ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৯ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৫ ১৪২৯ ||  ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

নোয়াখালীতে স্কুলছাত্রী হত্যা: আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

নোয়াখালী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৪৪, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২  
নোয়াখালীতে স্কুলছাত্রী হত্যা: আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

নোয়াখালীর জেলা শহর মাইজদীর লক্ষ্মীনারায়ণপুরে স্কুলছাত্রী তাসনিয়া হোসেন অদিতা হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে আসামি আবদুর রহিম রনি। শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) নোয়াখালী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. এমদাদের আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয় সে।

শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম।

পুলিশ সুপার জানান, গতকাল আদালতে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে রনির তিন দিনের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গতকাল সন্ধ্যায় তাকে রিমান্ডে নেওয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে রনি পুলিশকে জানায়, গত বৃহস্পতিবার বেলা আনুমানিক সাড়ে ১১টা থেকে ১২টার দিকে অদিতার বাসায় যায় সে। বাসায় গিয়ে বন্ধ দরজা নক করলে অদিতা দরজা খুলে দেয়। তখন সে বাসায় প্রবেশ করে অদিতার সঙ্গে গল্প করে। এক পর্যায়ে রনি অদিতাকে জড়িয়ে ধরে চুমু দেওয়ার চেষ্টা করে। অদিতা রনিকে বাধা দেয় এবং ধ্বস্তাধ্বস্তির সময় নিজেকে রক্ষা করার জন্য রনির ঘাড়ে ও গলায় আচড় দেয়। তখন অদিতাকে তার ভেতরের কক্ষের খাটে ফেলে পরিধেয় ওড়না দিয়ে হাত বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। রাগান্বিত হয়ে অদিতা বিষয়টি সবাইকে জানিয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। বিষয়টি জানাজানি হয়ে যাওয়ার ভয়ে রনি অদিতাকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করে।

মৃত্যু নিশ্চিত করার জন্য রান্না ঘর থেকে ছোরা এনে অদিতার বাম হাতের রগ এবং গলা কেটে হাতের বাঁধন খুলে দেয়। এর পর রনি ঘটনাটিকে ভিন্ন খাতে রূপ দেওয়ার লক্ষ্যে ঘরের আলমিরা ও ওয়ারড্রবের জিনিসপত্র ছড়িয়ে-ছিটিয়ে দিয়ে ভেতরের কক্ষের দরজা বন্ধ করে এবং ঘরের মূল দরজা বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে চলে যায়।

পুলিশ সুপার জানান, রনি ধর্ষণের কথা স্বীকার করেনি। ডিএনএ ও অন্যান্য আলামত ফরেনসিক রিপোর্টের জন্য পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পেলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। 

উলেখ্য, গত বৃহস্পতিবার মাইজদীর লক্ষ্মীনারায়ণপুরে নিজ বাসায় নোয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাসনিয়া হোসেন অদিতাকে (১৪) গলা কেটে হত্যা করা হয়। রাতে নিহত শিক্ষার্থীর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এর পর পুলিশের একাধিক দল পৃথক অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামি সাবেক কোচিং শিক্ষক আবদুর রহিম রনিসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে।

সুজন/রফিক

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়