ঢাকা, বুধবার, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চায় অজিলা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-৩০ ৯:৫৩:০৪ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-৩০ ১২:২৩:৪৩ পিএম

অজিলা খাতুনের বয়স তিন বছর। মা-বাবা দুজনেই থাকেন ঢাকায়। অজিলা থাকে তার নানা-নানির কাছে।  সে এখনো দাঁড়াতে পারে না। দিনের বেশিরভাগ সময়ই কাটে বিছানায় শুয়ে, নানা-নানির কোলে ও বসে থেকে।

নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করেন নানা আয়ূব আলী। থাকেন কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমলা ওয়াবদা কলোনির সরকারি পরিত্যক্ত ভবনে। অজিলা ছাড়াও তার পরিবারে রয়েছে স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে। সংসার চালিয়ে অজিলার চিকিৎসার খরচ মেটাতে হিমশিত খেতে হচ্ছে আয়ূব আলীর।   

আয়ূব আলী বলেন, ‘জন্মের এক বছর পরেই অজিলাকে আমাদের কাছে রেখে ঢাকায় চলে যায় তার মা-বাবা।  মাঝে মাঝে এসে খোঁজ নেয়। বাচ্চাটা হাটতে পারে না। এমনকি উঠেও দাঁড়াতে পারে না। দুই পা খুব চিকন। পায়ে কোনো শক্তি নেই। এছাড়া, তার হাতের নখ, পায়ের নখ ও জিহবাতেও সমস্যা আছে।’

তিনি বলেন, ‘কুষ্টিয়া, রাজশাহী, ঢাকায় নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করানো হয়েছে অজিলাকে। চিকিৎসকরা তার অপারেশন করাতে বলেছেন। এতে খরচ হবে তিন লাখ টাকা। এতো টাকা আমার পক্ষে জোগাড় করা সম্ভব না। এমনিতেই এই করোনার সময়ে কাজ নেই। সংসার ঠিক মতো চালাতো পারছি না। কেউ আমার নাতনির চিকিৎসার জন্য একটু সাহায্য করলে ও ভালো হয়ে যেতো।’

নানি খাদিজা খাতুন বলেন, ‘অজিলা খুব শান্ত। দুই পায়ে জোর পায় না জন্য হাটতে পারে না। ডাক্তার অপারেশন করতে বলেছেন। এতো টাকা তো আমাদের নেই। এখন গ্রামের হোমিওপ্যাথি ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা চলছে। যদি কোনো হৃদয়বান ব্যক্তি আমার নাতনিকে সাহায্য করেন তাহলে আমাদের উপকার হয়।’

আমলা ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম মালিথা বলেন, ‘অজিলা দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ। আমি এর আগে তাকে সাহায্য করেছি। দানশীল ব্যক্তিরা যদি একটু এগিয়ে আসেন তবে চিকিৎসা করে তাকে ভালো করা সম্ভব।’

অজিলার পাশে দাঁড়াতে ০১৭৫৫৩২৭৭৭১ নম্বরে যোগাযোগ কিংবা বিকাশ করা যাবে।

 

কাঞ্চন কুমার/ইভা

       
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : কুষ্টিয়া, খুলনা বিভাগ