ঢাকা     বুধবার   ২৯ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪৩১

আবাহনীর জার্সিতে ১২ বছর, মোসাদ্দেকের কাছে গর্বের

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৫৬, ২৫ এপ্রিল ২০২৪  
আবাহনীর জার্সিতে ১২ বছর, মোসাদ্দেকের কাছে গর্বের

১৭১ রানের বিশাল জয় নিয়ে আবাহনী লিমিটেডের খেলোয়াড়রা তখন মাঠ ছাড়ছিল। ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের ঘটনা। হঠাৎ মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে মাঝে রেখে দুই পাশে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে গেলেন আকাশী-নীল জার্সিধারীরা। মোসাদ্দেককে তারা দিচ্ছেন গার্ড অব অনার।

বিশেষ কোনো অর্জন, অবসরে এমন গার্ড অব অনার দেওয়ার রীতি। মোসাদ্দেকের এই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এমন কোনো অর্জন নেই। তাহলে কি অবসর? বয়স আর কত-ই বা তার? ২৮ বছর ১৩৭ দিন! এই বয়সে অবসর? 

নাহ এমন কিছু ঘটেনি ফতুল্লায়। আবাহনীর জার্সিতে ২০১৩ সাল থেকে নিয়মিত খেলছেন মোসাদ্দেক হোসেন। কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের অত্যন্ত প্রিয় ছাত্র হিসেবে তার পরিচয়ও আছে। সেই মোসাদ্দেক ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটিকে কাটিয়ে দিলেন টানা এক যুগ। দুই পক্ষের যুগলবন্দী রাঙিয়ে রাখতে আবাহনী তাকে আজ সম্মানিত করেছে।

খেলোয়াড়রা গার্ড অব অনার দেওয়ার পর আবাহনীর অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত তাকে আবাহনীর ব্লেজার পরিয়ে দেন। এরপর লিটন দাস তার হাতে তুলে দেন ক্রেস্ট। কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের থেকে পেয়েছেন হ্যাট।

ঘরোয়া ক্রিকেটে এমন রীতি দেখা যায় না। সেখানে আবাহনী ব্যতিক্রম কিছু করে মোসাদ্দেককে সম্মানিত করেছে। আবাহনীর এমন সম্মানে অভিভূত মোসাদ্দেকও, ‘এটা আমার কাছে মনে হয় বড় একটি অর্জন। ফুটবল ক্লাবগুলোতে দেখা যায় একটা ক্লাবে অনেক বছর ধরে একজন খেলোয়াড় খেলে। বাংলাদেশের ক্রিকেটে এই বিষয়গুলো একটু কম আমার কাছে মনে হয়। আমি এজন্য আবাহনীকে ধন্যবাদ দিতে চাই আবাহনীকে যারা আমার ওপর বিশ্বাস রেখেছে লম্বা সময় ধরে। আমি অবশ্যই চাই আমার ক্যারিয়ারের পুরোটা সময় এখানেই শেষ করতে।’

২০১৩ সালে আবাহনীতে যোগ দেওয়ার পর হ্যাটট্রিক শিরোপার স্বাদ পেয়েছেন মোসাদ্দেক। এ ক্লাবে খেলেই পেয়েছেন জাতীয় দলের জার্সি। ক্যারিয়ারের উত্থান-পতনের সঙ্গী ধানমণ্ডি পাড়ার ক্লাবটি। সব মিলিয়ে ১০৯ ম্যাচ খেলেছেন আবাহনীর হয়ে। ৯৬ ইনিংসে রান করেছেন ৩২৬২।

মোসাদ্দেক যোগ করেছেন, ‘এটা বড় অর্জন এবং গর্বের বিষয়। একটা দলে ১২ বছর ধরে খেলা। আমি যত বছর এখানে খেলেছি আমার মনে হয় আমি পুরো দায়িত্বটা নিয়েই খেলেছি। তারাও আমার ওপর সেই আস্থাটা রেখেছেন। আমি চেষ্টা করবো সেই প্রতিদান যেন আমরা দিতে পারি।’

এবারও শিরোপা জেতায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান তার। নিয়মিত অধিনায়ক শান্তর পরিবর্তে ৮ ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে সবকটিতে জিতিয়েছেন। পারফরম্যান্স আঁটসাঁট। ৬ ইনিংসে রান করেছেন ১৮১। গড় রান ৬০.৩৩। স্ট্রাইক রেট ১৩৭.১২।

ইয়াসিন/আমিনুল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়