ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ১১ ১৪৩১

চমকে চোখ অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৩৩, ৪ মার্চ ২০২৩  
চমকে চোখ অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চলছে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিডিসিএল) দল বদলের শেষ দিনের কার্যক্রম। ঢাকা লিগের অন্য দলগুলো যখন ব্যস্ত অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব ঘাম ঝরানো শুরু করে দিয়েছে অনুশীলনের জন্য।

প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন হয়ে ৫ বছর পর প্রিমিয়ায়র লিগে উঠে আসা অগ্রণীর তাড়ণা দেখলেই স্পষ্ট তারা এবার নিজেদের সেরাটা দেখাতেই এসেছে। দলটির কোচ আনওয়ার হোসেন চৌধুরীর সঙ্গে শনিবার যখন মুঠোফোনে কথা হচ্ছিল তখনো ফাঁকে ফাঁকে শিষ্যদের দিক নির্দেশনা দিচ্ছিলেন তিনি।

দল বদলের প্রথম দিন দল গোছানর কাজ প্রায় সেরে ফেলেছে অগ্রণী। তাই অনুশীলনে নামতে কোনো জটিলতা হয়নি। জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাদমান ইসলাম অনিক, ঘরোয়া ক্রিকেটের চেনামুখ জহুরুল ইসলাম অমি, মার্শাল আইয়ুব, আরাফাত সানি-ইলিয়াস সানিদের নিয়ে এবার দল গঠন করেছে অগ্রণী। বিদেশি হিসেবে খেলবেন ভারতের মহারাষ্ট্রের অলরাউন্ডার আজিম কাজী।

‘অন্য ক্লাবগুলো যখন দল গোছাতে ব্যস্ত আর আপনারা অনুশীলনে’-এমন প্রশ্ন শেষ করার আগেই কেড়ে নেন আনওয়ার। জানান একদিন আগে থেকেই শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবে অনুশীলন করেছেন তারা। ১৫ মার্চ আসর শুরুর আগেই শিষ্যদের বোঝাপড়া হতে শুরু করে সবই যেন ঠিক থাকে, তাই দ্রুত অনুশীলনে ঝাঁপিয়ে পড়া। ২৮ বছর ধরে অগ্রণীর কোচ হিসেবে আছেন আনওয়ার। পাশাপাশি অগ্রণী ব্যাংকে চাকরিও করেছেন। গতবছর অবসরে গিয়ে এখন তিনি পুরোদস্তুর কোচ।

দলগঠনে কোন দিকে নজর ছিল? রাইজিংবিডিকে আনওয়ার বলেন, ‘জাতীয় দলে খেলেছে, ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করে এমন ক্রিকেটারদের আমরা নিয়েছি। কম্বিনেশন ঠিক রাখার চেষ্টা করেছি সব বিভাগে। আমরা তারকা ক্রিকেটারদের দিকে ঝুঁকিনি কারণ পুরো আসরজুড়ে তাদের পাওয়া যাবে না। যারা খেলতে পারবে পুরো টুর্নামেন্ট তাদের নিয়েছি।’

১৯৯৫ সালে অগ্রণীর কোচ হওয়া আনওয়ার এই ক্লাবেই ক্রিকেট খেলেছেন ১৯৮১ সাল থেকে। এই ক্লাবটি যেন তার রক্তে মিশে আছে। সেরাটা নিংড়ে দিতে মরিয়া। এবারের লক্ষ্য নিয়ে প্রশ্ন করতেই আনওয়ার জানান, ‘আমাদের অবশ্য বড় একটা লক্ষ্য আছে তবে এখন সেটা প্রকাশ করব না।’ সেটা কি চ্যাম্পিয়ন হওয়া? তখন তিনি উদাহরণ দেন, ‘গতবার যে শেখ জামাল চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল কেউতো ভাবেনি (হাসি)।’ প্রকাশ না করলেও আকারে ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দিয়েছেন চ্যাম্পিয়নশিপের জন্যই লড়বেন তারা।

একই সুর ক্রিকেটার জহুরুল ইসলাম অমির কণ্ঠে, ‘আমাদের টিম কম্বিনেশন ভালো, ব্যাটিংয়ে মিডল অর্ডারে কিছুটা ঘাটতি ছিল, বিদেশি ক্রিকেটার আসলে আর থাকবে না। দল অনুযায়ী আমাদের সুপার লিগে খেলার কথা, মাঠে যদি আমরা পারফর্ম করতে পারি আরও ভালো কিছু হবে।’

স্পিনার আরাফাত সানি বলেন, ‘শেষ বছর যারা প্রিমিয়ার লিগে পারফর্ম করেছে তারা এই টিমে আছে। তারা যদি সেরাটা দিতে পারে আমরা সুপার লিগ খেলার আশা রাখি। এটা যদি হয় তাহলে চমকের থেকে বড় কিছু হবে ক্লাবের জন্য।’

ক্লাব থেকে সবধরণের সুযোগ সুবিধা দেওয়া হচ্ছে ক্রিকেটারদের। ফিজিও-ট্রেনার হতে শুরু করে সববিভাগেই আছে বিশেষজ্ঞ। কোনো ধরনের কমতি রাখতে চাইছে না কতৃপক্ষ। নিশ্চিন্তে থেকে মাঠে যেন ঠিকভাবে পারফরম্যান্স করতে পারেন ক্রিকেটারা সেই ব্যবস্থাই করছে ক্লাব।

ম্যানেজার মামুন উর-রশিদ রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আমরা প্রতিটি বিভাগে বিশেষজ্ঞ রেখেছি, কোনো কিছুর অভাববোধ যাতে ক্রিকেটাররা না করে। আমাদের চাওয়া মাঠের পারফরম্যান্স যেন ঠিক থাকে। আমরা যাদের নিয়েছি আশা করছি ভালো কিছু হবে।’

স্বাধীনতার পূর্ব থেকেই তারা ক্রিকেটের সঙ্গে জড়িত। স্বাধীনতার পর কমার্স ব্যাংক-হাবিব ব্যাংক মিলে রাষ্ট্রীয় বাণিজ্যিক ব্যাংক হিসেবে গঠিত হয় অগ্রণী ব্যাংক। তখন থেকেই নাম বদলে হয় অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। মামুন জানান প্রিমিয়ার লিগ বলেই নয়, তারা প্রথম বিভাগে থাকার সময়েও ক্রিকেটারদের সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার চেষ্টা করা হতো।

প্রথম বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়ে উঠে আসা ক্লাবটির চাওয়া প্রিমিয়ার লিগে ভালো কিছু করে ধারাবাহিকতা ধরে রাখা। কর্মকর্তা-কোচ হতে শুরু করে ক্রিকেটারদের শরীরি ভাষাও তাই বলছে।

অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব:
সাদমান ইসলাম, আবু হায়দার রনি, শরিফুল্লাহ, মিনহাজুর রহমান, শামসুল ইসলাম, নুরুজ্জামান, আসাদুজ্জামান পায়েল, এনামুল হক, আজমীর আহমেদ, মোহাম্মদ ইলিয়াস, আরাফাত সানি, মার্শাল আইউব, শহীদুল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম ও আজিম কাজী (ভারত)।

ঢাকা/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়