ঢাকা     শুক্রবার   ১৯ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৬ ১৪৩১

নরসিংদীর পলাশে নৌকার দাপট, ধারে কাছে নেই স্বতন্ত্র

নরসিংদী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৩৯, ২২ ডিসেম্বর ২০২৩   আপডেট: ২২:৩৯, ২২ ডিসেম্বর ২০২৩
নরসিংদীর পলাশে নৌকার দাপট, ধারে কাছে নেই স্বতন্ত্র

নরসিংদীর ৫টি আসনের মধ্যে চারটিতে নিবার্চনি আমেজ জমে উঠেছে। প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টিসহ স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। এই আসনগুলোর প্রার্থীরা একে অন্যের দোষ ত্রুটি খুঁজে বের করে ভোটারদের সামনে তুলে ধরছেন। একই সঙ্গে নির্বাচিত হলে উন্নয়নের বিভিন্ন আশ্বাস ও প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটারদের নিজেদের দিকে টানার চেষ্টা করছেন। কিন্তু, একেবারেই উল্টো চিত্র নরসিংদী-২ (পলাশ) আসনে। এখানে আওয়ামী লীগ ছাড়া আর কোনো প্রার্থীদের নির্বাচনি মাঠে দেখা যাচ্ছে না। নেই তেমন প্রচার প্রচারণাও। 

এই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী নৌকাকে জিতাতে কখনো প্রকাশ্যে, আবার গোপনে চালাচ্ছেন প্রচারণা। এছাড়া জাতীয় পার্টির ‘লাঙ্গল’ প্রতীকের প্রার্থীও ভোটারদের কাছে নতুন মুখ। তৃতীয় বারের মতো এখানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন পলাশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাংসদ সদস্য আনোয়ারুল আশরাফ খান (দিলীপ)। 

পলাশ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন মোট ৭ জন প্রার্থী। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়া আলতামাশ কবির ও কামরুল আশরাফ খান এবং জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) জায়েদুল কবির মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন বর্তমান সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আশরাফ খানের স্ত্রী আফরোজাও। এই আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ছাড়া মাঠে আছেন মাত্র দুইজন। তারা হলেন- মো . মাসুম বিল্লাহ (স্বতন্ত্র) এবং জাতীয় পার্টির ‘লাঙ্গল’ প্রতীক নিয়ে এ এন এম রফিকুল ইসলাম।

স্বতন্ত্র প্রার্থী মাসুম বিল্লাহ পাঁচদোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হলেও সংসদ সদস্য প্রার্থী হিসেবে তিনি একেবারেই নতুন মুখ। তিনি গোপনে ও মাঝে মধ্যে প্রকাশ্যে নৌকার হয়ে কাজ করছেন। অপরদিকে, ‘লাঙ্গল’ প্রতীকের প্রার্থী রফিকুল ইসলামও এই আসনে নতুন মুখ। তার তেমন পরিচিতি নেই ভোটারদের কাছে।

পলাশ উপজেলার স্থানীয় বাসিন্দা ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম, আলন মিয়া, সাব্বির সরকার বলেন, আমাদের পলাশে সংসদীয় আসনে নিবার্চনি কোন আনন্দ বা উৎসব নেই। নির্বাচন আসলে সবার মধ্যে যে উৎসাহ উদ্দীপনা থাকার কথা সেটা একেবারেই নেই। কারণ কোনো প্রতিযোগিতা নেই এবং হবেও না। অন্যদলগুলো প্রার্থীরাও তেমন  মাঠে নেই। উল্টো দেখি স্বতন্ত্রই প্রার্থী নৌকা হয়ে ভোট চান। আমাদের অনেক চাওয়া পাওয়া রয়েছে এই নির্বাচন ঘিরে।

নরসিংদী-২ আসনে ‘ঈগল’ প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাসুম বিল্লাহ বলেন, ‘আমি মাঠে নেমেছি। নিবার্চনী প্রচারণা চলছে। আমি আওয়ামী লীগকে ভালোবাসি।’ 

আওয়ামী লীগ প্রার্থী আনোয়ারুল আশরাফ খান বলেন, ‘নৌকাকে বিজয়ী করতে দিন-রাত প্রচারণা চলছে। ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে পলাশে উপজেলায়। আমি আবারও নির্বাচিত হলে উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখবো। উপজেলার প্রতিটি মানুষ নৌকা মার্কায় ভোট দিতে অপেক্ষায় রয়েছেন।’ 

নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জি এম তালেব বলেন, এবারের নির্বাচনে এই আসনে নৌকা জয়ী হবে। স্বতন্ত্ররাও মাঠে আছে। আমরাও মাঠে আছি।

প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে নির্বাচনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খানকে পরাজিত করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আনোয়ারুল আশরাফ খান।

হৃদয়/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়