ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ১৯ ১৪২৯

‘পাপিয়ার মতো রাজনীতিবিদ দেশ ও জাতির জন্য মঙ্গলজনক নয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৪৬, ১২ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৮:৪৭, ১২ অক্টোবর ২০২০
‘পাপিয়ার মতো রাজনীতিবিদ দেশ ও জাতির জন্য মঙ্গলজনক নয়’

'পাপিয়াদের মতো এ ধরনের তথাকথিত রাজনীতিবিদ রাজনৈতিক ছদ্মাবরণে শুধু নিজেদের প্রাপ্তি নিয়ে ব্যস্ত থাকে। তারা দেশ ও জাতির জন্য কোনো কল্যাণমূলক কাজ করতে পারে না।'

সোমবার (১২ অক্টোবর) অস্ত্র আইনের মামলার রায় ঘোষণার আগে পর্যবেক্ষণে এসব কথা বলেন ঢাকা মহানগর ১ নম্বর স্পেশাল ট্রাইব্যুনালের বিচারক কেএম ইমরুল কায়েশ। রায়ে শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান সুমনকে ২০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া, গুলি উদ্ধারের মামলায় তাদের আরও ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

পর্যবেক্ষণে বিচারক বলেন, আসামি শামীমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউ ও তার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওৎপ্রোতভাবে রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন। তবে তাদের সজ্জন কর্মী বা নেতা বলা যায় না। আসামিরা রাজনৈতিক কর্মী বা নেতা হলেও তাদের বাসায় এত বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা (৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা) রাখার কোনো যৌক্তিক বা বৈধ কাগজ থাকতে পারে না। সুতরাং তাদের মতো এ ধরনের তথাকথিত রাজনীতিবিদ রাজনৈতিক ছদ্মাবরণে শুধু নিজেদের প্রাপ্তি নিয়ে ব্যস্ত থাকে। তারা দেশ ও জাতির জন্য কোনো কল্যাণমূলক কাজ করতে পারে না।

তিনি বলেন, দেশ ও জাতির কল্যাণের চেয়ে যারা নিজেদের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দেয়, তারা দেশ ও জাতির জন্য মঙ্গলজনক নয়। এধরনের রাজনীতিবিদ বা নেত্রী যেকোনো ধরনের অন্যায় কাজ করার জন্য অবৈধ অস্ত্র সুবিধাজনকভাবে ব্যবহার করে। সুতরাং আসামিরা এধরনের অবৈধ অস্ত্র বাসায় ডাইনিং রুমের খাটের নিচে লুকিয়ে রেখেছিল, যে কোনো ধরনের অন্যায় কাজে সুবিধাজনকভাবে ব্যবহার করার উদ্দেশ্যে। যদিও অস্ত্র আইনের ১৯(এ) ধারায় সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১৯ (এফ) ধারায় ১০ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে। তবুও আসামিরা একই পরিবারের হওয়ায় আদালত তাদের সর্বোচ্চ শান্তি না দিয়ে আদালত ১৯(এ) ধারায় ২০ বছর করে এবং ১৯ (এফ) ধারায় ৭ বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হলো।

ঢাকা/মামুন/এসএম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়