Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ১৪ ১৪২৮ ||  ১৯ সফর ১৪৪৩

জেলের জালে ২৮ কেজির ভোল মাছ, বিক্রি পৌনে ৫ লাখ টাকায়

বরগুনা প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২৩:০৪, ২৪ জুলাই ২০২১   আপডেট: ২৩:১৩, ২৪ জুলাই ২০২১
জেলের জালে ২৮ কেজির ভোল মাছ, বিক্রি পৌনে ৫ লাখ টাকায়

বঙ্গোপসাগরে জেলেদের জালে ধরা পড়েছে ২৮ কেজি ওজনের একটি ভোল মাছ। বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) গভীর সমুদ্রে এফবি আলাউদ্দিন নামের মাছ ধরার ট্রলারে মাছটি ধরা পড়ে। 

শনিবার (২৪ জুলাই) দেশের ২য় মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র বরগুনার পাথরঘাটা বিএফডিসিতে প্রায় পৌনে ৫ লাখ টাকায় বিক্রি করেন জেলেরা। খুলনার পাইকারি মৎস্য ব্যবসায়ী মো. জুয়েল মাছটি কিনে নেন। 

এফবি আলাউদ্দিন হাফিজ-৪ ট্রলারের মাঝি আবু জাফর রাইজিংবিডিকে বলেন, গত বৃহস্পতিবার গভীর সমুদ্রে জাল ফেলার সঙ্গে সঙ্গেই জালে বড় মাছ আটকে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হন তারা। পরে তারা জাল টানা শুরু করেন। জাল তুলে বিশাল আকৃতির ভোল মাছটি দেখতে পান।

একই ট্রলারের জেলে ইউসুফ হাওলাদার রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘জাল টেনে তুলে বড় ভোল মাছটি পাই। দেরি না করে দ্রুত পাথরঘাটার মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রের ঘাটে চলে আসি।’ 

জেলে ইউসুফ হাওলাদার বলেন, ‘শনিবার প্রকাশ্যে ডাক শুরু হলে দুপুর ১টার দিকে ৬ লাখ ৬১ হাজার টাকা মণ দরে ২৮ কেজি মাছটির ৪ লাখ ৬২ হাজার ৭০০ টাকা সর্বোচ্চ দাম হাকায় খুলনার মৎস্য ব্যবসায়ী জুয়েল। আমরা তখন তার কাছে মাছটি বিক্রি করি।’ 

পাথরঘাটা মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রের হিসাবরক্ষক সেলিম খান রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘মাছটি ঘাটে আনার পর থেকে পাইকাররা কেনার জন্য হুমড়ে পড়ে। শেষে ব্যবসায়ী জুয়েল মাছটি কেনার পর ১০০ টাকায় ১ টাকা হারে রাজস্ব আদায় করেছি।’   

আরও পড়ুন: মেঘনায় ধরা পড়লো ২২ কেজির ‘পাখি মাছ’

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ দেব রাইজিংবিডিকে বলেন, ভোল মাছ দেশের বঙ্গোপসাগরের জলসীমায় খুব সহজে পাওয়া যায় না। দেশের মানুষ ভোল মাছের সঙ্গে তেমন পরিচিত না হলেও চীন, মিয়ানমার ও ভারতসহ অনেক দেশে ভোল মাছের গুরুত্ব রয়েছে। চিকিৎসা বিজ্ঞানে এই মাছের বায়ুথলি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়াও প্রসাধনী তৈরিতে এই মাছের অনেক কিছু ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

বরগুনার মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সহ-সভাপতি আবুল হোসেন ফরাজী রাইজিংবিডিকে বলেন, ৬৫ দিন মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা শেষে জেলেরা সাগরে মাছ শিকার শুরু করেছে। এই নিষেধাজ্ঞার সময়ে সাগরে প্রচুর মাছ বৃদ্ধি পেয়েছে। অনেক মাছ বড় হয়েছে। আরও অনেক বড় মাছ জেলেরা শিকার করতে পারবে। সর্ব্বোচ্চ মূল্য দিয়ে মাছটি বিক্রি করতে পেরে ট্রলার মালিক ও জেলেরা সকলেই খুশি। 

ইমরান/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ