ঢাকা     সোমবার   ১৭ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৩ ১৪৩১

ভারতের হারের ‘চার’ কারণ

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:৩০, ২০ নভেম্বর ২০২৩   আপডেট: ১২:৫৮, ২০ নভেম্বর ২০২৩
ভারতের হারের ‘চার’ কারণ

নিজেদের মাটিতে সদ্য সমাপ্ত আসরে টানা ১০ ম্যাচ জিতে ফাইনালের মঞ্চে পা রেখেছিল ভারত। ফাইনালেও তাদের কাছে উড়ন্ত পারফরম্যান্স আশা করেছিল সবাই। কিন্তু দেশবাসীর আশায় জল ঢেলে দিয়েছেন রোহিত শর্মা-বিরাট কোহলিরা। রোববার (১৯ নভেম্বর) নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে ভারতকে ৬ উইকেটে হারিয়ে ষষ্ঠ শিরোপা জিতে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। 

আসরজুড়ে দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলা ভারত কেন ফাইনালে এসে এভাবে মুখ থুবড়ে পড়লো? কেন অজিদের বিরুদ্ধে কোনোরকম প্রতিরোধই গড়ে তুলতে পারলো না? এরকম নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে চারদিকে। মূলত ফাইনালে ভারতের রান আড়াইশ’র আগে থেমে যাওয়াতেই এই পরাজয়। রোহিতদের হারের এমন আরও চারটি কারণ দেখে নেওয়া যাক।

১।পরিকল্পনাহীন ব্যাটিং
ব্যাটিংয়ে প্রতিটি দলই নির্দিষ্ট পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নামে। ফাইনালে ভারতের কাছ থেকেও সেটা প্রত্যাশিত ছিল। কিন্তু কনরকম ব্যাকআপ পরিকল্পনা বা প্ল্যান বি রাখেনি আসরে টানা দশ ম্যাচ জেতা ভারত। আগের ম্যাচগুলোতে একটা ব্যাপার চোখে পড়েছিল, ব্যাটিংয়ে নেমে ক্রিজে দুই ওপেনার থাকার সময় একজন ধরে খেলছিলেন, আর একজন আক্রমণ করছিলেন। কেউ আউট হলে নতুন যিনি নামছিলেন তিনি ধরে খেলছিলেন, অপরজন মারছিলেন। কিন্তু ফাইনালে এই পরিকল্পনার ছিটেফোটাও দেখা যায়নি ভারতের ব্যাটিংয়ে।

২। বড় জুটি না হওয়া
ভারতের হারের মূল কারণ উইকেট ধরে রাখতে না পারা। মাঝখানে তেমন ভালো কোনো জুটি গড়তে পারেনি ভারত।  পুরো ইনিংসে মাত্র একটি পঞ্চাশোর্ধ জুটি ছিল, যেটি গড়েছিলেন বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুল। দুজন মিলে ১৮ ওভারের বেশি সময় উইকেটে ছিলেন, যে সময়ে বাউন্ডারি এসেছে মাত্র একটি।

এই জুটি ভাঙার পর আর কোনো উল্লেখযোগ্য জুটি গড়তে পারেনি ভারত। ভারতের ব্যাটারদের লক্ষ্য ছিল উইকেটে সেট হওয়া। সেটা করতে গিয়ে একের পর এক ওভার খরচ করে গেছেন রাহুল-জাদেজারা। তাতে চাপ বেড়ে যাওয়াটাই স্বাভাবিক। আর এই চাপ থেকে বের হতে গিয়েই উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে এসেছে স্বাগতিকরা। এর ফলে ভারত অস্ট্রেলিয়ার সামনে চ্যালেঞ্জিং স্কোর দাঁড় করাতে পারেনি। 

৩। ভুল শট নির্বাচন:
ফাইনালে ভারতের হারের আরেকটি কারণ ভুল শট নির্বাচন। একজন খেলোয়াড় যদি সেট হয়ে যায়, তাকে রান পেতে সোজা ব্যাটে খেলতে হবে। এখানে সেট হয়েও ভারতীয় ব্যাটাররা হাত খুলে খেলতে পারেননি। এই সুযোগে অ্যাটাকিং ফিল্ড সেটআপে দক্ষতা দেখিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। যার ফলে রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলি ভালো শুরুর পরও ইনিংস বড় করতে পারেননি। এক্ষেত্রে দক্ষতা দেখিয়েছেন ত্রাভিস হেড। সেট হয়ে ম্যাচ বের করে নিয়েছেন তিনি।

৪। দুর্বল ফিল্ডিং এবং অতিরিক্ত রান দেওয়া
ভারতের হারের আরেকটি কারণ ফাইনালে তাদের ফিল্ডিং ও বোলারদের অতিরিক্ত রান দেওয়া। ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া ফিল্ডিং দিয়েই ভারতের কমপক্ষে ৫০ রান আটকে দিয়েছে। যে কারণে ভারত প্রায় ২০ ওভার পর্যন্ত কোনো বাউন্ডারি পায়নি। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার ফিল্ডিংয়ের ছিটেফোটাও দেখাতে পারেনি রোহিত শর্মার দল।

বাজে ফিল্ডিংয়ের পাশাপাশি বোলাররাও নিজেদের লাইন লেংথ ঠিক রাখতে পারেনি। অতিরিক্ত রান দেওয়ার পাশাপাশি বোলিংয়ে নৈপুণ্যতা দেখাতে পারেনি। অতিরিক্ত খাত থেকে অস্ট্রেলিয়া রান পেয়েছে ১৮। ২৪১ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে অতিরিক্ত খাত থেকে ১৮ রান মানেই বিরাট এডভান্টেজ। সেটারই সদ্ব্যবহার করে ইতিহাস গড়েছে অস্ট্রেলিয়া।

ঢাকা/বিজয়

সম্পর্কিত বিষয়:

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ