RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০১ অক্টোবর ২০২০ ||  আশ্বিন ১৬ ১৪২৭ ||  ১৩ সফর ১৪৪২

ভিয়েতনাম থেকে বাংলাদেশিদের ফেরাতে ফ্লাইটের ব‌্যবস্থা হচ্ছে 

কূটনৈতিক প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:১৯, ৪ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
ভিয়েতনাম থেকে বাংলাদেশিদের ফেরাতে ফ্লাইটের ব‌্যবস্থা হচ্ছে 

সরকারি খরচে দেশে ফিরিয়ে আনার দাবিতে ভিয়েতনামের বাংলাদেশ দূতাবাসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনতে বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এজন্য অনলাইন নিবন্ধনের কাজ শুরু হয়েছে। এই বিশেষ ফ্লাইটে দেশটিতে আটকে পড়া অন্য বাংলাদেশিরাও ফিরতে পারবেন। 

দেশটিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্র জানায়, এখন পর্যন্ত হ্যানয়ে ৬৮ জন বাংলাদেশি অবস্থান করছেন। আরও কিছু বাংলাদেশি বিভিন্ন প্রদেশে আটকে আছেন বলে দূতাবাসে তথ্য রয়েছে। তাদেরও দেশে ফিরতে নিবন্ধন করার জন্য দূতাবাসের পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়েছে।

দেশটিতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত সামিনা নাজ জানিয়েছেন, অনলাইনে নিবন্ধন শুরু হয়েছে। ৬ আগস্ট পর্যন্ত এটি চলবে। ইতিমধ্যে তাদের ফেরত পাঠানোর জন্য ঢাকা ও ভিয়েতনাম সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। নিবন্ধন শেষ হওয়ার পর বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা ও উভয় সরকারের অনুমোদনসহ আরও কিছু টেকনিক্যাল বিষয় আছে। সেগুলোর প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে।

সামিনা নাজ বলেন, ‘ভিয়েতনাম সরকার আমাদের জানিয়েছে, আরও কয়েকটি প্রদেশের কিছু বাংলাদেশি দেশে ফিরতে চায়। আমরা তাদের বিষয়টিও দেখছি।’

জানা গেছে, নিবন্ধনের পর ফেরত আসতে চাওয়াদের তালিকা তৈরি করা হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন সাপেক্ষে তাদের ফেরত আনা হবে। 

হ্যানয়ে আটকে পড়া ৬৮ জনের মধ্যে ৬৭ জনের বিএমইটি কার্ড রয়েছে। কিন্তু এদের বেশিরভাগ পর্যটক ভিসা ও কয়েকজন বিনিয়োগকারী ভিসায় ভিয়েতনামে গেছেন বলে জানা গেছে।

বিএমইটি কার্ডের জন্য ওয়ার্ক পারমিটের বিপরীতে বাংলাদেশের দূতাবাসের এনডোর্সমেন্ট নেওয়া হয়েছে কিনা জানতে চাইলে সামিনা বলেন, এদের ক্ষেত্রে আমাদের কোনো অনুমোদন নেওয়া হয়নি।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুলাই ২৭ জন বাংলাদেশি হ্যানয়ে রাতের বেলায় বাংলাদেশ দূতাবাসে ঢুকে পড়ে অবস্থান নেন। তারা লাইভ ভিডিও করা শুরু করেন। তারা দাবি করেন, তাদের বিশেষ ফ্লাইটে করদাতাদের খরচে দেশে ফেরত নিয়ে যেতে হবে। এরপর আরও কিছু বাংলাদেশি একই দাবি করে দেশে ফিরে আসার ইচ্ছা প্রকাশ করে। 

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত ২০ হাজারেরও বেশি বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। তাদের সবাই নিজেদের খরচেই ফিরেছেন। শুধু শুরুর দিকে চীনের উহান থেকে ৩০৪ শিক্ষার্থীকে জরুরি ভিত্তিতে সরকারি খরচে ফিরিয়ে আনা হয়। পরে আরও কিছু শিক্ষার্থীকে ভারত সরকার তাদের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ফিরিয়ে এনেছিল। ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার পর তারা দেশে ফিরে আসেন।

ঢাকা/হাসান/ইভা 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়