ঢাকা     সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ১৭ ১৪২৯

ম্যারাডোনা-মেসিকে নিয়ে কটাক্ষ, তোপের মুখে রফিকউজ্জামানের দুঃখ প্রকাশ

প্রকাশিত: ১৮:১৯, ৪ ডিসেম্বর ২০২২   আপডেট: ১৮:২১, ৪ ডিসেম্বর ২০২২
ম্যারাডোনা-মেসিকে নিয়ে কটাক্ষ, তোপের মুখে রফিকউজ্জামানের দুঃখ প্রকাশ

ফুটবল উন্মাদনায় ভাসছে গোটা বিশ্ব। ঠিক এই মুহুর্তে আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি ফুটবলার ম্যারাডোনা ও লিওনেল মেসিকে কটাক্ষ করে তোপের মুখে পড়েছেন প্রখ্যাত গীতিকার মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান।

গতকাল রাতে অস্ট্রেলিয়া ও আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় পর্বের নক আউট ম্যাচ ছিল। ম্যাচ চলাকালীন মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে সক্রিয় ছিলেন। একের পর এক পোস্ট দিয়ে যাচ্ছিলেন।

একপর্যায়ে ম্যারাডোনাকে নিয়ে তিনি লেখেন, ‘‘একজন ছিল ‘মরদই না’, সে হাত দিয়ে গোল করত। সেই হাত নাড়ার ভঙ্গি ছিল হিজড়াদের মতো। ওদের কেউ ‘আর জেন্টই না’। আবার লেডিও না। তাই হিজড়াই বলতে হবে।’’

বিষয়টিকে সহজভাবে নেননি অনেক সংগীতশিল্পী, গীতিকার ও সংগীতজ্ঞ। ফেসবুক পোস্টটি মুছে ফেলার অনুরোধ জানান জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী কনকচাঁপা। অনুরোধ জানিয়ে এই সংগীতশিল্পী লিখেছেন, ‘বাবা, বটবৃক্ষ, পোস্টটা আপনি মুছেই দেন প্লিজ!’ কিন্তু গীতিকার এ কথায় কর্ণপাত করেননি। আরেক পোস্টে মেসিকে নিয়ে ব্যঙ্গ করে তিনি লিখেন, ‘মাছি সারা মাঠে বন বন করে বেড়াচ্ছে।’

স্টপ রেসিজম হ্যাশ ট্যাগ দিয়ে অভিনেত্রী নিশাত প্রিয়ম লিখেছেন, ‘ওনার আর্জেন্টিনা নিয়ে এত জেলাসি কেন? কোনো দলের প্রতি মানুষের ভালো লাগা, মন্দ লাগা থাকতেই পারে; কিন্তু ওনার মতো একজন কিংবদন্তির মুখে এ ধরনের কথা মানায় না!’

সংগীতশিল্পী বেলাল খান প্রতিবাদ করে মন্তব্য করেছেন। তার ভাষায়, ‘ম্যারাডোনা কিংবা মেসি তাদের চেহারা, শারীরিক গঠন দিয়ে নয়, স্রষ্টা প্রদত্ত বিশেষ ক্রীড়ানৈপুণ্য দিয়ে পৃথিবীর মানুষের হৃদয় জয় করেছেন। আপনি বা আপনারা আরো যতই বিশ্রী ভাষা ব্যবহার করেন না কেন, তাদের প্রতি সাধারণ মানুষের এই ভালোবাসা, এই মুগ্ধতা একটুও কমবে না, বরং বাড়বে। পৃথিবীর মানুষ যাদের কিংবদন্তির মর্যাদা দিচ্ছেন, তার বিপরীতে গিয়ে আপনার এমন স্ট্যাটাস আমাদেরকে মর্মাহত করে। ক্ষমা করবেন।’ গীতিকার ও কথাসাহিত্যিক ইকবাল খন্দকার লিখেছেন, ‘কী নোংরা ভাষা আপনার!’ গীতিকার সোমেশ্বর ওলি বিস্ময় প্রকাশ করে মন্তব্য করেছেন, ‘এ কী দেখছি!’

অবশ্য মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন। পাশাপাশি দুঃখ প্রকাশ করে আরেকটি পোস্ট দিয়েছেন। তাতে এই গীতিকার লিখেন, ‘মানুষের সেন্স অব হিউমার এত দুর্বল এবং গাত্রদাহ এত প্রবল হলে কোনো তীক্ষ্ম হিউমারই তো করা যাবে না। যা-ই হোক, আমার পোস্টে যারা আহত হয়েছেন, তাদের প্রতি দুঃখ প্রকাশ করছি। ডিলিট করে দিতে পারতাম, কিন্তু যা প্রকাশ হয়ে গেছে তা মুছে দিলে আহতদের ক্ষত তো মুছবে না। তাই ওটা ওভাবেই রয়ে যাক।’

‘সেই রেললাইনের ধারে মেঠোপথটার পারে দাঁড়িয়ে’, ‘বন্ধু হতে চেয়ে তোমার শত্রু বলে গণ্য হলাম’, ‘দুঃখ আমার বাসর রাতের পালঙ্ক’, ‘আমার মতো এত সুখী নয় তো কারো জীবন’, ‘ভালোবাসা যত বড় জীবন তত বড় নয়’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় গানের রচয়িতা মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান।

ঢাকা/রাহাত/শান্ত

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়