ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৪ ১৪৩১

কুড়িগ্রামে ছেলের ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেল বাবার

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৫৭, ৬ এপ্রিল ২০২৪  
কুড়িগ্রামে ছেলের ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেল বাবার

আটক সাজেদুল ইসলাম

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলের ছুরিকাঘাতে ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আকবর আলী ওরফে একাব্বর (৬০) নিহত হয়েছেন। এ সময় তার স্ত্রী সাহেরা বানু (৫৫) গুরুতর আহত হয়েছেন।

শনিবার (৬ এপ্রিল) দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের যতীন্দ্র নারায়ণ গ্রামে তাকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার পর পুলিশ নিহতের বাড়ির পশ্চিম পাশের ভুট্টাক্ষেত থেকে ঘাতক ছেলে সাজেদুল ইসলাম (৩৫) কে আটক করেছে।

স্থানীয়রা জানান, আকবর আলীর তিন ছেলের মধ্যে সাজেদুল অনেক দিন থেকে মানসিক ভারসাম্যহীন। আকবর আলী তার অনেক চিকিৎসা করালেও সুস্থ হয়নি। এ কারণে তার স্ত্রীও চলে গেছে। কিন্তু মানসিক ভারসাম্যহীন হলেও সংসারের সব কাজকর্ম করেন সাজেদুল। গত শুক্রবার রাতে ভুট্টাক্ষেতে পানি দিয়ে সকালে বাড়ি ফেরেন তিনি। এ সময় বাবা আকবর আলী তাকে খাওয়া-দাওয়া করে আবারও ভুট্টাক্ষেতে পানি দেয়ার জন্য যেতে বলেন। কিন্তু ভাত খাওয়ার জন্য রান্না ঘরে গিয়ে সাজেদুল দেখতে পান ভাত নেই। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে মা সাহেরা বেগমকে আঘাত করেন। স্ত্রীকে বাঁচাতে আকবর আলী এগিয়ে আসলে সাজেদুল ওই ছুরি তার বাবার পেটে ঢুকিয়ে দেন। এ সময় ছুরির আঘাতে স্বামী ও স্ত্রী গুরুতর আহত হন। পরে আহতদের চিৎকারে লোকজন এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে প্রথমে ফুলবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে, রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে বিকাল ৪টার দিকে আকবর আলী মারা যান। স্ত্রী সাহেরা বানু গুরুতর আহত অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। খবর পেয়ে ফুলবাড়ী থানার পুলিশ বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘাতক সাজেদুল ইসলামকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। 

ফুলবাড়ী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ বলেন, ঘাতক ছেলেকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। অন্যদিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিহতের লাশের ময়না তদন্ত চলছে।

বাদশা/বকুল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ