ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ আশ্বিন ১৪২৫, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

জেলা পরিষদের অফিস সহকারীকে ঘুষের টাকাসহ আটক করেছে দুদক

এম.শাহীন গোলদার : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৬-১২ ৫:৫১:৫৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৬-১২ ৬:১৫:৪৬ পিএম

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের অফিস সহকারী (ষাঁট লিপিকার) এ.কে.এম শাহিদুজ্জামানকে ঘুষের এক লাখ টাকাসহ আটক করেছে দুদক।

মঙ্গলবার সকালে জেলা পরিষদের অফিস কক্ষ থেকে তাকে ওই টাকাসহ আটক করা হয়।

এদিকে, দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ও ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাবুসহ পরিষদের সব সদস্য এক সংবাদ সম্মেলেনে ষাঁট লিপিকার এ.কে.এম শাহিদুজ্জামানকে পরিকল্পিতভাবে আটক করা হয়েছে বলে দাবি করেন। তারা বলেন, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী মাহবুবুর রহমানের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন তিনি।

খুলনা বিভাগীয় দুদকের পরিচালক ড. আবুল হাছান জানান, সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের প্রকল্প ছাড়করণে ঘুষ লেনদেনের অভিযোগ রয়েছে দীর্ঘদিনের। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দুদকের একটি টিম আজ (মঙ্গলবার) সকাল থেকে জেলা পরিষদ কার্যালয়ে ওঁৎপেতে বসেছিল। এক পর্যায়ে সদর উপজেলার দেবনগর রোকেয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উন্নয়নের বরাদ্দে টাকা বাড়ানোর জন্য ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মেহেদী হাসানের কাছ থেকে জেলা পরিষদের ষাঁট লিপিকার শাহিদুজ্জামান এক লাখ টাকা ঘুষ গ্রহণকালে দুদকের একটি টিম তাকে হাতেনাতে আটক করে।

তিনি আরো জানান, আটক শাহিদুজ্জামানের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

জেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাবু জানান, দুদক দাবি করছে অফিস সহকারীর কাছ থেকে ঘুষের এক লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। অথচ দুদক আমাদের কোনো টাকাই দেখাতে পারেননি। তিনি জানান, মিথ্যা হয়রানি করে আমাদের স্টাফকে আটক করা হয়েছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

তিনি আরো জানান, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী মাহবুবুর রহমানের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন শাহিদুজ্জামান।



রাইজিংবিডি/সাতক্ষীরা/১২ জুন ২০১৮/এম.শাহীন গোলদার/মুশফিক

Walton Laptop
 
     
Walton