ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ১৮ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ৩ ১৪৩১

হৃদয় ভাঙার পর বড় দলের বিপক্ষে ম্যাচ খেলার দাবি নেপাল অধিনায়কের

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৫১, ১৫ জুন ২০২৪   আপডেট: ১৯:২৭, ১৫ জুন ২০২৪
হৃদয় ভাঙার পর বড় দলের বিপক্ষে ম্যাচ খেলার দাবি নেপাল অধিনায়কের

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অবিস্মরণীয় জয়ের দ্বারপ্রান্তে গিয়েও মাত্র ১ রানে হেরে যায় নেপাল ক্রিকেট দল। আইসিসির পূর্ণ সদস্য দলগুলোর বিপক্ষে প্রথম জয়ের হাতছানি, ইতিহাস গড়ার সুযোগ ছিল হিমালয় কন্যা নেপালের। কিন্তু মাত্র ১ রানের আক্ষেপে পুড়তে হয় তাদের।

দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথমে ব্যাট করে ১১৫ রান করে। এত অল্প রানে দক্ষিণ আফ্রিকাকে আটকে রাখার পর জয়ের স্বপ্ন দেখছিল নেপাল। জয়ের কাছাকাছি পৌঁছেও গিয়েছিল। কিন্তু ১ রানের জন্য হারতে হয় তাদের। টিভিতে ধরা পড়ে নেপালি ক্রিকেটারদের ভারাক্রান্ত মুখ। অনেকেরই চোখে জল। মাঠেই কেঁদে ফেলেন শেষ বলে রান আউট হওয়া গুলশন ঝা। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শুধু জয়-ই, এই ম্যাচ জিতলে সুপার এইটে যাওয়ার সুযোগ ছিল তাদের। কিন্তু ম্যাচটা হেরে বিশ্বকাপ থেকেই বিদায় নিয়েছে তারা।  

শেষ ওভারে জয়ের জন্য মাত্র ৮ রান লাগত নেপালের। বার্টমানের প্রথম দুই বল থেকে কোনো রানই নিতে পারেননি গুলশান। পরের বলে চার হাঁকিয়ে ব্যবধান ৪ রানে নামিয়ে আনেন। চতুর্থ বলে বাঁহাতি ব্যাটসম্যান পান ২ রান। শেষ দুই বলে আর ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি। শেষ বলে সিঙ্গেল রান নেওয়ার জন্য দৌড় দিলেও রান আউট হতে হয় তাকে। তাতে ১ রানের ব্যবধান থেকে যায়।

ম্যাচ শেষে নেপাল দলের অধিনায়ক রোহিত পাউডেল বড় দলের বিপক্ষে ম্যাচ খেলার দাবি জানিয়ে রেখেছেন। রোহিত বলেছেন, ‘আমি নিজের দল নিয়ে গর্বিত। বিশেষ করে দলটা যেভাবে ব্যাটিং ও বোলিং করেছে। আমি সত্যিই গর্বিত। আমরা জয়ের খুব কাছে ছিলাম। কিন্তু সীমানা অতিক্রম করতে পারিনি। অন্তিম মুহূর্তে আমরা পথ ভুলিনি। লড়াই করেছি। কিন্তু শেষটা হয়নি। আমরা যদি আরও বেশি ম্যাচ (বড় দলের বিপক্ষে) খেলার সুযোগ পাই তাহলে আমরা জয়ের দিকেই থাকতে পারতাম।’ 

নেপালের পেস আক্রমণ ছিল বেশ দুর্দান্ত। দলটির পেস বোলিং কোচের দায়িত্বে রয়েছেন প্রোটিয়ান মরনে মরকেল। নিজের দলের পেসারদের নিয়ে তিনিও খুশি, ‘আমাদের ভালোমানের পেস অ্যাটাক রয়েছে। আমরা সঠিক জায়গায় আজ বোলিং করতে পেরেছি। উইকেটে বিশেষ কিছু ছিল যা ব্যাটসম্যানদের কাজটাকে চ্যালেঞ্জিং করে তুলেছে। আরও বৃহৎ পরিসরের কথা চিন্তা করলে আমরা হয়তো আরও একজন বাড়তি স্পিনারকে খেলাতে পারতাম। আমি আগে ভাবিনি উইকেটে এতোটা স্পিন ধরবে। পেসাররা আমাদের ম্যাচে রেখেছে এবং তাদেরকে ক্রেডিট দেওয়া প্রয়োজন।’

এই ম্যাচ জিতলেও দক্ষিণ আফ্রিকা প্রশংসায় ভাসিয়েছে নেপালকে। দলটির অধিনায়ক এইডেন মার্করাম বলেছেন, ‘এখানে দুইটি বিষয় আছে। প্রথমত, নেপাল যেভাবে বোলিং করেছে, আমাদের জন্য কাজটা করে দিয়েছিল। তাদেরকে প্রচুর ক্রেডিট দিতে হবে। আমাদের ওপর চেপে বসেছিল। এটা প্রমাণ করে যে তাদের ড্রেসিংরুমে কতটা শক্তিশালী। আপনি যদি এখন দুই দলের তুলনা করতে চান তাহলে আপনাকে আটকে যেতে হবে। কারণ দুই দলের মধ্যে কোনো পার্থক্য খুঁজে পাবেন না।’

ইয়াসিন/আমিনুল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়