ঢাকা     রোববার   ২২ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ৮ ১৪২৯ ||  ২০ শাওয়াল ১৪৪৩

২০২১ সালে সড়কে ঝরেছে ৭৮০৯ প্রাণ

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:০৬, ২৩ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৭:১০, ২৩ জানুয়ারি ২০২২
২০২১ সালে সড়কে ঝরেছে ৭৮০৯ প্রাণ

২০২১ সালে ৫ হাজার ৬২৯টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ হাজার ৮০৯ জন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন ৯ হাজার ৩৯ জন।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরেন যাত্রী কল্যাণ সমিতির নেতারা। এ সময় সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ১২টি সুপারিশমালা তুলে ধরা হয়।

দেশের জাতীয়, আঞ্চলিক ও অনলাইন সংবাদপত্রসমূহে প্রচারিত সড়ক দুর্ঘটনার সংবাদ মনিটরিং করে বার্ষিক এই প্রতিবেদন তৈরি করেছে যাত্রী কল্যাণ সমিতির নেতারা। সাংবাদিকদের সামনে তা তুলে ধরেন সংগঠনটির মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত বছর রেলপথে ৪০২টি দুর্ঘটনায় ৩৯৬ জন নিহত ও ১৩৪ জন আহত হয়েছেন।  নৌপথে ১৮২টি দুর্ঘটনায় মারা গেছেন ৩১১ জন।  আহত হয়েছেন ৫৭৮ জন এবং নিখোঁজ রয়েছেন ৫৪৪ জন মানুষ।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির পক্ষ থেকে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ১২টি সুপারিশমালা তুলে ধরা হয়।  সুপারিশগুলো হল- সড়ক নিরাপত্তায় বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়ন করা। আইনের ত্রুটি চিহ্নিত করে সংস্কারপূর্বক ডিজিটাল পদ্ধতিতে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করা। সড়ক নিরাপত্তায় বাজেট বরাদ্ধ বাড়ানো, সড়ক মন্ত্রণালয়ে আলাদা সড়ক নিরাপত্তা ইউনিট গঠন। সড়ক নিরাপত্তায় ইতোমধ্যে প্রণীত যাবতীয় সুপারিশমালা বাস্তবায়নে উদ্যোগ নেওয়া। দেশের সড়ক-মহাসড়কে রোড সাইন (ট্রাফিক চিহ্ন) স্থাপন করা।  জেব্রা ক্রসিং অংকন করা। গণপরিবহন চালকদের পেশাদার ট্রেনিং ও নৈতিক শিক্ষার ব্যবস্থা করা। সড়ক পরিবহন সেক্টরে অনিয়ম-দুর্নীতি ও চাদাঁবাজি বন্ধ করা। গাড়ির ফিটনেস ও চালকদের লাইসেন্স প্রদানের পদ্ধতি উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তালমিলিয়ে আধুনিকায়ন করা। সড়ক দুর্ঘটনায় আর্থিক সহায়তা তহবিল গঠনপূর্বক হতাহতদের দ্রুত উন্নত চিকিৎসা ও পূণর্বাসনের ব্যবস্থা করা। দেশব্যাপী চাহিদানুযায়ী পর্যাপ্ত মানসম্মত নতুন গণপরিবহন নামানোর উদ্যোগ নেওয়া। ট্রাফিক পুলিশের কর্মকর্তা ও সদস্যদের প্রশিক্ষণের জন্য ট্রেনিং একাডেমী গড়ে তোলা। গণপরিবহনে সেবা ও নিরাপত্তার মান পর্যবেক্ষণের জন্য দেশের সব মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, সচিব, জেলা প্রশাসকদের প্রতিমাসে একদিন পরিচয় গোপন রেখে গণপরিবহন ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন বুয়েট দুর্ঘটনা গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালক ড. হাদিউজ্জামান, গণপরিবহন বিশেষজ্ঞ ও এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক আবদুল হক, বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী নুর খান লিটন, নাগরিক সংহতির সাধারণ সম্পাদক শরীফুজ্জামান শরীফ, বিশিষ্ট সাংবাদিক মনজুরুল আলম পান্না, সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতা আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

হাসিবুল/ মাসুদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়