ঢাকা     বুধবার   ১৯ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৫ ১৪৩১

৪৩৩ রানের ম্যাচে ৭ রানে হারলো দক্ষিণ আফ্রিকা

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:২৭, ২৯ মার্চ ২০২৩   আপডেট: ১২:২৯, ২৯ মার্চ ২০২৩
৪৩৩ রানের ম্যাচে ৭ রানে হারলো দক্ষিণ আফ্রিকা

দক্ষিণ আফ্রিকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে রানবন্যা বয়ে গেল। বৃষ্টির কারণে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ১১ ওভারে ১৩১ রান করে ৩ উইকেটে হার মানে প্রোটিয়ারা। এরপর রেকর্ড ৫১৭ রানের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে তারা জয় পায় ৬ উইকেটে। কম যায়নি তৃতীয় ম্যাচটিও। এদিন হয় ৪৩৩ রান। এই রানের ম্যাচে স্বাগতিকরা হার মেনেছে মাত্র ৭ রানে।

জোহানেসবার্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজ আগে ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে ২২০ রান সংগ্রহ করে। জবাবে ৬ উইকেট হারিয়ে ২১৩ রানে থামে প্রোটিয়ারা। ৭ রানের জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতে নিলো ক্যারিবিয়ানরা।

আগে ব্যাট করতে নেমে ১০.২ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১১০ তোলা উইন্ডিজের রান বাকি ৯.৪ ওভারে ২২০ এ নিয়ে যান রোমারিও শেফার্ড। তিনি নয় নম্বরে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ২২ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় অপরাজিত ৪৪ রান করেন। এছাড়া নিকোলাস পুরান ১৯ বলে ২ চার ও ৪ ছক্কায় ৪১ রান করেন। ব্রান্ডন কিং ৪ চার ও ২ ছক্কায় ৩৬ ও রেমন রেইফার ১ চার ও ২ ছক্কায় ২৭ রান করেন। তাতে ২২০ রানের বড় সংগ্রহ পায় সফরকারীরা।

উইন্ডিজের ইনিংসে মোট বাউন্ডারি ও ওভার বাউন্ডারি হয় ২৯টি। তার মধ্যে ছক্কা ১৬টি, চার ১৩টি।

বল হাতে দক্ষিণ আফ্রিকার লুঙ্গি এনগিদি, কাগিসু রাবাদা ও অ্যানরিখ নরকিয়া ২টি করে উইকেট নেন।

রান তাড়া করতে নেমে ৩২ রানের মাথায় আগের ম্যাচে ঝড় তুলে প্রোটিয়াদের জেতানো কুইন্টন ডি কক আউট হন ২১ বলে ২১ রান করে। সেখান থেকে রেজা হেনড্রিকস ও রাইলি রুশো ৩৯ বলে ৮০ রান তুলে ম্যাচ জমিয়ে তোলেন। তাদের দুজনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১০.৫ ওভারেই দক্ষিণ আফ্রিকা ১১২ রান তুলে ফেলে।

এই রানে রুশো আউট হন ২১ বলে ৪ চার ও ৩ ছক্কায় ৪২ রান করে। ১৪৯ রানের মাথায় ডেভিড মিলার ১১ বলে ১১ রান করে আউট হলে কিছুটা পিছিয়ে যায় প্রোটিয়ারা। কিন্তু আশা দেখাচ্ছিলেন রেজা। দলীয় ১৮৬ রানের মাথায় তিনি আউট হন ৪৪ বলে ১১টি চার ও ২ ছক্কায় ৮৩ রান করে।

এরপর শেষ দিকে এইডেন মার্করাম ঝড় তুলে দলীয় সংগ্রহ ২১৩ পর্যন্ত নিয়ে গিয়ে থামেন। তিনি মাত্র ১৮ বলে করেন অপরাজিত ৩৫ রান।

বল হাতে ৪ ওভারে ৪০ রান নিয়ে ৫ উইকেট নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকাকে জিততে দেননি আলজারি জোসেফ। ব্যাট হাতে অপরাজিত ১৪ ও বল হাতে ফাইফার নিয়ে ম্যাচসেরা হন তিনি। আর তিন ম্যাচের সিরিজে ১৪৬ রান করে সিরিজ সেরা হন জনসন চার্লস। যিনি আগের ম্যাচে ৪৬ বলে ১১৮ রান করেছিলেন।

ঢাকা/আমিনুল

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়