ঢাকা     সোমবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৬ ১৪২৭ ||  ০৩ সফর ১৪৪২

‘রাজপথে বিএনপি-জামায়াতের জায়গা হবে না’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:২১, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
‘রাজপথে বিএনপি-জামায়াতের জায়গা হবে না’

বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ইস্যুতে দলটির নেতাকর্মীরা রাজপথে আন্দোলনে নামলে তা প্রতিহতের ঘোষণা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান।

মঙ্গলবার খুলনা সার্কিট হাউজ ময়দানে খুলনা জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, “খালেদার মুক্তির নামে আবারো নৈরাজ্য, জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতির প্রতিধ্বনি নতুন করে শুনতে পাচ্ছি।

‘পরাজিত রাজনৈতিক শক্তি বিএনপি-জামায়াতকে বলতে চাই, আওয়ামী লীগের একটা নেতাকর্মী বেঁচে থাকতে কোনো অশুভ চক্রকে নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে দেব না। রাজপথে তাদের জায়গা হবে না। খালেদার মুক্তির ফয়সালা কেবল আদালতে হবেই। কোনো ধরনের নৈরাজ্য হলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তা প্রতিহত করবে।” 

বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাকর্মীদের ওপর অত্যাচার-নির্যাতনের কথা তুলে ধরে দলটির এই নেতা বলেন, ‘২০০১ সালের পরে অনেক নারকীয় তাণ্ডব বয়ে গেছে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের ওপর দিয়ে। তাদের বাড়িঘর ভেঙেছে, ভাইয়ের সামনে বোনের ইজ্জত লুটেছে। সেসময় আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতাকর্মীদের কেউ বিএনপির অত্যাচার থেকে রক্ষা পায়নি।’

তিনি বলেন, ‘নেত্রী যখন কারাগারে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা সেদিন গর্জে উঠেছিল, রাজপথ কাঁপিয়েছিল। সেদিন স্বৈরশাসককে তারা বাধ্য করেছিল শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে।’

আগামী দিনে শেখ হাসিনাকে একমাত্র অপরিহার্য করে তোলার জন্য যে কোনো ধরনের ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত রয়েছেন কি না-জানতে চান তিনি। এসময় উপস্থিত নেতাকর্মীরা হাত তুলে সাড়া দেন।

আব্দুর রহমান বলেন, ‘তৃণমূলের এই নেতাকর্মী বেঁচে থাকতে আমাদের প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনাকে কেউ স্পর্শ করতে পারবে না। যতই ষড়যন্ত্র হোক মোকাবেলা করেছি, ভবিষ্যতেও করব।’

এসময় তৃণমূলে পরিচ্ছন্ন ও ত্যাগী নেতৃত্ব আনতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

সম্মেলন প্রথম পর্ব উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য পীযূষ কান্তি ভট্টাচার্য। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বক্তব্য রাখেন সাংসদ শেখ হেলাল উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি কেসিসি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।

বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান ও জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সুজিত অধিকারীর সঞ্চালনায় সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, সাবেক প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল প্রমুখ।


ঢাকা/পারভেজ/সনি

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়