ঢাকা     শনিবার   ২০ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ৫ ১৪৩১

ঈদের দিনে সড়কে ঝরলো ১০ প্রাণ

নিউজ ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:২২, ১৮ জুন ২০২৪  
ঈদের দিনে সড়কে ঝরলো ১০ প্রাণ

পবিত্র ঈদুল আজহার দিনে সোমবার (১৭ জুন) সড়ক দুর্ঘটনায় দেশের ৬ জেলায় ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। গাজীপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া দিনাজপুরে ২ জন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২ জন এবং বগুড়া, নওগাঁ ও চুয়াডাঙ্গায় একজন করে মারা গেছেন।

গাজীপুর
জেলার টঙ্গীতে উড়াল সেতুর ডিভাইডারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে মোটরসাইকেল আরোহী দুই বন্ধু নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় অপর বন্ধু ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন। টঙ্গী পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আল আমিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন-গাজীপুর সিটি করপোরেশনের টঙ্গী পশ্চিম থানার খরতৈইল এলাকার দুলাল সরদারের ছেলে দেলোয়ার ও রাকিব। রাকিবের বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি। আহত নাজিম টঙ্গী পশ্চিম থানার খরতৈইল এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

টঙ্গী পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আল আমিন জানান, ভোর পৌনে ৪টার দিকে ঢাকা থেকে তিন বন্ধু মোটরসাইকেলে করে টঙ্গীর দিকে আসছিল। তাদের মোটরসাইকেলটি টঙ্গীর আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামের সামনে বিআরটি’র ফ্লাইওভারের ওপর ডিভাইডারের সঙ্গে ধাক্কা লাগে।এতে মোটরসাইকেল আরোহী তিন বন্ধু গুরুতর আহত হয়।

অন্যদিকে, সকালে সদর উপজেলার হোতাপাড়ায় গাড়ি চাপায় অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

দিনাজপুর
জেলার বিরামপুর উপজেলায় সেমাই কিনতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় এক বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সকালে দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ মহাসড়কের দিওড় বটতলী নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় ট্রাক ও অটোরিকশার সংঘর্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন-উপজেলার দিওড় ইউনিয়নের কুয়েতপাড়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কে আজাদ (৭০) ও একই উপজেলার পৌর শহরের পূর্ব জগন্নাথপুরের (ঝাউবন) তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে এনামুল হক (৪২)।

স্থানীয়রা জানান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাদ তার বাড়ি থেকে অটোরিকশায় চড়ে সেমাই কিনতে বিরামপুর বাজারের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় দিনাজপুর থেকে ছেড়ে আসা একটি ট্রাক দিওড় বটতলীতে অটোরিকশাটিকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। তখন অটোরিকশায় থাকা দুই যাত্রী গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাদের বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ২ জনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া
জেলার আশুগঞ্জে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কে ছিটকে পড়ে আপন দুই ভাই নিহত হয়েছেন।আসম্বার সকালে উপজেলার সোহাগপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- জেলার বিজয়নগর উপজেলার মেরাসানী গ্রামের ওবায়দুর রহমান খানের ছেলে রবিউল খান (৫০) ও তার ভাই হুমায়ুন খান (৪৫)।এ ঘটনায় মনিরুল ইসলাম নামে আরও একজন আহত হয়েছেন। তাকে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও হতাহতদের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, রবিউল খান ও হুমায়ুন খান ঢাকায় জুতার ব্যবসা করেন। ঈদের ছুটিতে তিনজন মিলে মোটরসাইকেলে করে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে সোহাগপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় তাদের মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে ছিটকে পড়ে। এতে ৩ জনই গুরুতর আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ২ জনকে মৃত ঘোষণা করেন।

বগুড়া
বাবার সঙ্গে কোরবানির গরু আনতে যাওয়ার পথে আদমদিঘীতে ভটভটি উল্টে আহোনা আবিদ দোহা (১৪) নামের এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। সকাল ৭টার দিকে বগুড়া-নওগাঁ আঞ্চলিক মহাসড়কে আদমদীঘি থানার বাবলা তলায় দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহত দোহা আদমদিঘী থানার তেঁতুলিয়া গ্রামের সাইদুজ্জামান তোতার ছেলে এবং নওগাঁ কেডি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র।

আদমদিঘী থানার ওসি রাজেশ চক্রবর্তী বলেন, সাইদুজ্জামান তোতা তার ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে খামারে রেখে আসা কোরবানির গরু আনতে ভটভটিযোগে যাচ্ছিলেন। পথে বাবলাতলা নামক স্থানে মোড় ঘোরার সময় ভটভটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এতে ভটভটির নিচে চাপা পড়ে সাইদুজ্জামান ও তার ছেলে গুরুতর আহত হন। স্থানীয় লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে আদমদিঘী উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক ছেলে দোহাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নওগাঁ
জেলার নিয়ামতপুরে মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছে ধাক্কা লেগে হৃদয় (১৮) নামে এক কিশোর নিহত হয়েছে।সোমবার ১১টার দিকে উপজেলার খড়িবাড়ি এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত হৃদয় উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের নাকইল এলাকার সারোয়ার হোসেনের ছেলে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করে মোটরসাইকেল পরিষ্কার করতে নিয়ামতপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেন হৃদয়। দ্রুত গতিতে থাকায় খড়িবাড়ি বাজারে নিয়ামতপুরগামী রাস্তার বাঁকে আমগাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে মোটরসাইকেলটির।পরে ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে এলাকার কমিউনিটি ক্লিনিকে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

চুয়াডাঙ্গা
জেলার জীবননগরে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় শুকুর হালসানা (৫৫) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। সোমবার দুপুরে জীবননগর–চ্যাংখালি সড়কের পিচমোড় নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শুকুর হালসানা জেলার জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া গ্রামের মৃত সাত্তার হালসানার ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। এ সময় চ্যাংখালি সড়কের পিচমোড়ে পৌঁছালে পেছন থেকে আসা একটি দ্রুতগতির মোটরসাইকেল তাকে ধাক্কা দেয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

জীবননগর থানা পুলিশের পরিদর্শকের (তদন্ত) একরাম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মোটরসাইকেলের ধাক্কায় একজন নিহত হয়েছেন। সড়ক পরিবহন আইনে একটি মামলা দায়ের হতে পারে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

[ প্রতিবেদনটি তৈরিতে সহযোগিতা করেছেন রাইজিংবিডির নিজস্ব  প্রতিবেদক, জেলা প্রতিনিধি ও সংবাদদাতা ] 

/এসবি/

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়