ঢাকা     রোববার   ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১৩ ১৪৩০

স্মিত হাসির আড়ালে এক আকাশ আক্ষেপ উইলিয়ামসনের

ক্রীড়া প্রতিবেদক, সিলেট থেকে || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৯, ২৯ নভেম্বর ২০২৩  
স্মিত হাসির আড়ালে এক আকাশ আক্ষেপ উইলিয়ামসনের

নিউ জিল্যান্ডের কিংবদন্তি হিসেবে অনেক আগেই নিজের নাম অক্ষয় কালিতে লিখিয়েছেন কেন উইলিয়ামসন। দেশের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি রান, সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরিতে রেকর্ড বুকের শৃঙ্গে উইলিয়ামসন। সদা হাস্যোজ্জ্বল এই ব্যাটসম্যান মাঠেও ছড়ান নিজের মুগ্ধতা। কোনো জড়তা ছাড়া পরিপাটি ব্যাটিংয়ে যেভাবে বিমোহিত করে রাখেন, তাতে প্রেমে হাবুডুবে খেতে যথেষ্ট।

শিল্পীর অরাধ্য ক্যানভাস যেমন রংধনুর সাত রং পেলে পূর্ণতা পায়, উইলিয়ামসন মাঠে নেমে সেঞ্চুরি পেলেই যেন ক্রিকেট বিধাতা খুশি হয়ে যান। সবশেষ তিন টেস্টে তিন সেঞ্চুরি নামের পাশে আঁকা। শেষটা করেছিলেন গত মার্চে। এরপর লম্বা বিরতি। কিন্তু তার ব্যাটে জং ধরেনি। বুধবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের বিপক্ষে পেয়ে যান ক্যারিয়ারের ২৯তম টেস্ট সেঞ্চুরি। তাতে ক্রিকেটের সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান স্যার ডন ব্র্যাডম্যান ও বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা বিরাট কোহলিকে ছুঁয়ে ফেলেন।

সেঞ্চুরি তুলে ১০৪ রানে থেমেছে তার ইনিংস। অবিশ্বাস্য কীর্তিতে নিজেকে জড়িয়ে নিয়েছেন। তবুও মুখে হাসি নেই উইলিয়ামসনের। কেননা দল যে নেই ভালো অবস্থায়। বাংলাদেশের করা ৩১০ রানের জবাবে উইলিয়ামসনের সেঞ্চুরির পরও নিউ জিল্যান্ডে রান ৮ উইকেটে ২৬৬।

৪৪ রানে পিছিয়ে থাকা নিউ জিল্যান্ড যে কঠিন পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে তা খুব ভালো করেই জানেন সাবেক অধিনায়ক। তাইতো তৃতীয় দিন স্কোরবোর্ডে আরও কিছু রানের আশায় এই ব্যাটসম্যান, ‘দিনটা কঠিন ছিল। ব্যাটসম্যানরা নিজেদের সাধ্যমতো চেষ্টা করেছে। ঐক্যবদ্ধ হয়ে ভালো জুটি গড়ার চেষ্টা করেছে। আমাদের এখনও কয়েকটি উইকেট আছে। দারুণ হবে আমরা যদি আরও কিছু রান যোগ করতে পারি। এরপর আমাদের সুযোগ আছে ভালো বোলিং করার। উইকেট পরিবর্তনের আভাস দিচ্ছে। আগামী দুই দিনে আরও ভাঙবে। উইকেট পরিবর্তন হচ্ছে। আমরা এটা প্রত্যাশা করেছিলাম। আমাদেরকে তাই ব্যাট-বলের ভারসাম্য রাখতে হবে। সকালে আমাদের ভালো কাজ করতে হবে। এরপর সব কিছু আমাদের হাতে।’

টানা চার টেস্টে চার সেঞ্চুরি করার কীর্তি নিউ জিল্যান্ডের কোনো ব্যাটসম্যানের নেই। উলিয়ামসন ফেব্রুয়ারিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৩২ রানের পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে করেন ১২১ ও ২১৫ রান। আজ তার ব্যাট থেকে আসে ১০৪ রান। অসাধারণ কীর্তির পরও মুখে স্মিত হাসি তার।

রান ফোয়ারা ছুটে চলছে তার। তাতে খুশি। কিন্তু দল নিয়েই যত চিন্তা তার, ‘এটা তৃপ্তির (টানা চার টেস্ট সেঞ্চুরি) কিন্তু এ মূহূর্তে দলের দিকে আমার সব মনোযোগ। দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যাওয়া সবচেয়ে বেশি প্রয়োজনীয়। যতটা সম্ভব জুটি গড়া। দলের লক্ষ্যে পৌঁছানো। সেঞ্চুরি পাওয়া আনন্দের। যদি আউট না হয়ে দিনটা শেষ করে আসতে পারতাম দারুণ হতো।’

নতুন বল নেওয়ার পর তাইজুলের ভেতরে ঢোকানো বলে বোল্ড হন উইলিয়ামসন। ২৮৯ মিনিট ক্রিজে থেকে ১১ চারে করেন ১০৪ রান। তার আউটের পর খেলা হয়েছে ৪ ওভারের মতো। দিনের শেষ প্রান্তে এসে নিজের উইকেট হারানোয় যত কষ্ট উইলিয়ামসনের। তবে ব্যাটিং করা যে সহজ ছিল না তা বোঝা গেল  তার কথায়, ‘এটা এমন একটা উইকেট যেখানে আপনাকে ছন্দ পেতে লড়াই করতে হবে। আপনি ভালো কিছু বলও পাবেন। আমি মনে করি আমাদের বাস্তবায়ন সঠিক ছিল। সহজাতভাবে আরও কিছু রান হলে আরও ভালো লাগত। প্রত্যেকেই মাঠে গিয়ে দলের জন্য লড়াই করতে চায়।’

সামনেও কঠিন পরীক্ষা আগে আগাম জানিয়ে রেখেছেন এই সেঞ্চুরিয়ান, ‘প্রতিটি সেশন এখন খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমাদেরকে ব্যাটিংয়ে দারুণ লড়াই করতে হবে। প্রতিটি রান এখন গোনায় ধরতে হবে। আমাদের মনোযোগ বাড়াতে হবে। উইকেট খুব দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে। এজন্য আমাদেরকেও সেভাবে তাল মিলিয়ে এগোতে হবে।’ 

ইয়াসিন/আমিনুল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়