ঢাকা     সোমবার   ০৪ মার্চ ২০২৪ ||  ফাল্গুন ২০ ১৪৩০

রাজধানীর মুগদায় যুবকের আত্মহত্যা

প্রকাশিত: ১৮:৩৭, ১৫ অক্টোবর ২০২৩  
রাজধানীর মুগদায় যুবকের আত্মহত্যা

রাজধানীর উত্তর মুগদার একটি বাসা থেকে মো. রুবেল মিয়া (২৮) নামের এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, হতাশাগ্রস্ত হয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি।

শনিবার (১৪ অক্টোবর) আনুমানিক রাত ১০টার দিকে আত্মহত্যা করেন মো. রুবেল মিয়া। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

মুগদা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শেখ এনামুল করিম বলেন, আমরা খবর পেয়ে উত্তর মুগদার একটি বাসার চতুর্থ তলা থেকে রুবেল নামের ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করি। আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

তিনি আরও বলেন, আমরা স্বজনের কাছে থেকে জানতে পারি, রুবেল অনলাইন জুয়ায় আসক্ত ছিলেন। তিনি একটি দোকানের কর্মচারী ছিলেন এবং মালিকের কাছে ঋণগ্রস্ত ছিলেন। তিনি হতাশাগ্রস্ত অবস্থায় ছিলেন। এ কারণে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। ময়নাতদন্ত শেষে প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

নিহতের ছোট ভাই সুমন বলেন, আমরা দুই ভাই মুগদা ঝিলপাড় এলাকায় সাজেদুল ইসলাম কাজল নামের এক ব্যক্তির দোকানে সেলসম্যান হিসেবে কাজ করি। আমার ভাই রুবেল অনলাইন জুয়ায় আসক্ত ছিল। কোরবানির ঈদের আগে ওই দোকানের মালিক জানান, রুবেল দোকানের ক্যাশ থেকে ১ লাখ ১০ হাজার টাকার হিসাব মিলাতে পারছিল না। এছাড়া, এর আগের ১ লাখ টাকা রুবেলের কাছে পাওনা আছে দোকান মালিকের। এই টাকা-পয়সার জন্য বিভিন্ন সময়ে রুবেলকে তিনি চাপ দিতেন। এর আগে দোকান মালিককে ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, প্রতি মাসে রুবেলের বেতন থেকে ৪ হাজার টাকা কেটে নিতেন দোকান মালিক। এই নিয়ে আমার ভাই মানসিক চাপের মধ্যে ছিল। হয়ত এ কারণে বাসায় সিলিং ফ্যানের সঙ্গে দড়ি পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের গ্রামের বাড়ি নরসিংদী জেলার বেলাবো থানা লতিফপুর গ্রামে। বর্তমানে মুগদার উত্তর মুগদাপাড়া ৪২/১ নম্বর বাসার চার তলায় দুই ভাই থাকতাম। আমাদের বাবার নাম মোক্তার মিয়া।

হাসান/ফয়সাল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়