ঢাকা     সোমবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||  আশ্বিন ১১ ১৪২৯ ||  ২৯ সফর ১৪৪৪

করোনার চিকিৎসায় ব্যবহৃত বিপুল বর্জ্য বিপর্যয়কর হয়ে উঠেছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:০৭, ১ ফেব্রুয়ারি ২০২২   আপডেট: ২০:১৯, ১ ফেব্রুয়ারি ২০২২
করোনার চিকিৎসায় ব্যবহৃত বিপুল বর্জ্য বিপর্যয়কর হয়ে উঠেছে

মানবস্বাস্থ্য ও পরিবেশের জন্য বিপর্যয়কর হয়ে উঠেছে করোনার চিকিৎসায় ব্যবহৃত বিপুল সংখ্যক ফেলে দেওয়া সিরিঞ্জ, ব্যবহৃত শনাক্ত কিট ও টিকার পুরোনো বোতল।  মঙ্গলবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই সর্তকবার্তা দিয়েছে।

সংস্থার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এসব মেডিকেল বর্জ্যের একটি অংশে করোনাভাইরাস বেঁচে থাকতে পারে। তাই এগুলো সংক্রামক হতে পারে, বিশেষ করে স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য পোড়া, সিরিঞ্জের সুঁইয়ের খোঁচা এবং রোগ সৃষ্টিকারী জীবাণুর সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ায়। দুর্বল ব্যবস্থাপনার ভাগাড়গুলোর কাছাকাছি এলাকায় বসবাসরত মানুষদের ওপর স্বাস্থ্যগত প্রভাব ফেলতে পারে এসব পোড়ানো বর্জ্য, পানি দূষণ ঘটাতে পারে কিংবা বা রোগ বহনকারী কীটপতঙ্গ স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব ফেলতে পারে।

প্রতিবেদনে প্যাকেজিংয়ের ব্যবহার কমিয়ে প্লাস্টিকের ওপর চাপ কমানো এবং সুরক্ষা সরঞ্জামগুলো পুনর্ব্যবহার এবং পুনর্ব্যবহারযোগ্য সরঞ্জাম ব্যবহারের আহ্বান জানানো হয়েছে।

সংস্থাটি জানিয়েছে, ২০২১ সালের নভেম্বর পর্যন্ত জাতিসংঘের একটি পোর্টালের মাধ্যমে ৮৭ হাজার টন ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) সরবরাহের আদেশ দেওয়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে এগুলোর অধিকাংশই বর্জ্যে পরিণত হয়েছে। একইসময় ভাগাড়ে গেছে ১৪ কোটি শনাক্ত কিট, যেগুলোর ওজন দুই হাজার ৬০০ টন। বিশ্বব্যাপী ৮০০ কোটি ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে, যার মাধ্যমে কাঁচ, সিরিঞ্জ, সুঁচ ও নিরাপত্তা বাক্সের এক লাখ ৪৪ হাজার টন বর্জ্য সৃষ্টি হয়েছে।
 

ঢাকা/শাহেদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়