ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৫ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ১০ ১৪৩১

ধমক দিলে জিহ্বা দেখায় ‘মধু’

মামুন খান  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:৪১, ১৫ জুন ২০২৪   আপডেট: ১৯:২৫, ১৫ জুন ২০২৪
ধমক দিলে জিহ্বা দেখায় ‘মধু’

মাদারীপুরের শিবচরের সন্নাসীর চর থেকে আড়াই বছরের এক বিশালদেহী গরু নিয়ে হাটে এসেছেন লাল মিয়া হাজী। কুচকুচে কালো বর্ণের শাহিওয়াল গরুটি বেশ শান্ত স্বভাবের। মালিকের কাছে তার ব্যবহার লেগেছে মধুর। এ জন্য আদর করে গরুটির নাম রেখেছেন ‘মধু’। 

গরুটির দেখা মিলবে শনিরআখড়া গরুর হাটে ১নং কাউন্টারের পাশে। এই হাটে বিশাল আকৃতির যতোগুলো গরু চোখে পড়ার মত মধু সেগুলোর মধ্যে একটি। নজর কাড়ছে অনেকের। অনেকে ভিড় করছেন গরুটি দেখে। ১৪ মণ ওজনের গরুটি লম্বায় সাড়ে ৬ ফিট, উচ্চতায় ৬ ফুট। মালিক এর দাম চাচ্ছেন ৬ লাখ টাকা। 

গরুটির মালিক লাল মিয়া হাজী বলেন, ছোট থেকেই গরুটা শান্ত। প্রতিদিন ৫শ থেকে ৬শ টাকার খাবার লাগে। আমার পালের এটাই সেরা গরু। এতো বড় গরু আর হয়নি। মধুর দাম চাচ্ছি ৬ লাখ টাকা। সাড়ে ৫ লাখ দাম হয়েছে। ৬ লাখ হলে বিক্রি করে দিবো। 

গরুর নাম মধু রাখার কারণ জানতে চাইলে লাল মিয়া বলেন, গরুটির ব্যবহার মধুর। তাই তার নাম রেখেছি মধু। একটু দুষ্টুমি করলে ধমক দেই। ধমক দিলে জিহ্বা বের করে দেয় মধু। ভাবে মারবে। আমি কিন্তু ওকে লালন পালন করিনি।  ছেলেরা করেছে। তবে প্রতিদিন ওর গলায়, পিটে আদর করতাম। ও আমার ভক্ত হয়ে গেছে। আমার কথা শোনে বেশি। 

সরেজমিনে দেখা যায়, গরুটি বসে ছিলো। একজন ক্রেতা আসেন। লাল মিয়া গরুটিকে উঠিয়ে দেন। দাম চাইলে ক্রেতা বলেন, দুই লাখ দিবো। এতে অতিষ্ঠ হয়ে যান লাল মিয়ার ছেলে। রেগে বাবাকে বলেন, যে কেউ আসলেই গরু উঠাবে না। কাস্টমার দেখে নেবে আগে। দরকার হলে আজ না বেচে কাল বেচবো গরু। 

মধুকে দেখতে আসা শাকিব নামে এক কিশোর বলেন, বিকেলে এসে বন্ধুরা দেখে গেছে। ওরা গল্প করছে গরুর জিহ্বা বের করার। তাই দেখতে এসেছি। আমিও তাই দেখলাম। 

লাল মিয়া বলেন, দেশীয় খাদ্যে গরুটি বড় করেছি। কোনো ভেজাল নেই। যিনি গরুটি কিনবেন, জিতবেন। তার মতে এই হাটে ওঠা বিদেশি জাতের বড় গরুর চেয়ে তারটাই সেরা। কাঙ্খিত দামে গরু বিক্রির আশায় আছেন তিনি।

ঢাকা/ইমন

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়