ঢাকা, রবিবার, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৭ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ঝুঁকি জেনেও পানির জন্য দীর্ঘ লাইন

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-০১ ৫:২৭:১৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-০১ ৬:২১:৪৭ পিএম

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে মানুষজনকে ঘরে থাকার কথা বলে আসছে সরকার। কিন্তু  প্রয়োজনে এই নির্দেশনা না মেনে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে খাওয়ার পানি সংগ্রহ করছে মানুষ। তারা বলছেন, বাধ্য হয়েই তারা এভাবে পানি নিচ্ছেন।

সরেজমিন বুধবার (১ এপ্রিল) ঘুরে দেখা যায়, কমলাপুর মানিকনগর, মুগদা, ফকিরাপুল, খিলগাঁওসহ আরও কয়েকটি এলাকার পানির পাম্পে বিশুদ্ধ পানির জন্য দীর্ঘ লাইনে আছেন স্থানীয়রা। তারা গ্যালন, পানির জার, কলসিসহ নানা ছোট-বড় পাত্র সঙ্গে এনেছেন পানি নেওয়ার জন্য।

মানিকগর পাম্পে লাইনে থাকা ফজলে এলাহী বলেন, ‘আমি নিজেও জানি, এখন ঘর থেকে বের হওয়া খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। তারপরও আবার এত লোকের মধ্যে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকা। কিন্তু কি করার আছে ভাই? পানিতো খেতে হবে। বেশি টাকাও উপার্জন করা করি না যে, দোকান থেকে পানি কিনে খাব।’

খিলগাঁও এর সবুর মিয়া বলেন, ‘করোনায় মেরে ফেললেও সেটা পরের কথা। কিন্তু পানি না হলে এক মিনিটও থাকা যায় না। এ কারণে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি।’

পানি নিতে আসা অনেকের সঙ্গে আলাপে জানা গেছে, এসব এলাকায় ওয়াসার সরবরাহ করা বাসাবাড়ির পানি খাওয়া যায় না। এ কারণে তারা পাম্প থেকে বিশুদ্ধ পানি কিনে দীর্ঘদিন ধরে খেয়ে আসছেন। ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় সাধারণত এসব পাম্প আছে, যেখান থেকে ৫০ পয়সা দিয়ে এক লিটার পানি কেনা যায়। এ কারণে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি থাকার পরও তাদের বের হতে হচ্ছে। মানুষ যেন ঘরে বসে বিশুদ্ধ পানি পান করতে পারেন, সেজন্য সরকার বা ওয়াসার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তারা।

স্থানীয়রা বলছেন, প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত শত শত মানুষ লাইন দিয়ে পানি নিচ্ছেন। তারা ঘণ্টার পর ঘণ্টা শরীরের সঙ্গে শরীর মিশিয়ে লাইন দিয়ে আছেন। এ কারণে এখানে করোনাভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। যা পুরো এলাকায় সহজে ছড়িয়ে যেতে পারে।

তবে এ বিষয়ে দুষ্টি আকর্ষণ করার জন্য ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাসকিন এ খানের মোবাইল ফোনে কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।




ঢাকা/মাকসুদ/সাজেদ