ঢাকা     সোমবার   ০৩ অক্টোবর ২০২২ ||  আশ্বিন ১৮ ১৪২৯ ||  ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪১৪

‘বঙ্গবন্ধু দেশের মানুষের কল্যাণে জীবন বিসর্জন দিয়েছেন’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৪৯, ১২ আগস্ট ২০২২  
‘বঙ্গবন্ধু দেশের মানুষের কল্যাণে জীবন বিসর্জন দিয়েছেন’

রাজধানীর আইইবি ভবন প্রাঙ্গণে হচ্ছে তিন দিনব্যাপী জাতির পিতার জীবনীভিত্তিক পুস্তক প্রদর্শনী

সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, ‘ভারতবর্ষের সব ইতিহাসকে ছাপিয়ে গেছে বঙ্গবন্ধুর ইতিহাস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন সংগ্রাম ও ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে শোষিত-বঞ্চিত বাঙালি জাতির জন্য একটি স্বাধীন- সার্বভৌম ভূখণ্ড উপহার দিয়েছেন। একটি মানুষ কত বেশি ত্যাগ স্বীকার করতে পারেন, তার প্রকৃষ্ট উদাহরণ বঙ্গবন্ধু। তিনি এ দেশের মানুষের কল্যাণে তার সারাটি জীবন বিলিয়ে দিয়েছেন, বিসর্জন দিয়েছেন।’

শুক্রবার (১২ আগস্ট) সকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইইবি) ভবন প্রাঙ্গণে তিন দিনব্যাপী (১২-১৪ আগস্ট) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীভিত্তিক পুস্তক প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। জাতির পিতার শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস-২০২২ উপলক্ষে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করে গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তর।

গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আবুবকর সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবুল মনসুর।

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর জীবনীভিত্তিক পুস্তক প্রদর্শনী গতানুগতিকতার বাইরে অসাধারণ আয়োজন। আমি এ আয়োজনের সর্বাঙ্গীন সাফল্য কামনা করি।’ সব জেলা ও বিভাগে আগামীতে এ ধরনের আয়োজন করার জন্য গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আর্কাইভস ও গ্রন্থাগারের মহাপরিচালক ফরিদ আহমেদ ভূঁইয়া, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক মো. কামরুজ্জামান, কবি নজরুল ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক মো. জাকীর হোসেন, বাংলাদেশের শিল্পী কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অসীম কুমার দে, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রতন চন্দ্র পণ্ডিত, বাংলাদেশ কপিরাইট অফিসের রেজিস্ট্রার মো. দাউদ মিয়া, বাংলা একাডেমির সচিব এ এইচ এম লোকমান, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের পরিচালক মিনার মনসুর প্রমুখ।

বঙ্গবন্ধুর জীবনীভিত্তিক এ পুস্তক প্রদর্শনীতে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তরসহ বাংলা একাডেমি, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর, আর্কাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর, কবি নজরুল ইনস্টিটিউট, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র ও বাংলাদেশ কপিরাইট অফিস অংশ নিচ্ছে। প্রদর্শনী প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত।

আসাদ/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়