ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৮ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪৩১

কেমন আছে দিলদারের পরিবার?

রাহাত সাইফুল || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৪২, ১৩ জুলাই ২০২১   আপডেট: ১৬:১৭, ১৩ জুলাই ২০২১
কেমন আছে দিলদারের পরিবার?

বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি কৌতুক অভিনেতা দিলদার। পর্দায় তার উপস্থিতি দর্শককে বাড়তি বিনোদন যোগাত। যা তাকে এনে দিয়েছিল তুমুল দর্শকপ্রিয়তা।

১৯৪৫ সালের ১৩ জানুয়ারি চাঁদপুরে জন্মগ্রহণ করেন দিলদার। ২০০৩ সালের ১৩ জুলাই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এই শিল্পী। মাত্র ৫৮ বছর বয়সে দিলদারের চলে যাওয়ায় বাংলা সিনেমার যেমন অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে, তেমনি অভিভাবকশূন্য হয়ে পড়েছে তার পরিবার।

দিলদারের স্ত্রী রোকেয়া বেগম। এই দম্পতির দুই কন্যা সন্তান। বড় মেয়ের নাম মাসুমা আক্তার। পেশায় তিনি দন্ত চিকিৎসক। ছোট মেয়ের নাম জিনিয়া। দিলদারের মৃত্যুর ১৮ বছর পর কেমন আছেন তার পরিবার? এ বিষয়ে জানতে রাইজিংবিডির এই প্রতিবেদক কথা বলেন দিলদারের কনিষ্ঠ কন্যা জিনিয়ার সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘এখনো মাঝে মধ্যে গিয়ে বাবার কবর জিয়ারত করি। রোজা, ঈদ, বাবার জন্মদিন-মৃত্যুদিনে তার কবরের পাশে যাই।’

দিলদারের স্ত্রী রোকেয়া বেগমের শারীরিক অবস্থার কথা উল্লেখ করে জিনিয়া বলেন, ‘বাবা যা আয় করতেন তা থেকে টাকা জমিয়ে সারুলিয়ায় (ডেমরা) একটা পাঁচতলা বাড়ি করেছিলেন। ১৯৯৪ সালে ওই বাড়ির নির্মাণ কাজ শেষ হয়। এখন চারতলা পর্যন্ত ভাড়া দেয়া এবং পাঁচ তলায় আমার মা মাঝেমধ্যে থাকেন। এছাড়া তিনি চাঁদপুর এবং ঢাকায় আমাদের দু-বোনের কাছেও থাকেন। আল্লাহর রহমতে আম্মার শরীর ভালো আছে।’ 

দিলদার মারা যাওয়ার পর অনেকেই কিছুদিন ফোন করে খোঁজখবর নিয়েছেন। কিন্তু এরপর সব শূন্য। জনপ্রিয় এই অভিনেতার মৃত্যুবার্ষিকীও কেটে যায় নীরবে। দিলদার কন্যা আক্ষেপ করে বলেন, ‘ইদানীং শিল্পী সমিতি থেকে আব্বার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়। এছাড়া চলচ্চিত্রে তিনি আজ উপেক্ষিত। কেউ খোঁজ নেন না। হয়তো চলচ্চিত্র পরিবারের অনেকেই মারা গিয়েছেন, ফলে সবার খোঁজ রাখা কঠিন। তারপরও বলবো- আব্বার জায়গাটা কেউ নিতে পারেননি। তিনি স্পেশাল ছিলেন। সুতরাং তাকে সেভাবেই স্মরণ করা উচিত।’

দিলদার ১৯৭২ সালে ‘কেন এমন হয়’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিনয় জীবন শুরু করেন। এরপর ‘বেদের মেয়ে জোসনা’, ‘অন্তরে অন্তরে’, ‘বিক্ষোভ’, ‘চাওয়া থেকে পাওয়া’, ‘শুধু তুমি’, ‘আনন্দ অশ্রু’, ‘অজান্তে’, ‘প্রিয়জন’, ‘স্বপ্নের নায়ক’, ‘প্রাণের চেয়ে প্রিয়’, ‘নাচনেওয়ালী’ সিনেমায় অভিনয় করে দর্শক মাতিয়েছেন তিনি।

দিলদারের তুমুল জনপ্রিয়তা দেখে পরিচালক তাকে নায়ক হিসেবে পর্দায় হাজির করেছিলেন। ‘আব্দুল্লাহ’ নামের এ সিনেমা দর্শকমহলে ব্যাপক সাড়া ফেলেছিল। কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘তুমি শুধু আমার’ সিনেমার জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন দিলদার।

ঢাকা/শান্ত/তারা

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়