RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৪ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ১০ ১৪২৭ ||  ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মা-মেয়েকে কুপিয়ে জখম: আসামি জাহিদের আদালতে দোষ স্বীকার

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৫৫, ৪ অক্টোবর ২০২০  
মা-মেয়েকে কুপিয়ে জখম: আসামি জাহিদের আদালতে দোষ স্বীকার

আহত মা ও মেয়ে

লক্ষ্মীপুরের সদর উপজেলার বালাইশপুর গ্রামের ঘরে ঢুকে প্রবাসীর স্ত্রী মরিয়ম বেগম ও তার ৮ বছরের মেয়ে সাদিয়াকে কোপানোর মামলায় গ্রেপ্তার জাহিদ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

আজ রোববার (৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় জেলা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক জুয়েল দেব তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে বিকেলে আহত মরিয়মের বড় ভাই আমির হোসেন বাদী হয়ে প্রতিবেশী জাহিদকে (২২) প্রধান আসামিসহ তার পরিবারের পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে চন্দ্রগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার অন্য আসামিরা হলেন, জাহিদের বাবা আবু তাহের, মা শামছুন্নাহার ও তার দুই ভাই।

এর আগে শনিবার (৩ অক্টোবর) রাতে বালাইশপুর গ্রামের ঘরে ঢুকে মা-মেয়েকে কুপিয়ে জখম করা হয়। গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাদের প্রথমে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

খবর পেয়ে রাতেই জাহিদকে আটক করে পুলিশ। আজ বিকেলে ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়। ওসি জসিম উদ্দিন বলেন, পুলিশের কাছে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জাহিদ জানিয়েছেন, জমি ও টাকা লেনদেন নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে তিনি নিজেই ‘হত্যার’ উদ্দেশ্যে ধারালো দা দিয়ে প্রবাসীর স্ত্রী ও শিশু কন্যাকে কুপিয়েছেন।

খবর পেয়ে শনিবার রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান ও চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জসিম উদ্দিনসহ জেলা পুলিশের কর্মকর্তরা।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বালাইশপুর গ্রামের দেওয়ান বাড়ির সৌদি প্রবাসী নবী উল্লাহর স্ত্রী মরিয়ম বেগম এক ছেলে ও দুই মেয়েকে নিয়ে বসবাস করেন। রাতে চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় মা-মেয়েকে পড়ে থাকতে দেখেন। হামলাকারীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মরিয়মের বাম হাতের চারটি আঙুল কেটে পড়ে গেছে; ডান হাতও মারাত্মক জখম হয়েছে। আর মেয়ের মাথার পেছনের অংশে একাধিক কোপের চিহ্ন রয়েছে।

ওসি জসিম উদ্দিন জানান, মামলার অপর আসামিদের গ্রেপ্তার করার জন্য পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। লক্ষ্মীপুরের পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান বলেন, প্রবাসীর বাড়িতে হামলায় জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

ফরহাদ/বকুল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়