ঢাকা     সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ১৬ ১৪২৯

টাইব্রেকারে জাপানকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:০২, ৫ ডিসেম্বর ২০২২   আপডেট: ০০:০১, ৬ ডিসেম্বর ২০২২
টাইব্রেকারে জাপানকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া

টাইব্রেকারে জাপানকে ৩-১ ব্যবধানে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে ক্রোয়েশিয়া। জাপানের নেওয়া চারটি শটের তিনটিই রুখে দেন ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষক ডমিনিক লিভাকোভিচ। অন্যদিকে ক্রোয়েশিয়ার নেওয়া চারটি শটের তিনটি থেকে গোল করেন যথাক্রমে নিকোলা ভ্লাসিক, মার্সেলো ব্রোভিচ ও মারিও প্লাসিক। তাতে কোয়ার্টারে পৌঁছে যায় ক্রোয়াটরা।

অতিরিক্ত সময়েও ভাঙেনি সমতা, টাইব্রেকারে গড়ালো ম্যাচ:

অতিরিক্ত সময়ের পরবর্তী ১৫ মিনিটেও ভাঙে না ১-১ গোলের সমতা। তাতে ম্যাচ গড়ালো টাইব্রেকারে। টাইব্রেকারে জাপান আগে কিক নিবে।

অতিরিক্ত সময়ের প্রথম ১৫ মিনিটে গোল পায়নি কেউ:

অতিরিক্ত সময়ের ১৫ মিনিটে গোল পায়নি কেউ। তাতে ১-১ গোলের সমতা নিয়েই শেষ হয়েছে অতিরিক্ত সময়ের প্রথম ১৫ মিনিট।

অবশ্য অতিরিক্ত সময়ে দারুণ একটি গোলের সুযোগ পেয়েছিল জাপানের শোগো তানিগুজি। ৯২ মিনিটের মাথায় কর্নার পায় জাপান। কর্নার থেকে জুনিয়ার বাড়িয়ে দেওয়া বলে ছয়গজ বক্সের মধ্যে হেড নিয়েছিলেন তানিগুজি। কিন্তু সেটি ডানদিক দিয়ে বাইরে চলে যায়। ১০৫ মিনিটের মাথায় কাওরু মিতোমার নেওয়া একটি শট ধরে ফেলেন ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষক।

অতিরিক্ত সময়ে গড়ালো জাপান-ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচ:

৪৩ মিনিটে মায়েদার গোলে এগিয়ে যায় জাপান। বিরতির পর ৫৩ মিনিটে সমতা ফেরার ক্রোয়েশিয়ার ইভান পেরিসিক। এই সমতা নিয়ে শেষ হয় নির্ধারিত সময়ের খেলা। ফলে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। এবারের বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর প্রথম কোনো ম্যাচ গড়ালো অতিরিক্ত সময়ে।

নিশ্চিত গোলের সুযোগ মিস:
৭৭ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে দারুণ সুযোগ পেয়েছিলেন পেরেসিক। বল নিয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন। দূরের পোস্টে শট নিলে কিংবা ডানদিকে সতীর্থকে বাড়িয়ে দিলে গোল হতে পারতো। কিন্তু তিনি কাছে পোস্টে মারতে গিয়ে মিস করেন।

পেরিসিকের মিস:
৭৪ মিনিটে আরও একটি সুযোগ পেয়েছিলেন পেরিসিক। জোসিপের বাড়িয়ে দেওয়া বল পেয়ে বাম পায়ে শট নেন পেরিসিক। কিন্তু বল বাম পাশ দিয়ে বাইরে চলে যায়।

সুযোগ মিস:
৬৬ মিনিটে বক্সের মধ্যে লাফি উঠে শট নিয়েছিলেন ক্রোয়েশিয়ার আন্তে বুদিমির। কিন্তু সেটি খুব কাছ দিয়ে বাইরে চলে যায়।

মদ্রিচের শট রুখে দিলেন জাপানের গোলরক্ষক:
৬৩ মিনিটে পোস্টের উপরের অংশ দিয়ে লুকা মদ্রিচের নেওয়া শট ধরে ফেলেন জাপানের গোলরক্ষক।

পেরিসিকের গোলে ফিরলো সমতা:

৫৫ মিনিটে সমতা ফেরায় ক্রোয়েশিয়া। এ সময় কর্নার পায় তারা। কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে হেড দিয়ে জালে পাঠান ইভান পেরিসিক। তাতে ম্যাচে ফেরে সমতা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই সুযোগ মিস:

বিরতি থেকে ফিরেই ৪৬ মিনিটে সুযোগ পেয়েছিল জাপান। কিন্তু দাইচি কামাদার নেওয়া শট উপর দিয়ে চলে যায়।

মায়েদার গোলে প্রথমার্ধে এগিয়ে জাপান:

৪৩ মিনিটে কর্নার পায় জাপান। কর্নার থেকে সরাসরি কিক না নিয়ে ওয়ান টু ওয়ানে ডানদিকে চলে আসে। সেখান থেকে বক্সের মধ্যে উড়িয়ে মারে। সেখানে ক্রোয়েশিয়ার রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ক্লিয়ার করার চেষ্টা করেন। বল তার পায়ে লেগে চলে যায় ডাইজেন মায়েদার কাছে। তিনি কাছ থেকে শট নিয়ে জালে পাঠান বল। তার আগে এগিয়ে থেকেই প্রথমার্ধের খেলা শেষ করে সামুরাই ব্লুরা।

প্রথমার্ধে ৫৯ শতাংশ বলের দখল ছিল ক্রোয়েশিয়ার কাছে। ৪১ শতাংশ ছিল জাপানের। তবে শট নেওয়ার দিক দিয়ে দুটি দলই ছিল সমানে সমান। ক্রোয়েশিয়া ৩টি শট নেয়, জাপানও তাই। ক্রোয়েশিয়া অন টার্গেটে একটি শট নেয়। জাপানও নেয় একটি। ক্রোয়েশিয়া সেটা থেকে গোল না পেলেও জাপানের মায়েদা ঠিকই গোল আদায় করে নেন।

ক্রোয়েশিয়ার মিস:
২৪ মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েছিল ক্রোয়েশিয়া। এ সময় পেরিসিকের বাড়িয়ে দেওয়া বল পেয়েছিলেন জোসকো। তার নেওয়া বাম পায়ের শট উপর দিয়ে চলে যায়।

ক্রোয়েশিয়ার নিশ্চিত গোলের সুযোগ মিস:
ম্যাচের ৮ মিনিটে নিশ্চিত গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন ক্রোয়েশিয়ার ইভান পেরিসিক। তিনি বামদিকে জাপানের রক্ষণভাগের খেলোয়াড়ের কাছ থেকে বল কেড়ে নিয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন। তার সামনে ছিলেন কেবল জাপানের গোলরক্ষক। আড়াআড়ি অ্যাঙ্গেল থেকে শটও নিয়েছিলেন। কিন্তু বল তার গায়ে মেরে দেন। এরপর জটলার মধ্যে চেষ্টা করেও আর সম্ভব হয়নি।

জাপানের গোল মিস:
কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে হেড নিয়েছিলেন শোগো তানিগুচি। তার নেওয়া হেড বাম পাশ দিয়ে চলে যায়।

কর্নার পেল জাপান:
ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই কর্নার পায় জাপান। এ সময় ক্রোয়েশিয়ার বর্না বারিসিক কর্নার করেন।

জাপান-ক্রোয়েশিয়ার লড়াই শুরু:

বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে ক্রোয়েশিয়া ও জাপান। আল জানুব স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় শুরু হয়েছে ম্যাচটি। যা সরাসরি দেখা যাচ্ছে বিটিভি, গাজী টিভি ও টি স্পোর্টসে।

জাপানের একাদশ:

শুইচি গোন্ডা, মায়া ইয়োশিদা, শোগো তানিগুচি, তাকেহিরো তোমিয়াসু, হিদেমাসা মরিতা, ওয়াতারু এন্ডো, ইউটো নাগাতোমো, জুনিয়া ইতো, ডাইজেন মায়েদা, দাইচি কামাদা ও রিতসু দোয়ান।

ক্রোয়েশিয়ার একাদশ:

ডমিনিক লিভাকোভিচ, জোস্কো গভার্দিওল, দেজান লোভরেন, বোর্না বারিসিক, জোসিপ জুরানোভিচ, মার্সেলো ব্রোজোভিচ, মাতেও কোভাসিক, লুকা মড্রিক, ব্রুনো পেটকোভিচ, ইভান পেরিসিক ও আন্দ্রেজ ক্রামরিক।

জাপান এর আগে কখনোই শেষ ষোলোর গণ্ডি পেরুতে পারেনি। আজ ক্রোয়েশিয়াকে হারালে তারা বিশ্বকাপের সেরা সাফল্য অর্জন করবে। জার্মানি ও স্পেন হারিয়ে দারুণ ছন্দে থাকা জাপান আজ ভালো কিছু করার প্রত্যয় নিয়েই মাঠে নেমেছে।

ক্রোয়েশিয়াকে হারাতে পারলে উত্তর কোরিয়া (১৯৬৬) ও দক্ষিণ কোরিয়ার (২০০২) পর তৃতীয় এশিয়ান দেশ হিসেবে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলবে সামুরাই ব্লুরা।

ঢাকা/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়