ঢাকা     রোববার   ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ৯ ১৪২৮ ||  ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মির্জাপুরে ইভিএমে পরীক্ষামূলক ভোটে সাড়া মেলেনি

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৩৭, ১৪ জানুয়ারি ২০২২  
মির্জাপুরে ইভিএমে পরীক্ষামূলক ভোটে সাড়া মেলেনি

সকালে তেজহীন সূর্যোদয় দেখেই মির্জাপুরবাসী বুঝতে পেরেছিলেন, আজ (১৪ জানুয়ারি) সারা দিন সূর্য মামা আর মুখ দেখাবেন না। কনকনে বাতাস আর ঘন কুয়াশায় মোড়া পুরো উপজেলা। যাদের ঘর থেকে বের না হলেই চলে না, তারা অনেকটা জবুথুবু হয়ে বের হলেও বেশিরভাগ মানুষই শীতের সকালটা কাঁথা-লেপের ভেতরে কাটিয়েছেন। ফলে, ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) পরীক্ষামূলক ভোট গ্রহণে ভোটারদের তেমন সাড়া মেলেনি।

টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনের উপ-নির্বাচন আগামী ১৬ জানুয়ারি। এ উপলক্ষে আজ ইভিএমে ভোট গ্রহণের মহড়া হয়েছে।

নির্বাচন পরিচালনায় যারা দায়িত্ব পেয়েছেন তারা সূর্যোদয়ের আগেই ভোটকেন্দ্রে যেতে ঘর ছেড়েছেন। মির্জাপুর উপজেলা সদরের পুরাতন ও নতুন বাস স্টেশনে কয়েকজন প্রিসাইডিং, সহকারী প্রিসাইডিং ও পোলিং অফিসারকে যানবাহনের জন্য দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। ঘন কুয়াশার কারণে যানবাহন তেমন চলেনি। ফলে, তাদের গন্তব্যে যেতে সমস্যা হয়েছে। বিশেষ করে, যাদের দায়িত্ব পড়েছে প্রত্যন্ত এলাকার ভোটকেন্দ্রে, তাদের ভোগান্তি ছিল চরমে।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) ভোটারদের নিজ নিজ কেন্দ্রে গিয়ে ইভিএমে পরীক্ষামূলকভাবে ভোট দেওয়ার জন্য আগে থেকেই প্রচার চালিয়েছিল উপজেলা নির্বাচন অফিস। কিন্তু তাতে ভোটারদের সাড়া মেলেনি। এদিন দুপুর ১২টা পর্যন্ত পোস্টাকামুরি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মাত্র ১৪ জন ভোটার পরীক্ষামূলক ভোট দেন। এ কেন্দ্রে মোট ভোটার ৩ হাজার ১১৪ জন। একই অবস্থা সদয় কৃঞ্চ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে। ওই কেন্দ্রে নারীদের বুথে ৭ জন এবং পুরুষদের বুথে ১৪ জন ইভিএমে পরীক্ষমূলকভাবে ভোট দেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার রাইজিংবিডিকে বলেছেন, ‘আমরা জানতাম, ইভিএমে ভোট দেওয়া একটি নতুন পদ্ধতি। সাধারণ মানুষ বিষয়টি বুঝবে না। তাই, আমাদের প্রশিক্ষণের সময় আমি বলেছিলাম, ভোটারদের ইভিএম সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য যতটা সম্ভব সম্মানির ব্যবস্থা করা গেলে তারা কেন্দ্রে আসতে উৎসাহ পেত। একজন ভোটার দুই বার ভোটকেন্দ্রে আসতে অনাগ্রহী। আবহাওয়ার কারণেও পরীক্ষামূলক ভোট দিতে ভোটারদের আগ্রহ কম।’

উপজেলার বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা ইভিএমে পরীক্ষামূলক ভোট দেওয়া ভোটারের সংখ্যা জানাতে অস্বীকৃতি জানান। তবে, তারা জানিয়েছেন, উপস্থিতি খুবই নগন্য।

তবে, যারা পরীক্ষামূলক ভোট দিতে এসেছিলেন, তারা ইভিএম পদ্ধতিকে স্বাগত জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, এ পদ্ধতি খুবই স্বচ্ছ ও সহজ। দ্রুত ভোট দেওয়া যায়।

হাসনাত/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ