ঢাকা     বুধবার   ২৯ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪৩১

আ.লীগ নেতাকে চিকিৎসা দিতে বিলম্ব, চিকিৎসককে মারধর

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৩৩, ১২ এপ্রিল ২০২৪   আপডেট: ২১:৫১, ১২ এপ্রিল ২০২৪
আ.লীগ নেতাকে চিকিৎসা দিতে বিলম্ব, চিকিৎসককে মারধর

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলা মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত একজন আ.লীগ নেতাকে চিকিৎসা দিতে বিলম্বের অভিযোগ এনে হাসপাতালে ঢুকে দায়িত্বরত চিকিৎসককে বেধড়ক মারধর করেছেন নেতার অনুসারীরা। মারধরের শিকার আহত চিকিৎসকের নাম রক্তিম দাশ। 

বুধবার (১০ এপ্রিল) রাতে পটিয়া পৌরসভার বেসরকারি পটিয়া জেনারেল হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। চিকিৎসককে মারধরের একটি ভিডিও ক্লিপ শুক্রবার (১১ এপ্রিল) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। 

পটিয়া জেনারেল হাসপাতালের ভাইস চেয়ারম্যান এস এইচ খাদেমী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বুধবার রাত পৌনে ১১টার দিকে পটিয়া পৌরসভা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল্লাহ পলাশকে (৪২) আহত অবস্থায় পটিয়া জেনারেল হসপিটালে আনা হয়। এ সময় জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত ডা. রক্তিম তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে অপারেশন রুমে পাঠান। এ সময় অপারেশন রুমে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন দায়িত্বরত চিকিৎসক রক্তিম দাশ। কিন্তু অপারেশন রুমে যেতে দেরি হওয়ার অভিযোগ এনে নেতার অনুসারীরা হাসপাতালে ডা. রক্তিমের কক্ষে ঢুকে মারধর করা হয় এবং হাসপাতালের বিভিন্ন সরঞ্জাম ভাঙচুর করা হয়। মারধরে ডা. রক্তিম মাথায় ও শরীরের বিভিন্নস্থানে আঘাত পেয়েছেন। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়েরের পাশাপাশি স্বাস্থ্যমন্ত্রীকেও লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। 
    
এদিকে, অভিযোগ দেওয়ার পর স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেনের নির্দেশে বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) বিকেলে হাসপাতালে যান চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, সিভিল সার্জন ডা. মো. ইলিয়াছ চৌধুরী। তারা মারধরের শিকার চিকিৎসকসহ হাসপাতালের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. মো. ইলিয়াছ চৌধুরী বলেন, কয়েকজন রোগী দেখে ওটিতে যেতে চিকিৎসকের ১০ মিনিটের মতো দেরি হয়েছিল। তাই একজন পলিটিক্যাল লিডারের নেতৃত্বে চিকিৎসককে মারধর করা হয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে এ ব্যাপারে লিখিত প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে।

পটিয়া থানার ওসি জসিম উদ্দিন জানান, হাসপাতালে ঢুকে চিকিৎসককে মারধরের ঘটনায় ১০ জনকে অভিযুক্ত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের একটি অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।

রেজাউল/এনএইচ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়