ঢাকা     বুধবার   ৩০ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৬ ১৪২৯ ||  ০৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

সাকিবের ত্যাগের প্রতিদানে সিরিজ জিততে মরিয়া বাংলাদেশ

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:০৫, ২৩ মার্চ ২০২২   আপডেট: ১১:১৩, ২৩ মার্চ ২০২২
সাকিবের ত্যাগের প্রতিদানে সিরিজ জিততে মরিয়া বাংলাদেশ

কথায় আছে ত্যাগেই প্রকৃত সুখ। পুরো পরিবার অসুস্থ থাকা সত্ত্বেও সাকিব আল হাসান দেশের বিমান ধরেননি নতুন মাইফলক গড়ার আশায়। সিরিজ জয়ের প্রত্যয় বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের। প্রতিদানের আশায় ত্যাগ হয় না আসলে। কিন্তু সাকিবের এই ত্যাগের একমাত্র প্রতিদান দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে সিরিজ জয়। নিঃসন্দেহে সাকিবের সতীর্থদের আরও তাঁতিয়ে তুলবে এই ঘটনা, মরিয়া হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়বে প্রোটিয়া দূর্গে প্রোটিয়াবধে।

সাকিব দেশ ফিরবেন কি ফিরবেন না, এটা নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে প্রায় ১০ হাজার কিলোমিটার দূরে অবস্থিত গোটা বাংলাদেশ যখন আলোচনায়, উৎকণ্ঠায়— তখন টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনের এক ভিডিও বার্তায় সকলের হৃদয় জিতে নেন সাকিব।

‘সে পুরোপুরিভাবে খেলতে চায়। প্রথম থেকেই একই মানসিকতা নিয়ে আছে। খেলার ব্যাপারে খুবই আন্তরিক। প্রথম ম্যাচে সেরা খেলোয়াড় হলো। দ্বিতীয় ম্যাচে রান করেনি, বোলিং দারুণ করেছে। খেলার ভেতরে ডুবে ছিল। সে সিরিজটা জিততে চায়।’

পরদিন সুজনের সুরে তাল মিলিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও। অকপটে বলে দিয়েছেন, সাকিব ত্যাগ করছেন দেশের জন্য।

মঞ্চ সেই আগেরটাই। সেঞ্চুরিয়নের সুপার স্পোর্টস পার্ক। যেখানে দিন কয়েক আগে ইতিহাস রচনা করেছিল বাংলাদেশ। আজ বুধবার (২৩ মার্চ) বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টায় সেঞ্চুরিয়নে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে তামিম ইকবালের দল। প্রথমটির মত এটিও হবে দিবারাত্রির ম্যাচ। ৩৮ রানে জয় পাওয়া প্রথম ম্যাচের অনুপ্রেরণা নিয়েই নামবে বাংলাদেশ।

প্রথম ম্যাচ জয়ের অন্যতম নায়ক মেহেদি হাসান মিরাজও বলছেন তেমনটাই, ‘প্রথম ম্যাচে আমরা জিতেছি, খুব ভালো ক্রিকেট খেলেছি। দ্বিতীয় ম্যাচে আমরা সবাই দেখেছি, উইকেটের আচরণ ওইরকম ছিল না। উইকেট ভালো থাকলে হয়তো আরও ভালো ক্রিকেট খেলতে পারতাম। তারপরও দিনশেষে আমরা এখনও ম্যাচের ভেতরে আছি। এখনও সুযোগ আছে সিরিজ জয়ের।’

সাকিবের এই ত্যাগ নয় শুধু, মিরাজের কথায় স্পষ্ট বাংলাদেশ সিরিজ জয়ের স্বপ্ন বিভোর, ‘চেষ্টা করবো ভালো ক্রিকেট খেলার জন্য। আমরা যেরকম দলীয় খেলা খেলি, যেরকম জিতে আসছি, আমরা সবাই যদি ভালো ক্রিকেট খেলি, তাহলে জিততে পারি। ওইভাবেই আমরা চেষ্টা করবো সবাই।’

প্রথম ম্যাচে দারুণ জয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচে ভরাডুবি। মন খারাপের গল্প ভুলে গিয়ে বাংলাদেশ শিবির আত্মবিশ্বাসে ভরপুর। মিরাজ বলেন, ‘আমরা আত্মবিশ্বাসী আছি। এখনও আমরা ম্যাচের ভেতরেই আছি। আমরা একটা জিতেছি, ওরা একটা। যেহেতু প্রথম ম্যাচ আমরা এখানে জিতেছি, আত্মবিশ্বাস সবারই ভালো আছে।’

প্রথম দুই ম্যাচের মতো তৃতীয় ওয়ানডেতেও বাংলাদেশ নামতে পারে অপরিবর্তিত একাদাশ নিয়েই। দলে পরিবর্তন আনার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। সেঞ্চুরিয়নের উইকেট বরাবরের মতো স্পোর্টিং, ব্যাটিং সহায়ক হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। তবে সফরকারীদের দুর্বলতা বুঝে পেস সহায়কও হতে পারে। মিরাজের মতে সকলে দায়িত্ব নিয়ে খেলতে পারলে শেষ হাসি হাসবে বাংলাদেশই, ‘যেহেতু এখানে (সেঞ্চুরিয়নে) আমরা খেলেছি, আত্মবিশ্বাস আছে, সবাই দায়িত্ব নিয়ে খেলতে পারলে রান করতে পারবো।’

এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকা ঘরের মাঠে সিরিজ হাতছাড়া করতে চাইবে না কোনোভাবেই। তাদের একাদশে এক পরিবর্তন নিশ্চিত। ওয়েন পার্নেল ছিটকে গেছেন হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে। তার জায়গায় দেখা যেতে পারেন মার্কো জানসেনকে।

এই সিরিজ থেকে দুই দলই আইসিসি বিশ্বকাপ সুপার লিগে ১০ পয়েন্ট করে পেয়েছে। শেষ ম্যাচ বাংলাদেশ জিতলে শীর্ষস্থান পাকাপোক্ত হবে, আর দক্ষিণ আফ্রিকা জিতলে উঠবে উপরের সিঁড়িতে। আর যেই জিতুক গুরুত্বপূর্ণ এই ১০ পয়েন্টের সঙ্গে পাবে ট্রফিও। লাল সবুজের বাংলাদেশ কী পারবে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ইতিহাস গড়ে, সিরিজ নিশ্চিত করে বিজয়ের পতাকা ওড়াতে?

বাংলাদেশ সম্ভাব্য একাদশ:
তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, ইয়াসির আলী, আফিফ হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম।

ঢাকা/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়