ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

কিস্তিতে মার্সেল ফ্রিজ কিনে আরেকটি ফ্রি পেলেন পূর্ণিমা

মোহাম্মদ মাসুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৫-০৬ ৬:২০:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৫-০৬ ৬:২৮:০৭ পিএম
মার্সেল ফ্রিজ কিনে উপহার পাওয়া আরেকটি ফ্রিজ বুঝে নেন পূর্ণিমা রানী বিশ্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক : কেউ কিস্তিতে কোনো পণ্য কিনে তাতে উপহার পেয়েছেন-এমন ঘটনা জীবনে কোনদিন দেখিনি। শুনিওনি। অথচ, কিস্তিতে মার্সেলের একটি ফ্রিজ কিনে আমিই কি না উপহার পেয়েছি আরেকটি ফ্রিজ। নিজের জীবনে এমনটা ঘটবে বলে কোনদিনও ভাবিনি। তাই, অপ্রত্যাশিত এই উপহার পেয়ে পুরোপুরি অবাক হয়ে যাই।

কিস্তিতে দেশীয় ব্র্যান্ড মার্সেলের একটি ফ্রিজ কেনার সুবাদে আরেকটি ফ্রিজ উপহার পাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা বলেন গোপালগঞ্জ জেলার মকসুদপুর থানার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের গৃহবধূ পূর্ণিমা রানী বিশ্বাস।

তিনি গত মাসের মাঝামাঝি সময়ে মকসুদপুরে মার্সেল পণ্যের পরিবেশক প্রতিষ্ঠান অনন্যা টেলিকম অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স থেকে ২৮ হাজার টাকা মূল্যের ১৪ সিএফটির একটি ফ্রিজ কিনেন কিস্তিতে। এরপর দেশব্যাপী চলমান মার্সেল ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের আওতায় ফ্রিজটি রেজিস্ট্রেশন করেন তিনি। রেজিস্ট্রেশন করার পর মার্সেলরই আরেকটি ৮ সিএফটির ফ্রিজ উপহার পান পূর্ণিমা রানী।

একই দিনে আশুলিয়ার বাইপাইলে চৌধুরী ট্রেডার্স থেকে ২৩ হাজার টাকা দিয়ে মার্সেলের একটি ফ্রিজ কিনে ২০ ইঞ্চি বুমবক্স টিভি ফ্রি পেয়েছেন এরশাদ।

মার্সেল ফ্রিজ কিনে আরেকটি ফ্রিজ ফ্রি পাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় পূর্ণিমা রানী বিশ্বাস বলেন, সাধারণত অনেক কোম্পানির পণ্য কেনার ক্ষেত্রে কিস্তি সুবিধা পাওয়া যায় না। আবার কিছু কিছু কোম্পানির পণ্যে কিস্তি সুবিধা থাকলেও ক্রেতাকে বিভিন্ন কাগজপত্র ও জিম্মাদার প্রদানসহ অনেক ঝামেলা পোহাতে হয়। তার ওপর কিস্তিতে কেনা সেসব পণ্যে উপহার পাওয়ার কথাতো চিন্তাই করা যায় না। কিন্তু, সহজ কিস্তিতে মার্সেলের ফ্রিজ কিনে উপহার পেলাম আরেকটি ফ্রিজ। প্রথমে যেন বিশ্বাসী করতে পারছিলাম না। কিন্তু, শোরুম থেকে উপহার পাওয়া ফ্রিজটি নিয়ে যাওয়ার কথা বলার পর বিশ্বাস করি। উপহারটি পেয়ে আমি পুরোপুরি অবাক। এজন্য মার্সেল কোম্পানিকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

 



মার্সেল ফ্রিজ কেনার কারণ প্রসঙ্গে তিনি জানান, প্রতিবেশী অনেকেই মার্সেল ফ্রিজ ব্যবহার করছেন। তাদের ফ্রিজগুলোতে বিদ্যুৎ খরচ অনেক কম। পাশাপাশি চলছেও ভালো। তাই নিজের পরিবারের জন্যও মার্সেল ফ্রিজ কিনেন তিনি।

পূর্ণিমা রানীর মতো আশুলিয়া বাইপাইলের বাসিন্দা এরশাদও মার্সেল ফ্রিজে ভালো সার্ভিস পাওয়ার কথা জানালেন। তিনি বলেন, ‘আমি যে বাসায় ভাড়া থাকি, সেখানকার সব পরিবারই মার্সেল ফ্রিজ ব্যবহার করছে। সেসব ফ্রিজ দেখতে যেমন সুন্দর, তেমনি চলছেও ভালো। দামেও কম। আবার বিদ্যুৎ বিলও তুলনামূলক কম আসে। তাই, আমিও মার্সেল ফ্রিজ কিনলাম। ফ্রিজ কিনে রেজিস্ট্রেশনের সুবাদে ২০ ইঞ্চি এলইডি টেলিভিশন উপহার দেয়ায় মার্সেলকে অনেক ধন্যবাদ।

মার্সেল সূত্রমতে, বিক্রয়োত্তর সেবা কার্যক্রম অনলাইনের আওতায় আনতে গত ১ এপ্রিল থেকে দেশব্যাপী আবারো ডিজিটাল ক্যাম্পেইন শুরু করেছে মার্সেল। ক্যাম্পেইনের আওতায় একজন ক্রেতা প্রতিবার মার্সেলের ফ্রিজ, টিভি কিম্বা এসি কিনে তা রেজিস্ট্রেশন করলেই পেতে পারেন আমেরিকা, রাশিয়া ভ্রমণের সুযোগ কিংবা মার্সেলেরই ফ্রিজ, টিভি ও এসি সম্পূর্ণ ফ্রি। তবে এসব সুযোগ না পেলেও, ক্রেতার জন্য রয়েছে সর্বোচ্চ এক হাজার টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত নগদ ছাড়।

ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের আওতায় গ্রীষ্মকালীন সময়ের জন্য মার্সেল ফ্রিজ ও এসিতে এবং বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষে মার্সেল টিভিতে এসব সুবিধা পাওয়া যাবে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৬ মে ২০১৮/একরাম হোসেন পলাশ/সাইফ

Walton Laptop
 
     
Walton