ঢাকা     সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৯ ||  ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

ভারতকে হারিয়ে ট্রফি জিততে মরিয়া মারিয়ার দল

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৩৬, ২১ ডিসেম্বর ২০২১   আপডেট: ২২:৩৮, ২১ ডিসেম্বর ২০২১
ভারতকে হারিয়ে ট্রফি জিততে মরিয়া মারিয়ার দল

অনূর্ধ্ব-১৯ নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ দল যেন উড়ছে। যার প্রমাণ যাওয়া যাবে রোড টু ফাইনালের দিকে চোখ ফেললেই। মুড়ি মুড়কির মতো গোল দিয়েছেন মারিয়া মান্দারা। চার ম্যাচে ১৯বার প্রতিপক্ষের জালে লক্ষ্যভেদ করেছে গোলাম রাব্বানী ছোটনের শিষ্যদের শট। এবার লড়াই ট্রফি জয়ের। প্রতিপক্ষ প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিবেশী দেশ ভারত।

বুধবার (২১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে ফাইনালের মহারণে নামবে বাংলাদেশ।

গ্রুপপর্বে ভারতকে হারানো বাংলাদেশ ফাইনালেও নিজেদের সেরাটা দিয়ে ট্রফি ঘরে তুলতে চায়। তাদের বিপক্ষে জয়ের সামর্থ্য আছে বলে মনে করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মারিয়া।

‘মেয়েরা প্রত্যেকটা ম্যাচ জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ার চেষ্টা করেছে। আমরা সেটাই করেছি। আর এদিকে ভারত ভালো খেলে ফাইনালে এসেছে। তারা শক্তিশালী দল। আমাদের মেয়েরা জানে কিভাবে ভালো খেলতে হয়। আমার বিশ্বাস আছে মেয়েরা ভালো করবে। আমরা কাঙ্ক্ষিত জয় পাবো। ভারতকে হারানোর আমাদের সামর্থ্য আছে। আমরা সেটা মাঠে করে দেখাবো’-ঠিক এভাবেই বলেছেন বাংলাদেশের দলনেত্রী।

গ্রুপ পর্বের চার ম্যাচের মধ্যে তিনটিতে জিতে ও একটিতে ড্র করে দশ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনালে নাম লিখিয়েছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে ভারতও তিনটি জয় পেয়েছে তবে হারতে হয়েছে একটি ম্যাচে, সেটি লাল সবুজের মেয়েদের বিপক্ষেই। 

ভারতের বিপক্ষে স্বাভাবিক খেলা খেলে ফাইনালের ট্রফি ঘরেই রাখবে বলে আত্মবিশ্বাসী কোচ গোলাম রাব্বানী। তিনি বলেন, ‘এই টুর্নামেন্টে শুরু থেকে আমাদের লক্ষ্য ছিল ম্যাচ বাই ম্যাচ দেখে খেলা। যেটা আমরা করে আসছি। এই জন্য মেয়েদেরকে একশত ভাগ ধন্যবাদ দিবো। মেয়েরা প্রথম থেকে ভালো খেলে আসছে। ভারতের বিপক্ষে মেয়েরা স্বাভাবিক খেলা খেলবে। সেখানেও সুযোগ কাজে লাগাতে হবে।‘

‘আমাদের সামনে আরেকটা ম্যাচ রয়েছে সেটা হলো ফাইনাল। আমি মনে করি ফাইনাল প্রতিদ্বন্ধীতামূলক ম্যাচ হবে। মেয়েরা যে ফুটবল খেলে আসছে । ভারতের বিপক্ষে সে ধারাবাহিক বজায় রেখে খেলবে। ভারতের বিপক্ষে আমরা জয় পাবো ইনশাআল্লাহ’-আরো যোগ করেন বাংলাদেশ কোচ।

এদিকে ফাইনাল পর্যন্ত উঠে আসাটাকেই বড় সাফল্য মনে করছেন ভারত অধিনায়ক ভারতীয় অধিনায়ক সুমাতি কুমারী। তবে ফাইনালে জেতার জন্যই নামতে চান জানিয়ে সুমাতি বলেন, ‘দল ফাইনালে খেলছে, ভীষণ ভালো লাগছে। ফাইনাল জেতার জন্য যেভাবে খেলা দরকার আমরা সেভাবেই খেলব।‘

ভারতের কোচ অ্যালেক্স অ্যামব্রোস আশা করছেন বাংলাদেশের সঙ্গে লড়াকু একটি ম্যাচ হবে। ‘মেয়েরা খুশি, আমরা সবাই খুশি যে আমাদের কঠোর পরিশ্রম সার্থক হয়েছে। ভালো একটা ফাইনালের প্রত্যাশা’-এভাবেই বলেছেন অ্যালেক্স।

তবে তিনি মনে করেন সমর্থকরা বড় একটা পার্থক্য গড়ে দিতে পারেন। অ্যালেক্স বলেন, ‘সব ফাইনালই কঠিন। মোটেও সহজ নয়। স্বাগতিকদের বিপক্ষে তো আরও কঠিন, বিশেষ করে দর্শকদের সব সমর্থন তাদের দিকেই থাকবে। দর্শকদের সমর্থন অবশ্যই পার্থক্য করে দেয়। তবে আমার মনে হয় এটা আবার একইসঙ্গে খেলোয়াড়কে নিজেদের সর্বোচ্চটা দিতে উৎসাহিত করে, খেলোয়াড়ের আসল চরিত্রটা প্রকাশ পায়। আমরা ভারতীয়রা এই ভেবে খেলি না যে বয়ঃভিত্তিক টুর্নামেন্ট হলেই সেটা জিততে হবে। আমাদের মূল উদ্দেশ্য হলও একটা সঠিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে তরুণদের মেধার বিকাশ গঠন। আমরা বড় টুর্নামেন্টের জন্য তরুণ ফুটবলারদের তৈরি করছি।‘

গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কাকে স্রেফ উড়িয়ে দিয়েছিল। গোল করেছে এক ডজন। ফুরফুরে মেজাজে থাকা মারিয়াদের সামনে এবার সুযোগ ভারতকে হারিয়ে দেশকে ট্রফি জয়ের উল্লাসে ভাসানো। ফাইনালের চাপ কাটিয়ে সহজাত খেলা খেলে ট্রফি ছিনিয়ে আনতে পারবেতো বাংলার মেয়েরা?

ঢাকা/রিয়াদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়