ঢাকা     শনিবার   ২০ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ৫ ১৪৩১

যশোরে অবহেলায় প্রসূতি-নবজাতকের মৃত্যু, ক্লিনিকে ভাংচুর 

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৩১, ২৪ জুন ২০২৪   আপডেট: ২৩:০২, ২৪ জুন ২০২৪
যশোরে অবহেলায় প্রসূতি-নবজাতকের মৃত্যু, ক্লিনিকে ভাংচুর 

যশোরে গ্রামীণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভাংচুর করে নিহত রোগীর স্বজনেরা

যশোর সদর উপজেলার রূপদিয়ায় অনিবন্ধিত ক্লিনিক গ্রামীণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অপারেশনকালে প্রসূতি ও নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে। এরপর অবহেলায় মৃত্যুর অভিযোগ এনে নিহতের স্বজনরা ক্লিনিকে ভাংচুর চালিয়েছে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।

নিহতের স্বজনরা জানান, সোমবার (২৪ জুন) ভোর সাড়ে ৪টার দিকে যশোর সদর উপজেলার আন্দুলিয়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের স্ত্রী লিমা খাতুনের প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়। এ সময় এক ধাত্রীর পরামর্শে তাকে রুপদিয়া বাজারের গ্রামীণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নেওয়া হয়। তাকে কোনো পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়া ও রক্তের ব্যবস্থা না করে সিজারিয়ান অপারেশন করা হয়। অপারেশনকালে প্রসূতি মারা গেলে কর্তৃপক্ষ দায় এড়াতে রক্তস্বল্পতার কারণে জ্ঞান‌ ফিরছে না জানিয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করে। খুলনায় নিয়ে গেলে চিকিৎসক জানান, রোগী অনেক আগে মারা গেছে। মারা যাওয়ার সংবাদে স্বজনরা ক্লিনিকে গিয়ে তালা ঝুলানো দেখতে পায়। পরে দুপুর ১টার দিকে নবজাতক ছেলে মারা গেলে স্বজনরা ওই ক্লিনিকে ভাঙচুর চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয।

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, গ্রামীণ ক্লিনিকের দালাল চক্রের সদস্য নরেন্দ্রপুর গ্রামের এক নারী ১২০০ টাকার বিনিময়ে রিমা বেগমকে কৌশলে ওই ক্লিনিকে ভর্তি করে। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সিজারিয়ান অপারেশন করেন ওই ক্লিনিকের চিকিৎসক নুরছালী তুলি।

নিহত রিমা বেগমের স্বামী রফিকুল ইসলাম জানান, ভুল চিকিৎসার কারণে অপারেশন করার সময় রিমা খাতুন মারা যায়। অথচ রিমা বেগম বেঁচে আছে বলে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ ভুল বুঝিয়ে ক্লিনিকে তালা মেরে দেয় এবং খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে। আর দুপুরে নবজাতকের মৃত্যু হয়।

স্থানীয় নরেন্দ্রপুর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই মিহির মন্ডল বলেন, স্থানীয়রা উত্তেজিত হয়ে ওই ক্লিনিকে ভাংচুর করে। পুলিশের টিম গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। 

তিনি বলেন, পরিবার যেহেতু ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর অভিযোগ করছে, সেহেতু লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষযে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 

রিটন/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়