ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||  আশ্বিন ১২ ১৪২৯ ||  ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

স্ত্রী চলে যাওয়ায় ঘটককে কুপিয়ে হত্যা

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:০২, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২  
স্ত্রী চলে যাওয়ায় ঘটককে কুপিয়ে হত্যা

নিহতের স্বজনদের আহাজারি

আব্দুল জলিল (৬০) কাজ করতেন ইলেকট্রনিক্স দোকানের কর্মচারী হিসেবে। মাঝে মধ্যে ঘটকালির কাজও করতেন। স-মিলের শ্রমিক মো. আলমাসের (২০) বিয়ের ঘটক ছিলেন তিনি। চার বছর বিয়ের বয়স। ছয় মাস আগে বনিবনা না হওয়ায় আলমাসের স্ত্রী বাপের বাড়ি চলে যান। সেই রাগ ঝারলেন ঘটকের উপর।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টার দিকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করলেন ঘটক জলিলকে। ঘটনাটি ঘটেছে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার দিগড় ইউনিয়নের মানাজি গ্রামে। আলমাসের বাবার নাম শহিদুল ইসলাম। এ ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে আলমাসসহ পরিবারের সদস্যরা।

আলমাসের প্রতিবেশিরা জানায়, জলিল ও আলমাসের বাস একই গ্রাম মানাজিতে। জলিল স্থানীয় মাইধারচালা বাজারে সাজ্জাদ ইলেকট্রনিক্সের দোকানের একজন কর্মচারী ছিলেন। পাশাপশি বিয়ের ঘটকালির কাজও করতে তিনি। আলমাস প্রায় চার বছর আগে উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের রত্নাআটা গ্রামের ডলি আক্তারকে (২০) বিয়ে করেন। তাদের দুই বছর বয়সি কন্যা সন্তান রয়েছে। ওই বিয়ের ঘটক ছিলেন জলিল। বিয়ের পর থেকে সংসারে অশান্তি লেগে থাকত। বছর খানেক আগে শিশুসন্তান রেখে ডলি তার বাবার বাড়ি চলে যান। মেয়ের মুখের দিকে তাকিয়ে স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনতে চান আলমাস। এ জন্য ঘটক জলিলকে বারবার অনুরোধ করেন তিনি। কিন্তু সমাধানে ব্যর্থ হন জলিল।

আলমাসের মামা আল আমীন জানান, এরই মধ্যে আলমাস ও ডলির মধ্যে ডিভোর্স হয়ে গেছে। ভালো পরিবারে বিয়ে না করতে পেরে আলমাসের রাগ-ক্ষোভ ছিল জলিলের উপর। দুপুরে আলমাসের দাদি রাহাতন বেওয়ার সঙ্গে ঘরের ভেতর চেয়ারে বসে কথা বলছিলেন জলিল। জলিলকে দেখে অন্যঘর থেকে দা বের করে মাথায় ও ঘাড়ে দুটা কোপ দেন আলমাস। এতে ঘটনাস্থলে মারা যান জলিল। পরে দৌঁড়ে পালিয়ে যান তিনি।

নিহত জলিলের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সংসার জীবনে এক ছেলে এক মেয়ের জনক ছিলেন জলিল।

ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজহারুল ইসলাম সরকার বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে স্ত্রী চলে যাওয়ায় ঘটকের উপর ক্ষোভ ঝেরেছেন। জলিলকে প্রকাশ্যে-দিবালোকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আলমাসকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

কাওছার/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়