ঢাকা     বুধবার   ১৯ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৫ ১৪৩১

বাংলাদেশকে হারিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাস

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৪০, ২১ মে ২০২৪   আপডেট: ০০:৫৯, ২২ মে ২০২৪
বাংলাদেশকে হারিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাস

স্কোর: যুক্তরাষ্ট্র ১৫৬/৫ (১৯.৩ ওভার),  বাংলাদেশ ১৫৩/৬ (২০ ওভার)

ফল: যুক্তরাষ্ট্র ৫ উইকেটে জয়ী। 

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যেকোনো ফরম্যাটে প্রথমবার বাংলাদেশের মুখোমুখি হয়ে দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার দুই দলের তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে বাংলাদেশকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে তারা। আগে ব্যাটিং করে বাংলাদেশ মাত্র ১৫৩ রান করে। জবাবে ৩ বল হাতে রেখে যুক্তরাষ্ট্র জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায়।

শেষ দিকে ঝড়ো ব্যাটিংয়ে দলের জয়ের কাজ সহজ করে দেন হারমীত সিং। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ১৩ বলে ৩৩ রান করেন ২ চার ও ৩ ছক্কায়। এছাড়া কোরি অ্যান্ডারসান ২৫ বলে ৩৪ রান করেন ২ ছক্কায়।তাদের ২৮ বলে ৬২ রানের জুটিতেই যুক্তরাষ্ট্রের জয় সহজ হয়ে যায়। 

বাংলাদেশের বোলাররা শুরুতে ও শেষে ভালো বোলিং করতে না পারলেও মাঝে ফিরে এসেছিল ভালোভাবে। কিন্তু ছন্দ ধরে রাখতে না পারায় ম্যাচ হেরেছে। 

১২ বলে ২৪ রান চাই যুক্তরাষ্ট্রের

ম্যাচ জমিয়ে তুলেছে যুক্তরাষ্ট্র। শেষ ২ ওভারে ৩১ রান তুলে বাংলাদেশকে ভয় দেখাচ্ছে স্বাগতিকরা। শেষ ১২ বলে ২৪ রান প্রয়োজন তাদের। বাংলাদেশকে প্রথমবার হারাতে পারবে কি যুক্তরাষ্ট্র? 

৩০ বলে ৬০ রান চাই যুক্তরাষ্ট্রের

ব্যাটিংয়ে শুরুতে যতটা ভালো ছিল যুক্তরাষ্ট্র, মাঝে পথ ভুলে ঠিক ততটাই তারা ব্যাকফুটে। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে বাংলাদেশ তাদের ব্যাটসম্যানদের উড়তে দিচ্ছে না। ম্যাচ জিততে শেষ ৩০ বলে ৬০ রান করতে হবে তাদের। ১৫৪ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১৫ ওভার শেষে যুক্তরাষ্ট্রের রান ৯৪। এখান থেকে ম্যাচ জেতা তাদের জন্য কঠিন। কারণ বোলিংয়ে বাংলাদেশ অনেকটাই গুছিয়ে উঠেছে। 

মোস্তাফিজের জোড়া উইকেটে স্বস্তি বাংলাদেশের

১২তম ওভারে বোলিং এসে শুরুটা ভালো ছিল না মোস্তাফিজের। প্রথম বলেই দেন বিশাল ওয়াইড। তবে ওই ওভারের শেষটা রাঙিয়েছেন জোড়া উইকেটে। তাতে স্বস্তি ফিরেছে বাংলাদেশের শিবিরে। দ্রুত ৩ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশ ম্যাচে ফিরেছে দারুণভাবে। ১২ ওভার শেষে যুক্তরাষ্ট্রের রান ৪ উইকেটে ৭৯।  

ওভারে মোস্তাফিজ প্রথমে ফেরান টেইলরকে। ২৯ বলে ২৮ রান করে মাহমুদউল্লাহর হাতে ক্যাচ দেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। এক বল পর অধিনায়ক শান্তর তালুবন্দি হন অ্যারন জোন্স। ১২ বলে ৪ রান করে ফেরেন তিনি। 

রিশাদ ভাঙলেন জুটি, ১০ ওভারে যুক্তরাষ্ট্র ৬৬/২

জুটি ভেঙে বাংলাদেশকে সাফল্য এনে দিলেন লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেন। তার বলে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে মিড উইকেটে ক্যাচ দেন অ্যান্ড্রিস গিউস। গ্রাউন্ডে মোস্তাফিজ ভালো ক্যাচ নেন। ১৮ বলে ৪ বাউন্ডারিতে ২৩ রান করেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। দ্বিতীয় উইকেটে টেইলরের সঙ্গে ৩৮ রানের জুটি গড়েছিলেন তিনি। ১০ ওভার শেষে যুক্তরাষ্ট্রের রান ২ উইকেটে ৬৬। জয়ের জন্য শেষ ১০ ওভারে ৮৮ রান করতে হবে তাদের। 

বাংলাদেশকে ভয় দেখাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

মামুলী লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দারুণ ব্যাটিং করছে যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশের বোলারদের কোনো সুযোগ না দিয়ে অনায়েসে রান তুলছে তারা। লক্ষ্যের পথে তারা ছুটছে। ৮ ওভার শেষে ১ উইকেট হারিয়ে স্বাগতিকদের রান ৬০। জয়ের জন্য ৭২ বলে ৯৪ রান প্রয়োজন তাদের।  

লক্ষ্য তাড়ায় যুক্তরাষ্ট্রের উড়ন্ত সূচনা

বাংলাদেশের দেওয়া ১৫৩ রানের লক্ষ্য তাড়ায় যুক্তরাষ্ট্র দারুণ শুরু পেয়েছে। ৩ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে ২৭ রান জমা করে তারা। আক্রমণাত্মক ও ইতিবাচক ব্যাটিংয়ে জবাব দিচ্ছে স্বাগতিক দল।

চতুর্থ ওভারে রান আউটে ভাঙে উদ্বোধনী জুটি। শরিফুলের বলে ব্যাটসম্যান ড্রাইভ করলে বল তার হাত ছুঁয়ে স্টাম্পে আঘাত করে। অপরপ্রান্তের ব্যাটসম্যান মোনাক পাটেল তখন ছিলেন ক্রিজের বাইরে। উদ্বোধনী জুটি ভাঙলেও পাওয়ার প্লে’তে দারুণ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ৬ ওভারে তাদের রান ৪৩। 

তাওহীদের ফিফটিতে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১৫৩

টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে লক্ষ্য নাগালে রাখল যুক্তরাষ্ট্র। শেষ দিকে এলোমেলো বোলিং করলেও শুরুতে ও মাঝে তাদের আক্রমণ ছিল নিয়ন্ত্রিত। শেষ দিকে কিছু রান হলেও লক্ষ্য বেশিদূর যায়নি। ২০ ওভারে তাদের জয়ের জন্য করতে হবে ১৫৪ রান।

তাওহীদ হৃদয়ের ফিফটিতে বাংলাদেশ মুখ রক্ষা করার মতো স্কোর পেয়েছে। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৭ বলে ৫৮ রান করেছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ইনিংসের শেষ বলে আউট হওয়ার আগে ৪টি চার ও ২ ছক্কা মারেন তাওহীদ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩১ রান করেন মাহমুদউল্লাহ। ২২ বলে ইনিংসটি সাজান ২ চার ও ১ ছক্কায়। এছাড়া বাকিরা কেউই ভালো করতে পারেননি। শেষ দিকে ৫ বলে ২ চারে ৯ রান করে অবদান রাখেন জাকের আলী।  

ধীর গতির উইকেটে স্টিভেন ৩ ওভারে ৯ রানে ২ উইকেট নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সেরা বোলার। 

১৫ ওভারে শতরান পেরিয়ে বাংলাদেশ

১৪.৫ ওভারে দলীয় শতরান পেরিয়েছে বাংলাদেশ। এর আগে ৬.৬ ওভারে দলীয় পঞ্চাশ পায় যুক্তরাষ্ট্রের আমন্ত্রণে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশ। 

রান আউট হয়ে ড্রেসিংরুমে সাকিব

ধীর গতির উইকেটে রান পেতে রীতিমত ভুগছেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। সাকিব আল হাসান চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে ফিরেছেন ড্রেসিংরুমে। তাওহীদ হৃদয়ের ডাকে সাড়া দিয়ে উইকেটের মাঝে চলে গেলেও তাওহীদ জায়গা থেকে নড়েনি। ফেরার সুযোগ না থাকায় হাল ছেড়ে দেন সাকিব। ১২ বলে মাত্র ৬ রানে থেমে যায় তার ইনিংস। 

দলকে ভুগিয়ে শান্ত আউট

ব্যাটে-বলে টাইমিং একদমই হচ্ছিল না। রান পেতে ভুগছিলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। বিপদে পড়া দলকে উদ্ধার করার দায়িত্ব ছিল তার। উল্টো দলকে ভুগিয়ে শান্ত ফিরলেন ড্রেসিংরুমে। ১১ বলে ৩ রান করেছেন তিনি।

অষ্টম ওভারে অফস্পিনার টেইলরের বল এগিয়ে এসে উড়াতে গিয়ে স্টাম্পড হন। শুরুতে সহজ ক্যাচ ছেড়ে উইকেট রক্ষক মোনাক হতাশ করেছিলেন সবাইকে। এবার স্টাম্পিং মিস করেননি যুক্তরাষ্ট্রের অধিনায়ক। উইকেটে নতুন ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসান। 

ওপেনারদ্বয় ব্যর্থ, পাওয়ার প্লে’তে নড়বড়ে বাংলাদেশ

১৫ বলে ১৪ রান। যেখানে রয়েছে ১টি করে চার ও ছক্কা। তবুও স্ট্রাইক রেট একশর নিচে। দুটি স্কোরিং শট ছাড়া লিটন দাশ নিজের একাদশে ফেরার ম্যাচে চরম বিপর্যয়ে। জীবনও পেয়েছেন দুইবার। উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে বেঁচে যাওয়ার পর রান আউট থেকেও রক্ষা পান। যুক্তরাষ্ট্রে সফরের শুরুটা একদমই ভালো হলো না ডানহাতি ব্যাটসম্যানের। 

এদিকে দৃষ্টিনন্দন কয়েকটি শটে সৌম্য আশার আলো দেখিয়েছিলেন। মনে হচ্ছিল বড় একটি ইনিংস তার ব্যাট থেকে আসবে। কিন্তু সঙ্গী হারানোর পর তার পথ ধরেন সৌম্য। পাওয়ার প্লে’র শেষ ওভারে স্টিভেন টেইলর বোলিংয়ে এসে প্রথম বলেই তুলে নেন সৌম্যর উইকেট। স্লগ সুইপ করতে গিয়ে মিড উইকেটে ক্যাচ দেন সৌম্য। ১৩ বলে ২০ রানে থেমে যায় তার ইনিংস। ৩টি বাউন্ডারি পেয়েছেন বাঁহাতি ওপেনার। 

৫ বলের ব্যবধানে ২ ওপেনারকে হারিয়ে বিপদে বাংলাদেশ। উইকেটে নতুন দুই ব্যাটসম্যান শান্ত ও তাওহীদ। ৬ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ কেবল ৩৭। 

শুরুতেই জীবন পেলেন লিটন

যুক্তরাষ্ট্রের পেসার আলী খানের করা দ্বিতীয় ওভারে জীবন পেলেন লিটন দাশ। উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছিলেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের অধিনায়ক ও উইকেট রক্ষক মোনাক পাটেল বল গ্লাভসবন্দী করতে পারেননি।

অফফর্মের কারণে দল থেকে বাদ পড়ার পর এই ম্যাচ দিয়ে একাদশে ফিরেছেন লিটন। কিন্তু ২ রানে আলগা শটে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন। তৃতীয় ওভারে দৃষ্টিনন্দন এক শটে বোলারের মাথার ওপর দিয়ে ছক্কা হাঁকান তিনি। মনে হচ্ছিল এবার থিতু হতে পারবেন। কিন্তু ৮ রানে সৌম্য সরকারের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে নিশ্চিত রান আউট থেকে বেঁচে যান। কাভার থেকে ফিল্ডারের সরাসরি থ্রো স্টাম্পে আঘাত করলে থেমে যেত লিটনের ইনিংস।

প্রথমে ক্যাচ মিস, এরপর রান আউট। দুইবার বেঁচে গিয়েও সুযোগটি লিটন কাজে লাগাতে পারেন কিনা সেটাই দেখার। 

যুক্তরাষ্ট্রের আমন্ত্রণে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলছে বাংলাদেশ।

হিউস্টনের প্রেইরি ভিউ ক্রিকেট কমপ্লেক্সে আজ মঙ্গলবার (২১ মে, ২০২৪) প্রথম ম্যাচ শুরু হয়েছে বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায়। এরই মধ্যে টস সম্পন্ন হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের অধিনায়ক মোনাক পাটেল টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে এটাই যেকোনো ফরম্যাটে বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক লড়াই। প্রীতি ম্যাচেও দুই দল কখনো মুখোমুখি হয়নি। তাই ম্যাচটাকে ঘিরে বাড়তি উন্মাদনা বিরাজ করছে।

যেকোনো বৈশ্বিক প্রতিযোগিতার আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ক্রিকেটারদের প্রস্তুতির জন্য সিরিজ কিংবা ক্যাম্পের আয়োজন করে। উপমহাদেশের বাইরে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে এই ক্যাম্প বেশ কাজে দেয়। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের যৌথ আয়োজক যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বিশ্বকাপের ৫৫টি ম্যাচ দুই দেশের নয়টি শহরে অনুষ্ঠিত হবে। যুক্তরাষ্ট্রের তিনটি এবং ক্যারিবিয়ানের ছয়টি।

সেরা প্রস্তুতি দিতে তাই যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজ খেলছে বাংলাদেশ। ম্যাচের ফল কতটা প্রভাব রাখবে তা বলা মুশকিল। তবে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে তিনটি ম্যাচ বেশ গুরুত্বপূর্ণ বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের জন্য। দ্বিপক্ষীয় এই সিরিজের পর যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে আইসিসির আয়োজনে প্রস্তুতি ম্যাচও খেলবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের গ্রুপপর্বের চারটি ম্যাচের দুটি খেলবে যুক্তরাষ্ট্রে, দুটি ও ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ডালাসে খেলার পর বাংলাদেশ দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে নিউ ইয়র্কে। পরের দুই ম্যাচ সেন্ট ভিনসেন্টে নেদারল্যান্ডস ও নেপালের বিপক্ষে যথাক্রমে ১৩ ও ১৭ জুন।

বাংলাদেশ একাদশ:
নাজমুল হোসেন শান্ত, লিটন দাশ, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, তাওহীদ হৃদয়, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, জাকের আলী অনিক, মাহেদী হাসান, রিশাদ হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান ও শরিফুল ইসলাম।

যুক্তরাষ্ট্র একাদশ:
মোনাক পাটেল, অ্যারন জোন্স, অ্যান্ড্রিস গিউস, কোরি অ্যান্ডারসন, মোহাম্মদ আলী খান, হারমীত সিং, জাসদ্বীপ সিং, নিতিশ কুমার, নসতুশ কেনজিগে, সৌরভ নেটরাভালকার ও স্টিভেন টেইলর।

ইয়াসিন/আমিনুল

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়