ঢাকা     শুক্রবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৮ ১৪২৯ ||  ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশ অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০০:১৮, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ০১:১৬, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশ অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন

আইসিসি নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের ফাইনালে আয়ারল্যান্ডকে ৭ রানে হারিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো বাছাইপর্বে চ্যাম্পিয়ন হলো বাংলাদেশের নারীরা।

আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাতে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২০ রান সংগ্রহ করে টাইগ্রেসরা। জবাবে ৯ উইকেট হারিয়ে ১১৩ রানের বেশি করতে পারেনি আয়ারল্যান্ড।

অল্প পুঁজি নিয়েও বাংলাদেশের বোলাররা দুর্দান্ত বোলিং করেছেন। বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে শুরু থেকেই পিছিয়ে পড়তে থাকে আইরিশ মেয়েরা। শেষ পর্যন্ত তারা জয়ের বন্দরের আর নাগাল পায়নি। ব্যাট হাতে আয়ারল্যান্ডের আরলিনে কেলি অপরাজিত ২৮ রান করেন। এছাড়া ম্যারি ওয়ার্ল্ডন ১৯, এইমেয়ার রিচার্ডসন ১৮, কারা মারি ১৩ ও অধিনায়ক লরা ডিলানি ১২ রান করেন।

বল হাতে বাংলাদেশে রুমানা আহমেদ ২৪ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নেন। ২টি করে উইকেট নেন সানজিদা আক্তার মেঘলা, নাহিদা আক্তার ও সোহেলি আক্তার।

তার আগে ব্যাট করতে নেমে ২৩ রানে প্রথম ও ৪৭ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায় লাল-সবুজের জার্সিধারীরা। এরপর দলের হাল ধরেন ফারাজানা হক ও রুমানা আহমেদ। তৃতীয় উইকেটে তারা দুজন ৪৯ রান তোলেন।

১৬তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ৯৬ রানের মাথায় রুমানা ২০ বলে ২ চারে ২১ রান করে আউট হন। পরের ওভারে দলীয় ১০১ রানের মাথায় ফেরেন ফারজানাও। তিনি ৫৫ বল খেলে ৭ চারে করেন সর্বোচ্চ ৬১ রান।

এরপর দ্রুত আরও ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ৯৬ থেকে ১২০ রানে যেতে উইকেট হারায় ৬টি। রান আসে ২৪টি। ফারাজানা ও রুমানা ছাড়া বাকিদের রান ছিল ৬,৬,৬,৯,৪,০,৩। বাংলাদেশের পুরো ইনিংসে কোনো ছক্কার মার ছিল না। সব মিলিয়ে বাউন্ডারি হয় ১০টি।

বল হাতে আয়ারল্যান্ডের লরা ডিলানি ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নেন। কারা মুরারি ২১ রান দিয়ে ২টি ও আরলিনে কেলি ৪ ওভারে ১ মেডেনসহ ১৭ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট।

এর আগে সেমিফাইনালে থাইল্যান্ডকে ১১ রানে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূলপর্বের টিকিট নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। আজ জিতে বাছাইপর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েই বিশ্বকাপে গেল সালমা-রুমানারা।

এর আগে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে বাছাইপর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়ে বিশ্বকাপ খেলেছিল বাংলার মেয়েরা। এছাড়া ২০১৪ সালে স্বাগতিক হিসেবে ও ২০১৫ সালে বাছাইপর্বে রানার্স-আপ হয়ে খেলেছিল বিশ্বকাপে।

ঢাকা/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়