মোকাররমে দোয়া করছেন মুসল্লিরা (ছবি: মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন)

‘আল বিদা, আল বিদা, ইয়া শাহরু রামাজান।’ অর্থাৎ বিদায়, বিদায় হে মাহে রমজান। আল বিদা মাহে রমজান। যথাযথ মর্যাদায় ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদসহ সারাদেশে মসজিদে পবিত্র জুমাতুল বিদা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোজা রেখে নগন্য বান্দা হিসেবে মহান আল্লাহর নিকট পূর্ণ আত্মসমর্পণ করে অশ্রু নয়নে জুমাতুল বিদা আদায় করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। নামাজ শেষে করোনা মহামারিসহ বালা মুসিবত থেকে রক্ষা এবং দেশ, জাতি ও বিশ্ববাসীর হেফাজত কামনা করে অনুষ্ঠিত হয়েছে বিশেষ দোয়া মোনাজাত।

শুক্রবার (৭ মে) রাজধানীর বায়তুল মোকারররম জাতীয় মসজিদে জুমাতুল বিদায় মুসল্লির ঢল নামে।  জুমার নামাজে ইমামতি করেন মসজিদের সিনিয়র ইমাম মুফতি মিজানুর রহমান। নামাজ শেষে তিনি করোনা থেকে মুক্তি এবং দেশ ও জাতির সুখ শান্তি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন।

মুফতি মিজান বলেন, হে আল্লাহ, আমরা জুমাতুল বিদার মাধ্যমে তোমার নিজের সম্মানিত রমজান মাসকে বিদায় জানাচ্ছি।  আল বিদা ইয়া শাহরু রমজান।  রোজা তোমার জন্য, তুমি নিজেই রোজার প্রতিদান দিবে।  এ আশায় জুমাতুল বিদার এই পবিত্র সময়ে আমাদের রোজা, ইবাদত বন্দেগি সবকিছু কবুল করো। আমাদের গুনাহমুক্ত জীবন গড়ার তওফিক দাও। আমাদের মা, বাবাসহ সবার গুনাহ মাফ করো। দেশ, জাতি ও মুসলিম মিল্লাতকে হেফাজত করো।

‘আজ জুমাতুল বিদায় আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করবো, আল্লাহপাক যেন আমাদের করোনা থেকে মুক্তি দান করেন। এই মহামারি থেকে মুক্তি পেতে হলে আল্লাহর রহমত ছাড়া কোনো উপায় নেই। একমাত্র আল্লাহকে বলতে হবে। হে আল্লাহ, রমজানের উসিলায় এই মহামারী থেকে আমাদের মুক্তি দাও। আমাদের জাহান্নাম থেকে মুক্তি দাও প্রভু।

মুফতি মিজান বলেন, জুমাতুল বিদার মাধ্যমে আমরা রমজানের শেষ দশকে এসে হাজির হয়েছি। সম্মানিত এই মাহে রমজান আমাদের থেকে বিদায় নিচ্ছে, রোজা বিদায় নিলেও পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত, ফরজ নামাজ, ইবাদত বন্দেগিকে যেন আমাদের থেকে বিদায় না নেয়। মোনাজাতের সময় ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা দুহাত তুলে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য কান্নাকাটি করেন। অশ্রু নয়নে আমিন আমিন ধ্বনীতে এক হ্রদয়গ্রাহী দৃশ্যের অবতারণা হয় মসজিদে।

জুমাতুল বিদার নামাজের আগে খুতবায় বায়তুল মোকাররমের ইমাম ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ইসলাম নির্ধারিত যাকাত ও সাদকাতুল ফিতর আদায়ের আহ্বান জানান।

এ সময় তিনি বলেন, সাদকাতুল ফিতর আদায় করা ওয়াজিব। ঈদের নামাজের আগে, পারলে ঈদের একদিন আগে দিয়ে দিতে পারলে ভালো। কারণ সামর্থবানদের সম্পদের মধ্যে গরিব অসহায়দের হক রয়েছে। সেটা ঈদের আগে দিতে পারলে অসহায় গরিবরা খুশি হন।  ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি হয়।  আর তাতে আল্লাহ পাকও খুশি হন। এভাবেই সামর্থবানদের সঠিক সময়ে যাকাত আদায় করতে হবে। যাকাতের হকদারদের কাছে সেটা পৌঁছে দিতে হবে। তাছাড়া রমজানে বেশি বেশি সাদকা দিতে হবে।  কারণ রমজানে দান সাদকা অন্য সময়ের চেয়ে ৭০ গুণ সাওয়াব হয়।  যারা এখনও যাকাত দেননি তাদের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের যাকাত তহবিলে যাকাত দেওয়া যাবে বলেও জানান তিনি।

ইমাম বলেন, ঈদুল ফিতর রোজাদারদের জন্য খুশির দিন।  যারা সিয়াম সাধনা করেছেন তাদের জন্য ঈদুল ফিতর। ঈদের দিন আল্লাহর বিনিময়ের দিন। রোজা রেখে যারা কষ্ট করেছেন আল্লাহ পাক তাদের ক্ষমা করে দেন।  তাই আজকে হিসাব মিলানোর দিন।  আমরা কতটুকু সিয়াম সাধনা করতে পেরেছি।  যদি না কমতি থাকে তাহলে তওবা করে যে কয়দিন আছে তাকে কাজে লাগাতে হবে। আর যদি সিয়াম সাধনা ঠিক থাকে তাহলে আল্লাহর কাছে শোকর গুজার করতে হবে।

রহমত, বরকত, মাগফিরাত ও নাজাতের মাস রমজানের শেষ জুমা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে পালন করে থাকেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। এমনিতেই সপ্তাহে জুমার দিন অত্যন্ত মর্যাদাপূর্ণ।  তদুপরি রমজানের মাস হওয়ায় এবং রমজানের শেষ জুমা হওয়ায় এই দিনকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়। রমজান মাসজুড়ে পবিত্র রোজা রাখা আর ইবাদত-বন্দেগির পর আজ দেশের ধর্মপ্রাণ কোটি কোটি মুসল্লি এই পবিত্র রমজান মাসকে বিদায় জানাতে জুমার নামাজে শরিক হন। জুমাতুল বিদা মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত সওয়াবের দিন হওয়ায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদসহ রাজধানীর সব মসজিদে এবং সারা দেশের মসজিদগুলোতে মুসল্লির ঢল নামে।

পড়ুন

জুমাতুল বিদায় মুসল্লির ঢল

জুমাতুল বিদা আজ

নঈমুদ্দীন/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়