ঢাকা     রোববার   ১৬ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ২ ১৪৩১

উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থীর জামানত কমানোর দাবিতে মানববন্ধন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৫৭, ১৭ এপ্রিল ২০২৪  
উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থীর জামানত কমানোর দাবিতে মানববন্ধন

আখাউড়া উপজেলা পরিষদের সামনে জাসদ’র মানববন্ধন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের জামানতের টাকা কমানোর দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) দুপুরে বাংলাদেশ জাসদ আখাউড়া উপজেলা শাখার আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বরে মানববন্ধন করা হয়।

মানববন্ধনে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ও আখাউড়া উপজেলা পরিষদের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মহিউদ্দিন। মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার নিকট একটি স্মারকলিপি দিয়েছেন তারা।

মানববন্ধনে চেয়ারম্যান প্রার্থীর এক লাখ টাকা জামানত কমিয়ে ১০ হাজার টাকা করার দাবি জানানো হয়। একই সঙ্গে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর জামানতের অর্থও কমানোর দাবি করা হয়।

মানববন্ধনে বাংলাদেশ জাসদ আখাউড়া উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. জালাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জাসদ আখাউড়া শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. শাহজাহান, জাসদ যুবজোট নেতা মো. সোহেল ভূঁইয়া।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আখাউড়া উপজেলা পরিষদের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মহিউদ্দিন বলেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন চেয়ারম্যান পদে এক লাখ টাকা জামানত নির্ধারণ করেছেন। নির্বাচন কমিশন জনপ্রতিনিধিদের সামর্থের কথা চিন্তা না করে এক লাখ টাকা জামানত নির্ধারণ করেছেন। নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। পূর্বের ন্যায় জামানত ১০ হাজার টাকা করা হোক। তাহলে ভালো মানুষ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবে। এক লাখ টাকা জামানতের মাধ্যমে কালো টাকার মালিক ও দুর্নীতিবাজদেরকে উৎসাহিত করবে। এতে সাধারণ মানুষ, ভালো মানুষ, সাধারণ রাজনীতিবিদ, সুশীল সমাজ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না। চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান হতে পারবে না। এভাবে দুর্নীতিবাজরাই ভবিষ্যতে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান হবে। আমি মনে করি সংসদ সদস্য নির্বাচনে প্রার্থীদের যেখানে ২৫ হাজার টাকা জামানত, সেখানে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের জামানত ১০ হাজার টাকার বেশি হতে পারে না।

মাইনুদ্দীন/ফয়সাল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ