ঢাকা, সোমবার, ৩ পৌষ ১৪২৫, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

সফলতায় সাফা সম্মেলন

: রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৪-০৯-০৯ ৬:৫৮:২৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৪-০৯-১০ ১২:২১:০৭ এএম

হাসিবুল ইসলাম মিথুন : দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়াতে সাউথ এশিয়ান ফেডারেশন অব অ্যাকাউন্ট্যান্টস (সাফা) কাজ করছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

 

সাফা প্রসঙ্গে খাত-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলেন, দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং নতুন প্রজন্মের জন্য সাফা সম্মেলন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর মাধ্যমে নতুন যারা চাটার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট হবেন তারা অনেক কিছুই শিখতে পারবেন।

 

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত সাউথ এশিয়ান ফেডারেশন অব অ্যাকাউন্ট্যান্টস (সাফা) আন্তর্জাতিক সম্মেলন প্রসঙ্গে সিনিয়র কনসালট্যান্ট (হুসাইন বিজনেস) তফাজ্জুল হোসেন (এফসিএ) রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘সাফা সম্মেলনে যে বিষয়গুলো আলোচিত হচ্ছে তা দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়ার সঙ্গে সম্পৃক্ত।

আমরা যারা এই সংগঠনের সঙ্গে কাজ করছি, সবাই সেটা বিশ্বাস করি। কেননা সাফা কাজ করছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর অ্যাকাউন্ট্যান্টদের নিয়ে। ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন ধরনের পেশাগত সহযোগিতা করাই আমাদের কাজ। কেননা দেশের অর্থনীতিতে ব্যবসায়ীদের ভূমিকা অপরিসীম।’

 

তিনি বলেন, ‘এবারের সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য “প্রবৃদ্ধি অর্জনে হিসাববিদদের ভূমিকা : প্রেক্ষিত দক্ষিণ এশিয়া”। এ ক্ষেত্রে বিশ্ব অর্থনীতিতে দক্ষিণ এশিয়ার বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে। আবার দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের সম্ভাবনা বেশি উজ্জ্বল। বাংলাদেশ পশ্চিমা দেশগুলোতে তৈরি পোশাক রপ্তানিতে একটি দৃঢ় অবস্থান করে নিয়েছে। এটি ধরে রাখতে পারলে আমরা আরো এগিয়ে যাব।’

সাফা প্রসঙ্গে তফাজ্জুল হোসেন বলেন, আন্তর্জাতিক এবং অঞ্চলভিত্তিক পারস্পরিক সহযোগিতা ও হিসাব পেশার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে ভারত, পাকিস্তান, নেপাল,  শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশের সিএ ইনস্টিটিউটগুলোকে নিয়ে ১৯৮৪ সালে গঠন করা হয় সাফা।

বর্তমানে ভুটান, আফগানিস্তান এবং মালদ্বীপ সাফার পর্যবেক্ষক। সংগঠনটি দক্ষিণ এশিয়ার হিসাব পেশার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি ফোরাম, যার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যে হলো শিক্ষা, প্রশিক্ষণ, কৌশলগত এবং নৈতিক মানদণ্ডের ভিত্তিতে হিসাব পেশার উৎকর্ষ সাধন করা।

 

তিনি বলেন, মানবসম্পদ উন্নয়নে ‘দি ইনস্টিটিউট অব চাটার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশ’(আইসিএবি)-এর ভূমিকা অপরিসীম। পেশাদার অ্যাকাউন্ট্যান্টরা দেশের প্রবৃদ্ধি বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম। তাই দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে ভবিষ্যতে চাটার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস ইনস্টিটিউটের ভূমিকা আরো বৃদ্ধি পাবে। আমাদের এই সংগঠনে প্রায় ১ হাজার ৫০০ সদস্য আছেন। এদের মধ্যে ৩৬৮ জন অডিটর হিসেবে কাজ করছেন।’

 

প্রতিবছর দেশের বিভিন্ন কোম্পানি আর্থিক প্রতিবেদন তৈরিতে যে ভুল করে, তার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এই ভুল করার পেছনে অনেকগুলো কারণ আছে। যেমন, আমাদের দেশে যারা ব্যবসা করেন, তাদের লাভের একটি অংশ সরকারের থাকে। এজন্য কোনো কোনো ব্যবসায়ী  প্রতিবেদনে লাভের অংশ কম দেখিয়ে থাকেন।  ট্যাক্স ফাঁকি দিতেই অনেক প্রতিষ্ঠান সঠিক হিসাব জমা দেয় না বা তথ্য গোপন করেন।’

 

এ ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা আনা কীভাবে সম্ভব- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা আসলে আমাদের মনুষ্যত্ববোধ থেকেই ফিরিয়ে আনা সম্ভব। ইচ্ছে করে প্রতিবেদনে ভুল হিসাব জমা দেওয়া উচিত নয়। শুধু নিজের প্রতিষ্ঠানের লাভের জন্য আমরা যেন দেশকে না ঠকাই। আর এ জন্য সরকারকে সঙ্গে নিয়ে আমাদের সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।’

সংসদে প্রতিবেদন আইন পাস করা কতটা জরুরি- এই বিষয়ে আইসিএবির টেকনিক্যাল ডিরেক্টর  মাহাবুব আহমেদ সিদ্দিক (এফসিএ) রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আমাদের দেশের ব্যাবসায়ীরা কখন কী করছেন, সঠিকভাবে তারা তাদের প্রতিবেদন জমা দিচ্ছেন কি না এগুলোকে একটি আইনের আওতায় নিয়া আসা উচিত। আসলে যে আইন সংসদে পাস হওয়ার কথা রয়েছে, এই আইন পৃথিবীর অধিকাংশ দেশেই রয়েছে। এখন আমাদের দেশে এই আইন করা জরুরি।’

 

মাহাবুব আহমেদ সিদ্দিক যুবসমাজ সম্পর্কে বলেন, ‘এই সেমিনারে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন এবং পরবর্তী প্রজন্ম কীভাবে চার্টার্ড অ্যাকাউন্টকে এগিয়ে নিয়ে যাবে সেসব বিষয় প্রধান্য পেয়েছে। এই সেমিনারে আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক বিভিন্ন হিসাব সংস্থার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা অংশ নেন। তারা তাদের অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন। এতে খাত-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা ও পরবর্তী প্রজন্ম যে শিক্ষা নেবে তা দেশের তথা আঞ্চলিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।

 

সাফা নিয়ে আপনাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী- জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য হলো দেশের মানুষের উন্নয়ন করা। প্রতিবছর এই সম্মেলন করে থাকি, ভবিষ্যতে আরো ব্যাপক পরিসরে করার আশা রাখছি।’

 

আইসিএবির কাউন্সিল মেম্বার মো. আনোয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এশিয়ার মধ্যে অর্থনৈতিক দিক দিয়ে বাংলাদেশ অনেকটা এগিয়েছে। আমাদের এই সম্মেলন করার মূল কারণ হলো দেশকে এগিয়ে নেওয়া। নতুন যারা চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট হবেন তাদের জন্য এ সম্মেলন অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

 

দি ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস অব পাকিস্তানের সভাপতি নাঈম আক্তার শেখ (এফসিএ) বলেন, নতুন যারা চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট (সিএ) হবে, তাদের দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখতে হবে।
 

 


রাইজিংবিডি/ঢাকা/৯ সেপ্টেম্বর ২০১৪/মিথুন/লেনিন/সন্তোষ/কমল কর্মকার

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC