ঢাকা     বুধবার   ৩০ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৬ ১৪২৯ ||  ০৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

হত্যার হুমকি পেয়েছিলেন নিউ জিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা!

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:০৩, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ২১:১৮, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
হত্যার হুমকি পেয়েছিলেন নিউ জিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা!

নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন বলেছে, দেশ ছাড়ার কয়েক সপ্তাহ আগে পাকিস্তান সফরের দলে থাকা নিউ জিল্যান্ডের কয়েকজন খেলোয়াড় হত্যার হুমকি পেয়েছিলেন। সংগঠনটির প্রধান নির্বাহী হিথ মিলস প্রকাশ করেন, সোশ্যাল মিডিয়া ও অন্যান্য মাধ্যমে হুমকিগুলো দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ওই সময় তা যথেষ্ট গুরুতর মনে হয়নি।

২১ খেলোয়াড়কে নিয়ে যখন নিউ জিল্যান্ডের ৩৪ জনের বহর ইসলামাবাদ বিমানবন্দর থেকে দুবাইয়ের ফ্লাইট ধরতে ব্যস্ত, তখন ভারতীয় ক্রিকেট বিষয়ক ক্রিকবাজকে এসব বলছিলেন মিলস, ‘সফরের সপ্তাহখানেক আগে কয়েকজন খেলোয়াড় মৃত্যুর হুমকি পান। এটা ছিল অস্বাভাবিক। কিন্তু তারা সোশ্যাল মিডিয়া ও অন্য মাধ্যমগুলোতে হুমকি পাচ্ছিলেন। আমাদের বিশেষজ্ঞরা সময় নিয়ে সেগুলো যাচাই করেন এবং তারা উপসংহার টানেন যে সেগুলো গুরুতর ছিল না।’

তিন সপ্তাহের এই নির্ধারিত সফর শেষ হয় এক সপ্তাহ না যেতেই। এমন সিদ্ধান্তে নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড ও খেলোয়াড়দের দোষারোপ করছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। তবে মিলসের মতে, ব্ল্যাক ক্যাপরা তাড়াহুড়ো করেনি কিংবা অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেখায়নি। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি না তারা অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে। আমরা যেটা বলতে পারি, পাকিস্তানের নিরাপত্তা নিয়ে আমরা খুব অভিভূত ছিলাম। মাঠ, হোটেল ও বিমানবন্দর থেকে যাওয়া সবকিছু ছিল নিরাপদ। কিন্তু আমাদের আর সেখানে থাকা সম্ভব হয়নি। অবশ্যই এটা খেলোয়াড় ও তাদের পরিবারদের জন্য সহজ ছিল না। স্বস্তির ব্যাপার হলো তারা এখন নিরাপদ। বুঝতে পারছি তাদের দেশ ছাড়ার সিদ্ধান্ত পাকিস্তানের জনগণের জন্য খুবই হতাশাজনক। যাই হোক, খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা আমাদের কাছে সবার আগে এবং নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটের সিদ্ধান্তকে আমরা সমর্থন জানাই।’

সফরকারী দল ম্যাচের দিন কোন ধরনের নিরাপত্তা হুমকি পেয়েছে তা বিস্তারিত না জানিয়ে নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট বিবৃতিতে বলেন, শুক্রবার সিরিজ শুরুর আগ দিয়ে ‘হঠাৎ সবকিছু বদলে যায়’। পাকিস্তানের মাঠে উপস্থিত নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটের নিরাপত্তা পরামর্শক ও অন্য স্বতন্ত্র সূত্রে নিরাপত্তা সংকেত পাওয়ার পর সিরিজ বাতিল ছাড়া আর কোনো পথ খোলা ছিল না বলে হোয়াইট জানান।

হোয়াইট বলেছেন, ‘আমরা মানছি যে এটা পিসিবির জন্য ছিল ভয়ঙ্কর কঠিন সময় এবং আমরা প্রধান নির্বাহী ওয়াসিম খান ও তার দলকে তাদের পেশাদারিত্ব ও দেখভালের জন্য আমাদের আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাই।’

ঢাকা/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়