ঢাকা, সোমবার, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

উদ্বোধনের ৬ বছরেও চালু হয়নি হাসপাতাল!

আল আমিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-১৪ ২:২৯:১২ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-১৪ ২:২৯:১২ পিএম

উদ্বোধনের ৬ বছর পেরিয়ে গেলেও চালু হয়নি সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার জগদল ২০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালের চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম। উদ্বোধনের পর থেকেই তালাবদ্ধ রয়েছে। অনেকটা ঢাক-ঢোল পিটিয়ে উদ্বোধন করা হলেও চিকিৎসক ও প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ না দেয়ায় চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন উপজেলার প্রায় লক্ষাধিক মানুষ।

অযত্ন আর অবহেলায় পড়ে নষ্ট হচ্ছে হাসপাতালের সুরম্য পাঁচটি ভবনসহ ভিতরে থাকা চিকিৎসা উপকরণ ও আসবাপত্র। সংশ্লিষ্টরা জানালেন, হাসপাতালটিতে চিকিৎসাসেবা চালু করতে জনবল নিয়োগের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠিসহ তাদের সাথে বারবার যোগাযোগ করা হচ্ছে। কিন্তু তা সম্ভব হচ্ছে না।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হাসপতালের মূল ফটকসহ পাঁচটি সুরম্য ভবনের সবকটি ফটকেই ঝুঁলছে তালা, অযত্ন ও অবহেলায় পড়ে নষ্ট হচ্ছে হাসপাতালের চিকিৎসা উপকরণসহ ভবনের ভিতরে থাকা আসবাবপত্র। ভবন থেকে খসে পড়ছে পলেস্তারা। মরিচা ধরেছে লোহার গ্রিলে। ভেঙে পড়েছে জানালার কাচ। ভবনের চারপাশে জমেছে ময়লা-আবর্জনা। কোনো নৈশপ্রহরী কিংবা স্টাফ না থাকায় হাসপতাল এখন গবাদি পশুর আশ্রয়স্থল হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে। এতে সেবা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন ইউনিয়নের ২৯টি গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ।

স্থানীয়রা জানান, ২০ শয্যা এই হাসপাতালটি অযত্ন আর অবহেলায় পরিত্যক্ত রয়েছে। পরিত্যক্ত থাকায় হাসপাতালটি স্থানীয় মাদক সেবনকারী আর জুয়াড়িদের আশ্রম হয়ে পড়েছে। সার্বক্ষণিক এখানে জুয়াড়ি আর মাদকসেবীদের আড্ডা থাকে। দ্রুত এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চালু করার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি দাবি জানান স্থানীয়রা।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০০৬ সালের ২১ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ব্যবস্থাপনায় ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে স্বাস্থ্য ও প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে দিরাই উপজেলার হাওর পাড়ের মানুষের উন্নত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে জগদল গ্রামে জগদল ২০ শয্যাবিশিষ্ট একটি আধুনিক হাসপাতালের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন ও নির্মাণকাজের উদ্বোধন করা হয়। নির্মাণকাজ শেষে ২০১৩ সালের ২৩ অক্টোবর প্রয়াত নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তসহ সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা হাসপাতালটির উদ্বোধন করেন। কিন্তু উদ্বোধনের ছয় বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো চিকিৎসাসেবা পায়নি স্থানীয়রা।

স্থানীয় জগদল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শিবলী আহমদ বেগ বলেন, ‘আমরা একাধিক বার কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেছি, কিন্তু কর্তৃপক্ষ লোকবলের অজুহাত দেখাচ্ছেন। এই হাসপাতালের কার্যক্রম চালু হলে হাওরের হত-দরিদ্র জনসাধারণসহ সবার চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত হবে। উপজেলা শহর থেকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন আমার ইউনিয়নের ৩৯টি গ্রামসহ আশপাশের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করণের লক্ষে কর্তৃপক্ষ দ্রুত এর কার্যক্রম শুরু করার দাবি জানান।’

এ ব্যাপারে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘জনবলের জন্য হাসপাতালটিতে চিকিৎসাসেবা চালু করা সম্ভব হচ্ছে না। জনবল তৈরির জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠিসহ তাদের সাথে বারবার যোগাযোগ করা হচ্ছে। স্থানীয় সংসদ সদস্যদের সাথে আলাপ করে দ্রুত হাসপাতালটি চালুর উদ্যোগ নেয়া হবে।’

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. শামছুদ্দিন আহমদ বলেন, ‘আমি নতুন যোগদান করেছি। এ ব্যাপারে আমি খোঁজখবর নিচ্ছি। আগামী শনিবারে এই হাসপাতাল পরিদর্শন করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলবো। যাতে দ্রুত এই হাসপাতালটি চালু এবং হাওর পাড়ের মানুষের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা যায়।’

 

সুনামগঞ্জ/মাহি

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : সুনামগঞ্জ, সিলেট বিভাগ

রাইজিংবিডি স্পেশাল ভিডিও