ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বন্ডে পাবে মেয়র হানিফ ফ্লাইওভার ঋণের টাকা

কেএমএ হাসনাত : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-২৩ ৮:১৩:০৪ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-২৩ ২:২৪:৩৬ পিএম

ব্যয়বহুল গুলিস্তান-যাত্রাবাড়ী (মেয়র মোহাম্মদ হানিফ) ফ্লাইওভার নির্মাণকারি ওরিয়ন গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ওরিয়ন ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেডের ঋণের টাকা সরকার পরিশোধ করে দিচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটির নেয়া ঋণের টাকা বন্ডের মাধ্যমে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে দেবে সরকার।

এজন্য সরকার চতুর্পক্ষীয় একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। এই চার পক্ষের মধ্যে রয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন, অর্থ বিভাগ, সংশ্লিষ্ট ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং ওরিয়ন ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড।

সূত্র জানায়, চুক্তির ফলে ওরিয়ন গ্রুপ ফ্লাইওভারের নির্মাণ ব্যয়ের ১ হাজার ৪৩৮ কোটি ৫৪ লাখ টাকা এবং সুদ বাবদ ৫৫৪ কোটি টাকা, মোট ১ হাজার ৯৯২ কোটি ৫৪ লাখ টাকা পাচ্ছে। যা বন্ডের মাধ্যমে ঋণদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোকে পরিশোধের ব্যবস্থা করে দিচ্ছে সরকার।

সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ে এ সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর সম্পন্ন হয়েছে। অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রতিনিধি, বাজেট অনুবিভাগ-১ এর অতিরিক্ত সচিব, ঋণ ব্যবস্থাপনা অধিশাখার উপ-সচিব, জনতা ব্যাংক, অগ্রণী ব্যাংক, সোনালী ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক, সোশাল ইসলামী ব্যাংক, আইসিবি এবং ওরিয়ন গ্রুপের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, এই চুক্তির ফলে সরকার ওরিয়ন গ্রুপের ঋণের টাকা বন্ডের মাধ্যমে পরিশোধ করবে। ফলে ব্যাংকের কাছে ওরিয়ন গ্রুপের আর কোনো দায় থাকবে না। তবে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে বন্ড নেয়ার আগে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের বোর্ড সভায় এ বিষয়ে অনুমোদন নিতে হবে।

অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ঋণদাতা সংস্থাগুলো তাদের পরিচালনা বোর্ডের অনুমোদন নিলেই সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোকে বন্ড দিয়ে দিবে। অর্থ বিভাগ এ সংক্রান্ত সব ধরনের প্রস্তুতি এরই মধ্যে সম্পন্ন করেছে। অর্থ বিভাগের ট্রেজারি ও ঋণ ব্যবস্থাপনা অনুবিভাগ থেকে এই বন্ড দেওয়া হবে।

জানা গেছে, এর আগে এ সংক্রান্ত এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় দ্রুত চুক্তি সম্পন্ন করা জন্য। এর দুই দিন পর প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেদের মধ্যে চুক্তির বিষয়ে সমঝোতা এবং চুক্তির খসড়া ইমেইলের মাধ্যমে আদান প্রদান করে এবং নিজেদের মধ্যে প্রয়োজনীয় আলোচনা সম্পন্ন করে।

মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভার নির্মাণে ওরিয়ন গ্রুপকে ২ হাজার ২৫০ কোটি টাকা অর্থায়ন করে ছয়টি ব্যাংক ও বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংকের বিনিয়োগ ৫০০ কোটি টাকা, রূপালী ব্যাংকের ৫৫০ কোটি টাকা, জনতা ব্যাংকের ৬০০ কোটি টাকা ও অগ্রণী ব্যাংকের ৫০০ কোটি টাকা। এছাড়া ৫০ কোটি টাকা করে বিনিয়োগ করেছে সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক ও ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)।

গুলিস্তান থেকে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত ১১ দশমিক ৭ কিলোমিটার দীর্ঘ ‘মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভার’ নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয় ১৯৯৮ সালে। নানা জটিলতার কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১০ সালে প্রকল্পটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন এবং ২০১৩ সালে তিনি উদ্বোধন করেন।

ফ্লাইওভারের নকশা করে দিয়েছে কানাডীয় কোম্পানি লি কানাডা। আর নির্মাণকাজে  ঠিকাদার ছিল ভারতীয় প্রতিষ্ঠান সিমপ্লেক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচারাল লিমিটেড। ঢাকা সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে এই উড়ালসড়ক নির্মিত হয়েছে। ২৪ বছর পর এর দায়িত্ব নেবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। হানিফ ফ্লাইওভারের আয়ুষ্কাল ধরা হয়েছে ১০০ বছর। চট্টগ্রাম ও সিলেটসহ দক্ষিণ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় ৩০টি জেলার যানবাহন ঢাকায় প্রবেশ করছে।


ঢাকা/হাসনাত/সাইফ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন