ঢাকা     রোববার   ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ২২ ১৪২৯

আজ আখাউড়া মুক্ত দিবস

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:০৬, ৬ ডিসেম্বর ২০২২  
আজ আখাউড়া মুক্ত দিবস

আজ মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া মুক্ত দিবস। দিবসটি উদযাপনে বিভিন্ন কর্মসূটি গ্রহণ করেছে আখাউড়া উপজেলা প্রশাসন, আখাউড়া পৌরসভা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড, আখাউড়া।

১৯৭১ সালে ৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণের পর থেকে আখাউড়ার সর্বস্তরের জনগণ মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন। মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনার জন্য দেশপ্রেমিক জনতা, বুদ্ধিজীবী, ছাত্র, যুবক, শ্রমিকসহ সর্বস্তরের জনগণের উপস্থিতে আখাউড়ায় গঠন করা হয় সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদ। ওই পরিষদের নেতৃত্বে কাজী ওয়াহেদুর রহমান লিলু মিয়া।

এস ফোর্সের অধিনায়ক লে. কর্নেল সফিউল্লাহর তত্ত্বাবধানে এই যুদ্ধ চলতে থাকে। ৩০ নভেম্বর ও পয়লা ডিসেম্বর আখাউড়ার উত্তরে সীমান্তবর্তী আজমপুর, রাজাপুর, সিঙ্গারবিল, মিরাশানি এলাকায় পাকিস্তানি বাহিনীর সাথে মুক্তিবাহিনীর যুদ্ধ হয়।  টানা ৩ দিন ধরে চলে এই যুদ্ধ। এই যুদ্ধে অন্তত ৩৫ পাক সেনা নিহত হয়। বন্দী করা হয় ৫ জনকে। মুক্তি বাহিনীর নায়েক সুবেদার আশরাফ আলী খান এই যুদ্ধে শহীদ হন। আহত হয় অনেক মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযোদ্ধাদের মারমুখী আক্রমণে পাক বাহিনী দাঁড়াতে পারেনি। তারা তখন পিছু হটতে শুরু করে।

৩ ডিসেম্বর রাতে মুক্তিবাহিনী আজমপুরে অবস্থান নিলে সেখানেও যুদ্ধ হয়। ওই যুদ্ধে পাক হানাদার বাহিনীর ১১জন সেনা নিহত হয়। মুক্তিবাহিনীর ২ সিপাহী ও ১ নায়েক সুবেদার শহীদ হন। ৪ এবং ৫ ডিসেম্বর অবিরাম যুদ্ধে পাক হানাদার বাহিনীর প্রায় ১৭০ জন সেনা নিহত হয়। তখন গোটা আখাউড়া এলাকা মুক্তি বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। ৬ ডিসেম্বর আখাউড়া পুরোপুরি হানাদার মুক্ত হয়।

আখাউড়া মুক্ত হওয়ার পর আখাউড়ার প্রধান ডাকঘরের সামনে সর্ব প্রথম বাংলাদেশের লাল সবুজ পতাকা উত্তোলন করেন মুক্তিযুদ্ধের পূর্বাঞ্চলীয় জোনের প্রধান জহুর আহমেদ চৌধুরী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মেজর আইন উদ্দিনসহ মিত্র বাহিনীর অফিসার ও সৈনিকরা।

দিবসটি উদযাপনে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে আখাউড়া উপজেলা প্রশাসন, আখাউড়া পৌরসভা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড। কর্মসূচির মধ্যে সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক মুক্তমঞ্চে মোমবাতি প্রজ্জলন করেন। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় আখাউড়া কেন্দ্রীয় স্মৃধিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পন ও সকাল ১০টায় আনন্দ র‌্যালি, শোভাযাত্রা ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন (উপজেলা চত্বর থেকে শোভাযাত্রা বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আখাউড়া পোষ্ট অফিসের সামনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন।

বিকেল ৪টায় আখাউড়া উপজেলা শিল্পকলা একাডেমিতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

/মাইনুদ্দীন/সাইফ/

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়