RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৩ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৯ ১৪২৭ ||  ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

‘এড়ানো যেতো ম্যারাডোনার মৃত্যু’

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:১৮, ১ ডিসেম্বর ২০২০   আপডেট: ২১:১৮, ১ ডিসেম্বর ২০২০
‘এড়ানো যেতো ম্যারাডোনার মৃত্যু’

ম্যারাডোনা ও তার সাবেক বান্ধবী ভেরোনিকা ওজেদা

ডিয়েগো ম্যারাডোনার আকস্মিক মৃত্যু শোক এখনও কাটিয়ে ওঠেনি বিশ্ব। কেউ কেউ একে অনিবার্য পরিণতি মনে করলেও তার মৃত্যু ঘিরে সন্দেহ তৈরি হতে সময় লাগেনি। চিকিৎসদের গাফিলতির অভিযোগ এনেছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল গ্রেটের ব্যক্তিগত আইনজীবী। তার মৃত্যু নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে আর্জেন্টিনার স্থানীয় বিচার বিভাগ। এবার ম্যারাডোনার সাবেক বান্ধবী ভেরোনিকা ওজেদার বর্তমান সঙ্গী দাবি করলেন, আইকনিক ফুটবলারের মৃত্যু এড়ানো যেতো।

তদন্তের শুরুতে ম্যারাডোনার ব্যক্তিগত চিকিৎসক লিওপোলদো লুকুয়ের বাসা ও অফিসে তল্লাশি চালায় কর্মকর্তারা। তবে সোমবার সকালে লুকুয়ে স্পষ্ট করে জানান, তিনি ও তার দল ৬০ বছর বয়সী কিংবদন্তির সঠিক সেবা করে গেছেন শেষ পর্যন্ত। তবে তা বিশ্বাস করেন না ওজেদার সঙ্গী মারিও বাউদ্রি।

লুকুয়ের চিকিৎসা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বাউদ্রি, ‘লুকুয়ে ও তার দল সবকিছু দেখভাল করতেন। ম্যারাডোনার মৃত্যু এড়ানো যেতো। লুকুয়ে ভালো ব্যক্তি। কিন্তু আমার যদি বিশ্বের সেরা ফেরারি থাকে এবং তা যদি পাঁচ বছর বয়সী কোনও ছেলেকে দেই, সে তা নষ্ট করে ফেলবে।’

আইনজীবী মাতিয়াস মোরলার মতো চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলেছেন তিনিও, ‘ডিয়েগো কয়েক দিন আগে বিছানা থেকে উঠেছিল এবং দেয়ালের সঙ্গে তার মাথার ডানপাশে আঘাত লেগেছিল। কিন্তু ওই ঘটনার পর তারা কোনও ধরনের পরীক্ষা করায়নি।’

বাউদ্রি আরও দাবি করেন, ম্যারাডোনার মৃত্যুর কদিন আগে তার সঙ্গী ওজেদা তাকে দেখতে গিয়ে ভালো কোনও অভিজ্ঞতা নিয়ে ফেরেননি। তিনি বলেছেন, ‘সোমবার, তার মৃত্যুর আগে, ডিয়েগো ভেরোনিকাকে বলেছিলেন, তিনি তাকে দেখতে চান এবং সে গিয়েছিল। কিন্তু বাসায় কোনও চিকিৎসককে দেখতে পায়নি সে। এমনকি ম্যারাডোনার রুমে স্বাভাবিক কোনও বাথরুম ছিল না। ক্যাম্প সাইটের মতো একটি কেমিক্যাল টয়লেট ছিল। রুমটা ছিল খুব ছোট, ডিয়েগোর থাকার জন্য উপযুক্ত জায়গা ছিল না সেখানে।’

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়