ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ৮ ১৪৩১

স্কটল্যান্ডের জয়ে চাপে ইংল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০১:৫৯, ১০ জুন ২০২৪   আপডেট: ০২:১৫, ১০ জুন ২০২৪
স্কটল্যান্ডের জয়ে চাপে ইংল্যান্ড

দুই পরাজয় নিয়ে আগেই খাদের কিনারায় ছিল ওমান। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেলে এবং শেষ ম্যাচেও জিতলে সুপার এইটে যাওয়ার আশা কিছুটা থাকত ওমানের। কিন্তু অ্যান্টিগায় স্কটল্যান্ডের দাপুটে জয়ে ওমান বিশ্বকাপের প্রথম দল হিসেবে বিদায় নিল এক ম্যাচ আগে।

টানা তিন ম্যাচেই হারল তারা। শেষ ম্যাচ জিতলেও কোনো লাভ হচ্ছে না। এদিকে বিশ্বকাপে তিন ম্যাচ খেলে এখন পর্যন্ত অপরাজিত স্কটল্যান্ড। নামিবিয়াকে হারানোর পর টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে তারা। প্রথম ম্যাচ তারা ইংল্যান্ডের সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে। ৫ পয়েন্ট নিয়ে বি গ্রুপে তারা শীর্ষে।

ওমানকে হারিয়ে ২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উঠায় চাপে পড়ে গেল টুর্নামেন্টের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। ২ ম্যাচ খেললেও এখনও জয়ের খাতা খোলেনি। বৃষ্টিতে পেয়েছে কেবল ১ পয়েন্ট। শেষ দুই ম্যাচ জিতলেও ইংলিশদের পয়েন্ট হবে ৫। অন্যদিকে টানা দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে অস্ট্রেলিয়া এখন দুই নম্বরে। তাদেরও বাকি ২ ম্যাচ। প্রত্যাশিত ফল ফেলে স্কটল্যান্ডের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়াই যাবে সুপার এইটে। কারণ দুই দলেরই রান রেট বেশ শক্তিশালী। এই গ্রুপ থেকে সুপার এইটে যেতে ইংল্যান্ডকে কঠিন পথ পাড়ি দিতে হবে।

রোববার অ্যান্টিগায় ওমানকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে স্কটল্যান্ড। আগে ব্যাটিং করতে নেমে ওমান ৭ উইকেটে ১৫০ রান করে। জবাবে স্কটল্যান্ড ৪১ বল হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায়। 

ব্যাটিংয়ে স্কটল্যান্ড ছিলো দুর্দান্ত। ওমানের বোলারদের মাথা তুলে দাঁড়ানোর সুযোগই দেননি। ২১ রানে উদ্বোধনী জুটি ভাঙার পর দ্বিতীয় উইকেটে জর্জ মুনসে ও ব্রেন্ডন মুলেন ২৯ বলে ৬৫ রানের জুটি গড়েন। তাদের প্রতি আক্রমণেই ওমান ম্যাচ থেকে ছিটকে যায়।

বাঁহাতি মুনসে ২০ বলে ৪১ রান করেন ২ চার ও ৪ ছক্কায়। স্ট্রাইক রেট ছিল ২০৫। ৯ রানের জন্য ফিফটি মিস করলেও তার সঙ্গী ব্রেন্ডন ৬১ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়েন। তার ইনিংসটি ছিল দুইশ ছুঁইছুঁই স্ট্রাইকরেটে সাজানো। ৩১ বলে ৬১ রান করেন ৯ চার ও ২ ছক্কায়।

এছাড়া অধিনায়ক রিচি বেরিংটন ১৩ ও ম্যাথু ক্রস ১৫ রান করে রাখেন অবদান। তাতে স্কটল্যান্ড মাঝারি মানের লক্ষ্য বেশ দাপটের সঙ্গে ছুঁয়ে ফেলে। ওমানের হয়ে বিলাল খান, আকিব ইলিয়াস ও মেহরান খান ১টি করে উইকেট নেন। 

এর আগে টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে ওমানের ব্যাটিং ছিল ছন্দহীন। ইনিংসের শুরুতে ওপেনার পাথিবা আকাভে রান পেয়েছেন। মিডল অর্ডারে কেউ হাল ধরতে পারেনি। শেষ দিকে নেমে আয়ান খান রান তুলে দলের মান বাঁচান। এই দুই ব্যাটসম্যান বাদে কেউই দায়িত্ব পালন করতে পারেননি। 

পাথিবা ৪০ বলে ৫৪ রান করেন ৫ চার ও ২ ছক্কায়। উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান তুলে নেন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের প্রথম ফিফটি। আয়ান ৩৯ বলে ৪১ রান করেন ৪ বাউন্ডারিতে। তার শেষের অবদানেই ওমান বলার মতো স্কোর পায়।

স্কটল্যান্ডের সেরা বোলার সাফইয়ান শরিফ। ৪০ রানে ২ উইকেট নেন তিনি।

লক্ষ্য তাড়ায় দ্রুত গতিতে ব্যাটিং করে ফিফটি পাওয়া ব্রেন্ডন মুলেন পেয়েছেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার।  

 
 

 

ঢাকা/ইয়াসিন

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়