ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ৩০ জুন ২০২২ ||  আষাঢ় ১৬ ১৪২৯ ||  ২৯ জিলক্বদ ১৪৪৩

নিজাম উদ্দীনের ‘দুঃখ বিনাশ’ ছাদ বাগান

রেজাউল করিম, চট্টগ্রাম || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৩০, ২২ মে ২০২২  
নিজাম উদ্দীনের ‘দুঃখ বিনাশ’ ছাদ বাগান

নিজাম উদ্দীনের গড়ে তোলা ছাদ বাগান ‘দুঃখ বিনাশ’

সুউচ্চ অট্টালিকার উপর সবুজের সমারোহ। মনে হতে পারে এটি কোনো অট্টালিকার ছাদ নয়, যেনো বিস্তৃত প্রান্তরে যত্নে গড়া সবুজ বাগান। এই দৃশ্যপট চট্টগ্রাম মহানগরীর দেওয়ানহাট এলাকার ব্যবসায়ী মোহাম্মদ নিজাম উদ্দীনের বাড়ির ছাদে। বিস্ময়কর এই ছাদ বাগানের নাম ‘দুঃখ বিনাশ।’ 

রাইজিংবিডিকে নিজাম উদ্দীন জানান, তিনি একজন বৃক্ষ প্রেমিক মানুষ। ভালোবাসেন সবুজ। ভালোবাসেন প্রকৃতিকে। ব্যবসা বানিজ্যের কারণে ব্যস্ত শহরের ইট পাথরের অট্টালিকায় বসবাস করতে হয়। আর সে কারণেই অট্টালিকার ছাদেই গড়ে তুলেছেন সবুজ প্রকৃতি ঘেরা প্রান্তর। তার এই সবুজ ছাদ বাগানে রয়েছে আনার, কমলা, মাল্টা, লেবুসহ নানা ধরনের ফলের গাছ। এই ছাদ বাগানে আঙ্গুর গাছের চারা তুলেও সাফল্য পেয়েছেন তিনি। পরিবারের মাল্টা, লেবুসহ অন্য ফলের চাহিদা এই বাগান থেকেই পূরণ হয় তার। মনের স্বস্থি যোগাতে বাগানে রয়েছে দেশি-বিদেশি ফুলের গাছ। 

নিজাম উদ্দীন বলেন, ‘আমি ছোট বেলা থেকে গাছ লাগাতে এবং বাগান গড়তে ভালোবাসি। সেই ধারাবাহিকতায় ২০১৩ সালে চট্টগ্রাম নগরীর দেওয়ানহাট এলাকায় নিজের বাড়িতে গড়ে তুলি এই ছাদ বাগান। ২৫০০ স্কয়ার ফিট জায়গা জুড়ে ছাদ বাগানটি আমি অতি যত্নের সঙ্গেই গড়েছি। বিভিন্ন দেশি-বিদেশি গাছের চাড়া সংগ্রহ, টবে উত্তোলন এবং পানি দেওয়া সবকিছুই নিজের হাতেই করি। আর আমাকে এ কাজে স্ত্রী সন্তানরা সহায়তা করেন।’ 

তিনি আরো বলেন, ‘আমি এই ছাদ বাগানের নাম দিয়েছি দুঃখ বিনাশ। ব্যবসা বাণিজ্য বা পারিপার্শ্বিক অবস্থা নিয়ে মনে কখনো দুঃখ হতাশা থাকলে এই বাগানে আসলেই সব দুঃখ বিলীন হয়ে যায়। এই বাগানে বুক ভরে বিশুদ্ধ বাতাস নেওয়া যায়। টিনের চালে বৃষ্টির ছন্দ উপভোগ করতে তৈরি করেছি আড্ডা দেওয়া ও ঘুমানোর মতো একটি টিনের ছাউনির বাসা। সেই বাসাতে অবস্থান করেই করা যায় বৃষ্টি বিলাস। সবুজ বাগানে দুঃখ বিনাশ আর টিনের ছাউনির ঘরে বৃষ্টি বিলাস সব কিছুই হয় আমার এ অট্টালিকায়।’ 

মোহাম্মদ নিজাম উদ্দীন চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান রাজা মিয়া এন্ড সন্স-এর কর্ণধার। তিন কন্যা সন্তানের গর্বিত পিতা নিজাম উদ্দীন বাঁচতে বৃক্ষ রোপনকে মনে করেন ইবাদত। সবুজ প্রকৃতিকে ভালোবেসেই তিনি বাঁচতে চান। 

মাসুদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়