ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ৯ ১৪৩০

৪৪ রানে পিছিয়ে দিন শেষ করলো নিউ জিল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:৫৮, ২৯ নভেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১৭:৪৮, ২৯ নভেম্বর ২০২৩
৪৪ রানে পিছিয়ে দিন শেষ করলো নিউ জিল্যান্ড

সংক্ষিপ্ত স্কোর
::প্রথম ইনিংস::
বাংলাদেশ: ৩১০/১০ (৮৫.১ ওভার)
নিউ জিল্যান্ড: ২৬৬/৮ (৮৪ ওভার),
 *দ্বিতীয় দিন শেষে।

কেন উইলিয়ামসনের সেঞ্চুরি (১০৪), গ্লেন ফিলিপসের ৪২ ও ড্যারিল মিচেলের ৪১ রানের ইনিংসে ভর করে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৬৬ রান তুলে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে নিউ জিল্যান্ড। বাংলাদেশের চেয়ে এখনও তারা পিছিয়ে আছে ৪৪ রানে। কাইল জেমিসন ৭ ও টিম সাউদি ১ রানে অপরাজিত আছেন। তারা দুজন আগামীকাল বৃহস্পতিবার আবার ব্যাট করতে নামবেন।

বাংলাদেশের হয়ে তাইজুল ইসলাম একাই নেন ৪টি উইকেট। তিনি উইলিয়ামসন, ইশ সোধী, ড্যারিল ও টম ল্যাথামের উইকেট নেন।

সেঞ্চুরির পর ফিরলেন উইলিয়ামসন, ফিরলেন সোধীও:
একপ্রান্ত আগলে দারুণ সেঞ্চুরি করা উইলিয়ামসন অবশ্য ইনিংসটিকে বড় করতে পারেননি। দলীয় ২৬২ রানের মাথায় তাইজুলের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। ২০৫ বল খেলে ১১টি চারে ১০৪ রান আসে তার ব্যাট থেকে।

তিনি আউট হওয়ার পর ২৬৪ রানের মাথায় ফেরেন নতুন ব্যাটসম্যান ইশ সোধী। তিনি ৬ বল খেলে কোনো রান করার আগেই তাইজুলের চতুর্থ শিকারে পরিণত হন।

মুমিনুল এনে দিলেন ব্রেকথ্রু, উইলিয়ামসন তুলে নিলেন সেঞ্চুরি:
১৭৫ রানের মাথায় টম ব্লানডেল ফেরার পর গ্লেন ফিলিপসকে নিয়ে এগোচ্ছিলেন কেন উইলিয়ামসন। এই জুটি বেশ ভোগাচ্ছিল বাংলাদেশের বোলারদের।। ষষ্ঠ উইকেটে তারা দুজন দলীয় সংগ্রহে ৭৮ রান যোগ করেন। দলীয় ২৫৩ রানের মাথায় এই জুটি ভাঙেন মুমিনুল হক। তার বলে স্লিপে নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ফিলিপস। ৬২ বলে ৫টি চার ও ১ ছক্কায় ৪২ রান করে যান তিনি।

ফিলিপস যখন ফেরেন তখন উইলিয়ামসন ৯৯ রানে ব্যাট করছিলেন। পরের ওভারে ১ রান নিয়ে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। ১৮৯ বল খেলে ১১টি চারে তিন অঙ্কের ম্যাজিক্যাল ফিগার স্পর্শ করেন তিনি। যা তার টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৯তম সেঞ্চুরি। এর মধ্য দিয়ে তিনি স্যার ডন ব্র্যাডম্যানন ও বিরাট কোহলিকে ছুঁলেন। তাদেরও ২৯টি করে সেঞ্চুরি রয়েছে।

আবার জীবন পেলেন উইলিয়ামসন, দুইশ পেরিয়ে নিউ জিল্যান্ড
এ নিয়ে তিনবার জীবন পেলেন কেন উইলিয়ামসন। এবার তার ক্যাচ ছাড়লেন শরিফুল ইসলাম। ৭০ রানে বেঁচে যাওয়া উইলিয়ামসনের ব্যাটে চড়ে দুইশ রানের ঘর পেরিয়ে গেছে নিউ জিল্যান্ড।

নাঈম হাসানের খাটো লেংথ ডেলিভারি পুল করেন উইলিয়ামসন। ঠিকভাবে খেলতে পারেননি। হাওয়ায় ভেসে ডিপ স্কয়ার লেগের দিকে যায় বল। কিন্তু নিজের জায়গা থেকে এগিয়ে না আসায় সেটি হাতে নিতে পারেননি শরিফুল।

৬৭ ওভারে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২১৯ রান। উইলিয়ামসন ৮০, গ্লেন ফিলিপস ২৭ রানে খেলছেন।

কিউইদের পঞ্চম উইকেটের পতন
নাঈমের ওভার শুরুর আগেই উইকেটের পিছন থেকে নুরুল হাসান সোহান শুনিয়েছিলেন আশার বাণী। সেটা বাস্তবায়ন করলেন নাঈম হাসান।ব্লান্ডেলকে ফিরিয়ে দিয়ে নিজের প্রথম উইকেট শিকার করলেন এই স্পিনার। সেই সঙ্গে নিউ জিল্যান্ড হারালো তাদের পঞ্চম উইকেট।

লেগ স্টাম্পের অনেকটা বাইরের ডেলিভারি অন সাইডে খেলতে গিয়ে কট বিহাইন্ড হয়েছেন ব্লান্ডেল। তার বিদায়ে নেমেছেন গ্লেন ফিলিপস। ৫৯ ওভারে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১৮৬ রান। কেন উইলিয়ামসন খেলছেন ৭১ রানে। ফিলিপস ৮ রানে। এখনও ১৩০ রানে পিছিয়ে কিউইরা।

মিচেলকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙলেন তাইজুল
আবারো দৃশ্যপটে তাইজুল। যখনই উইকেট দরকার, আক্রমণে এসে ড্যারেল মিচেলকে ফিরিয়ে ভাঙলেন জমে ওঠা জুটি। অফ স্টাম্পের অনেকটা বাইরে ঝুলিয়ে ডেলিভারি করেছিলেন তাইজুল। এগিয়ে খেলার চেষ্টা করেন মিচেল। টার্ন করে বেরিয়ে যাওয়া বলে তিনি ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি।উইকেটের পেছনে বল ধরেই বেলস ফেলে দেন নুরুল হাসান সোহান।

আউটের আগে ৩ চার, ১ ছক্কায় ৪১ রান করেন মিচেল। ছয় নম্বরে নেমেছেন টম ব্লান্ডেল।৫১ ওভারে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১৬৭ রান। কেন উইলিয়ামসন অপরাজিত ৬৫ রানে।

উইলিয়ামসনের পঞ্চাশ
দারুণ ব্যাটিং করে দলকে এগিয়ে নিয়ে চলছেন কেন উইলিয়ামসন।তুলে নিয়েছেন ফিফটি।আস্থার সঙ্গে খেলে ৭৫ বলে স্পর্শ করেছেন ব্যক্তিগত পঞ্চাশের ঘর। টেস্টে এটি তার ৩৪তম ফিফটি, সঙ্গে আছে ২৮টি সেঞ্চুরিও। বাংলাদেশের বিপক্ষে পঞ্চম ফিফটি। তিন সেঞ্চুরিও আছে।

উইলিয়ামসনের ফিফটিতে ভর করে ৪৩.৩ ওভারে ৩ উইকেটে হারিয়ে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ১৫২। ৫৯ রানে ব‍্যাট করছেন উইলিয়ামসন। ৩৩ রানে ব‍্যাট করছেন ড‍্যারিল মিচেল

উইকেটের সুযোগ হেলায় হারালো বাংলাদেশ
শরিফুল ইসলামের অফ স্টাম্পের বাইরের বল। ব্যাক অব লেংথের ডেলিভারিটা বের হয়ে যাচ্ছিলো, ব্যাট ছোয়ালেন মিচেল। কিন্তু ব্যাটে-বলে হলো না। ব্যাট চুমু খেয়ে বল জমা পড়ল উইকেটরক্ষকের গ্লাভসে।প্রথম স্লিপে দাঁড়ানো মাহমুদুল হাসান জয় আবেদন করলেন সঙ্গে সঙ্গে। কিন্তু দ্বিধায় ছিলেন নুরুল হাসান সোহান। ফলে আম্পায়ারও সাড়া দেননি তাতে।

পরে টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, মিচেলের ব্যাটের কানা ছুঁয়েছে ওই বল। অর্থাৎ রিভিউ নিলে সাফল্য পেত বাংলাদেশ। সে সময় ৪ রানে ছিলেন মিচেল।

আপাতত এখন পর্যন্ত ৩৭ ওভারে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১২৪ রান। কেন উইলিয়ামসন ৪৮, মিচেল ১৬ রানে অপরাজিত আছেন।

নিকোলসকে ফিরিয়ে স্বস্তি এনে দিলেন শরিফুল
দ্রুত দুই উইকেট হারানোর ধাক্কা সামলে উঠছিলেন কেন উইলিয়ামসন ও হেনরি নিকোলস। এরই মধ্যে তৃতীয় উইকেট জুটিতে দুজন মিলে ৫০ রানের জুটিও গড়ে ফেলছিলেন। ঠিক তখনি শরিফুলের আঘাত। অফ স্টাম্পের বাইরের বলে খোঁচা মারতে গিয়ে কট বিহাইন্ড হন নিকোলস। ৪২ বলে ১৯ রান করেছেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।ভেঙেছে কেন উইলিয়ামসনের সঙ্গে গড়া ৫৪ রানের জুটি।পাঁচ নম্বরে নেমেছেন ড্যারেল মিচেল।

এখন পর্যন্ত ২৯ ওভারে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১১৩ রান। উইলিয়ামসন ৪৬ ও ড্যারিল মিচেল ১১ রানে খেলছেন।

প্রথম সেশনে বাংলাদেশের ২ উইকেট, নিউ জিল্যান্ড পিছিয়ে ২৩২ রানে
সিলেট টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই অলআউট হয়ে বাংলাদেশ। রান তাড়া করতে নেমে প্রথম সেশনে নিউ জিল্যান্ডও হারিয়েছে দুই উইকেট, তুলেছে ৭৮ রান। এখনো ২৩২ রানে পিছিয়ে আছে টিম সাউদির দল।

লাঞ্চ বিরতিতে যাওয়ার আগে ২৪ ওভার ব্যাট করে ২ উইকেট হারিয়ে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ৭৮ রান। কেন উইলিয়ামসন ২৬ ও হেনরি নিকোলস ১১ রানে ব্যাট করছেন।

আঘাত পেয়ে মাঠের বাইরে জাকির


নাঈম হাসানের হাফ ট্র্যাকার ডেলিভারি সজোরে অফ সাইডে মারলেন হেনরি নিকোলস। লাফিয়ে উঠেও সরতে পারলেন না জাকির হাসান। বল আঘাত হানল তার পায়ের পাতার ওপরের দিকে।ব্যথায় কাতড়াতে কাতড়াতে মাঠেই শুয়ে পড়েন জাকির। দৌড়ে আসেন ফিজিও। প্রাথমিক শুশ্রূষায় কাজ না হওয়ায় স্ট্রেচারে বসিয়ে তাকে নেওয়া হয় মাঠের বাইরে।

কনওয়েকে ফেরালেন মিরাজ
একপ্রান্ত আগলে রেখেছিলেন ডেভন কনওয়ে।অন্যপাশের আক্রমণের জবাবে সেটেল হতে চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু পারলেন না। মিরাজের ওভারেই ধরা খেলেন। অফ স্ট্যাম্পের বাইরে পিচ করে ভেতরে ঢোকা বলে ডিফেন্স করতে গিয়ে বিপদ ঢেকে আনেন। বল তার ব্যাটের ভেতরের কানায় ছুঁয়ে চলে যায় সিলি পয়েন্টে। ডান দিকে ঝাঁপিয়ে এক হাতে দারুণ ক্যাচ নেন অভিষিক্ত শাহাদাত হোসেন দিপু।।

আউট হওয়ার আগে ৪০ বলে ১২ রান করেছেন কনওয়ে। চার নম্বরে নেমেছেন হেনরি নিকোলস। কেন উইলিয়ামসন খেলছেন ৮ রানে। এখন পর্যন্ত ২০ ওভারে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ২ উইকেট না হারিয়ে ৬২ রান।

তাইজুলে এনে দিলেন ব্রেক থ্রু
উইকেটের খোঁজে ছিল বাংলাদেশ।বোলিংয়ে এসেই দলকে ব্রেক থ্রু এনে দিলেন তাইজুল ইসলাম। বিরতির পরপরই প্রথম সাফল্য পেল বাংলাদেশ। তাইজুলের ওভারের দ্বিতীয় বলে প্রথমবার সুইপ করতে গিয়ে ব্যর্থ হন লাথাম। দুই বল পর লেগ স্ট্যাম্পের ডেলিভারিতে আবার সুইপ খেলেন ল্যাথাম। এবার ধরা। ব্যাটের ওপরের দিকে বল চলে যায় শর্ট ফাইন লেগে। সহজ ক্যাচ নেন নাঈম হাসান। ৩ চারে ২১ রান করে ফেরেন ল্যাথাম।

উইকেটের খোঁজে বাংলাদেশ
দিনের শুরুতেই বাংলাদেশএক প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে দেওয়া নিউ জিল্যান্ড ব্যাটিংয়ে নেমে ভালোই এগিয়ে যাচ্ছে। পেস-স্পিন মিলিয়ে আক্রমণ করেও নিউ জিল্যান্ডের দুই ওপেনারের জুটি ভাঙতে পারছেন না শরিফুল-মিরাজরা।সাবলীল খেলে দলকে এগিএয় নিচ্ছেন দুই ওপেনার টম লাথাম ও ডেভন কনওয়ে।

এর আগে উইকেটের আশায় দিনের শুরুতেই রিভিউ হারিয়েছে বাংলাদেশ। মেহেদী হাসান মিরাজের অফ স্ট্যাম্পের বাইরে পড়া ডেলিভারি ডিফেন্ড করার চেষ্টায় ব্যর্থ হন ডেভন কনওয়ে। বল আঘাত করে তার প্যাডে, অমনি বাংলাদেশের জোরালো আবেদন। কিন্তু সাড়া দিলেন না আম্পায়ার। সবার সঙ্গে আলোচনা করার পর রিভিউ নিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, বলটি প্যাডে লাগলেও সেটি ছিল অফ স্ট্যাম্প লাইনের বাইরে।আর তাতেই একটি গুরুত্বপুর্ন রিভিউ হারায় বাংলাদেশ।

এখন পর্যন্ত ১২ ওভারে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ কোনো উইকেট না হারিয়ে ৩৬ রান। টম লাথাম ২১ ও কনওয়ে ১১ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

রিভিউ হারালো বাংলাদেশ
দিনের শুরুতেই রিভিউ হারালো বাংলাদেশ। মেহেদী হাসান মিরাজের অফ স্ট্যাম্পের বাইরে পড়া ডেলিভারি ডিফেন্ড করার চেষ্টায় ব্যর্থ হন ডেভন কনওয়ে। বল আঘাত করে তার প্যাডে, অমনি বাংলাদেশের জোরালো আবেদন। কিন্তু সাড়া দিলেন না আম্পায়ার। সবার সঙ্গে আলোচনা করার পর রিভিউ নিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, বলটি প্যাডে লাগলেও সেটি ছিল অফ স্ট্যাম্প লাইনের বাইরে।আর তাতেই একটি গুরুত্বপুর্ন রিভিউ হারায় বাংলাদেশ।

এখন পর্যন্ত ৮ ওভারে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ কোনো উইকেট না হারিয়ে ২৩ রান। টম লাথাম ১৭, কনওয়ে ৬ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

৩১০ রানেই গুটিয়ে গেল বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস
দ্বিতীয় দিনের প্রথম বলেই লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়লেন শরিফুল ইসলাম। তাতে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের ১ম ইনিংসে ৩১০ রানেই গুটিয়ে গেল বাংলাদেশে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৬ রান করেছেন ওপেনার মাহমুদল হাসান জয়। এছাড়াও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৭ রান করেন যথাক্রমে নাজমুল হোসেন শান্ত ও মুমিনুল হক।

এর আগে প্রথম দিনের শুরুটা ভালোই করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের অযাচিত কয়েকটি আউটে ব্যাকফুটে চলে যায়। শেষ পর্যন্ত ২৯০ রান তুলতেই হারিয়ে বসে ৯ উইকেট। শঙ্কা জাগে ৩০০ এর আগেই অলআউট হওয়ার। কিন্তু শরীফুল ইসলাম ও তাইজুল ইসলামের ব্যাটে ভর করে তিনশ পার করে বাংলাদেশ।

নিউ জিল্যান্ডের পক্ষে বল হাতে গ্লেন ফিলিপস ৪টি উইকেট নিয়েছেন। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন কাইল জেমিসন ও এজাজ প্যাটেল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৩১০/১০, ৮৫.১ ওভার (জয় ৮৬, জাকির ১২, শান্ত ৩৭, মুমিনুল ৩৭, মুশফিক ১২, শাহাদাত ২৪, মিরাজ ২০, সোহান ২৯, নাঈম ১২, তাইজুল ৮, শরিফুল ১৩; সাউদি ১৪-২-৪৩-১, জেমিসন ১৭-৫-৫২-২, প্যাটেল ২৪-১-৭৬-২, সোধি ১৪-১-৭১-১, ফিলিপস ১৬-১-৫৩-৪)

ঢাকা/বিজয়/আমিনুল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়