ঢাকা     শুক্রবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৮ ১৪২৯ ||  ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

বাদাম বেচে দিনে লাভ ৭০০ টাকা

মোসলেম উদ্দিন, দিনাজপুর  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:৫০, ৪ অক্টোবর ২০২২   আপডেট: ১০:৫৩, ৪ অক্টোবর ২০২২
বাদাম বেচে দিনে লাভ ৭০০ টাকা

কাঁচা বাদাম ভেজে ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করেন মিজানুর রহমান

টাটকা গরম বাদাম বিক্রেতা মিজানুর রহমানকে দিনাজপুরের হিলির কম বেশি সবাই চেনেন। ভ্যানে চুলা বসিয়ে বাদম ভেজে তা বিক্রি করেন সাধারণ মানুষদের কাছে। প্রতিদিন ৯ থেকে ১০ কেজি বাদাম বিক্রি করে তার লাভ হয় ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা। 

হিলির সাতকুড়ি গ্রামে বাড়ি মিজানুর রহমানের। সকাল ৯টায় ভ্যানে বাদাম, বুট, শিমের বিচি আর চুলা নিয়ে চলে আসেন হিলি শহরে। প্রায় ১৫ বছর ধরে ভ্যানে করে গরম বাদাম ভেজে বিক্রি করে আয় করেন তিনি।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত হিলি উপজেলা চত্ত্বরে, বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সিপিতে এবং সন্ধ্যা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত হিলি বাজারে বাদাম বিক্রি করেন মিজানুর রহমান। এটা তার নিত্যদিনের ব্যবসায়িক রুটিন। ক্রেতাদের সামনেই চলে তার বাদাম ভাজার কাজ। 

আব্দুল আজিজ নামে এক বাদাম ক্রেতা রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘মিজানুর রহমানের কাছে গরম ভাজা বাদাম পাওয়া যায়। তাই অন্য কারো কাছ থেকে বাদাম নেই না। ঠান্ডা বাদামের চেয়ে গরম ভাজা বাদাম খেতেই বেশি মজা।;

হালিম নামের অপর এক ক্রেতা বলেন, সন্ধ্যায় হিলির মসজিদ মার্কেটে এই বাদাম বিক্রেতাকে পাওয়া যায়। প্রতিদিন ১০০ গ্রাম বাদাম ২৫ টাকা দিয়ে কিনে খাই। আসলে গরম এবং টাটকা ভাজা বাদাম খেতে অনেক ভালো লাগে।’

বাদাম বিক্রেতা মিজানুর রহমান বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে হিলি শহরে ভ্যানে করে মানুষের সামনে বাদাম ভেজে বিক্রি করি। ক্রেতাদের রুচি অনুযায়ী বাদাম ভাজি। বাজারে আমার বাদামের অনেক চাহিদা রয়েছে। শীতের সময় বাদাম অনেক বিক্রি হয়। কিন্তু গরম মৌসুমে বিক্রির পরিমাণ কমে আসে। তারপরও প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ কেজি বাদাম বিক্রি করি। বর্তমানে কাঁচা বাদামের দাম বেশি। ১০০ থেকে ১১০ কেজি কাঁচা বাদাম কিনে আনতে জয়। তা আবার ভেজে ২০০ টাকা কেজি বিক্রি করি। ১ কেজি কাঁচা বাদাম ভাজলে ৭০০ গ্রাম হয়। আল্লাহ দিলে দিনে আমার ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা লাভ হয়। এই বাদম বিক্রি করেই আল্লাহর রহমতে ছেলে-মেয়েদের নিয়ে অনেক ভালো আছি।’

মাসুদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়