Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৮ ||  ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

বেইলি ব্রিজে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন, দুর্ঘটনার আশঙ্কা

কাঞ্চন কুমার, কুষ্টিয়া || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:১২, ৮ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১২:১৫, ৮ অক্টোবর ২০২১
বেইলি ব্রিজে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন, দুর্ঘটনার আশঙ্কা

বেইলি ব্রিজে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যান। ছবি: রাইজিংবিডি

কুষ্টিয়া-প্রাগপুর সড়ক। ভেড়ামারা ও দৌলতপুর উপজেলার যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম ও প্রবেশ পথ এই সড়ক। এই সড়কমুখে একদিকে ভেড়ামারা শহরের প্রবেশপথের মাঝখানে (গঙ্গা কপোতাক্ষ সেচ প্রকল্প) জিকে প্রধান খাল। এই খালের ওপর নির্মিত ভেড়ামারার তিন নম্বর ব্রিজ দীর্ঘদিন ধরে ভাঙা অবস্থায় ছিল। পরে ব্রিজটির ওপর বেইলি ব্রিজ নির্মাণ করে দেওয়া হলেও দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।  প্রতিদিন ছোট বড় ও ভারী যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে।  ব্রিজটিতে প্রতিনিয়ত ঘটেই চলেছে দুর্ঘটনা। এর সঙ্গে লম্বা গাড়ির লাইনের ভোগান্তি যেন নিত্যদিনের ঘটনা।

সরেজমিনে দেখা যায়, যখন গাড়ি পার হয়, তখন অন্য প্রান্তে ব্রিজের ওপর মালবোঝাই যানবাহন দাঁড়িয়ে থাকে। সড়ক থেকে এমনিতে ব্রিজ অনেকটাই উঁচু, এরপর বেইলি ব্রিজ আরও খাড়া ও উঁচু। এছাড়া ব্রিজের দুই মুখে চার রাস্তার মোড় রয়েছে। এখানে উঠতে যানবাহনগুলো গতি বাড়িয়ে দেয়। ফলে তিনটি রাস্তার আসা যানবাহন মুখোমুখি অবস্থান নেয়। এ অবস্থায় প্রায়ই ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটেই চলেছে বলে জানান চালক ও ভুক্তভোগীরা।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের তথ্যসূত্র জানায়, এ ব্রিজটি ১৯৬২ সালে নির্মাণ করা হয়। দৈর্ঘ্য ৬৩ দশমিক ৭৮৫ মিটার, প্রস্থ সাড়ে ১০ দশমিক ২৫ মিটার। মেয়াদ উত্তীর্ণ এই ব্রিজ পাঁচ বছর আগে এক অংশে ফাটল দেখা দেয়।  সেই অংশটুকু জোড়াতালি দিয়ে সংস্কার করা হয়।  এক বছর পর ব্রিজের পূর্ব পাড়ে কংক্রিট ভেঙে গেলে কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগ ক্ষতিগ্রস্ত ব্রিজের শুধু ভাঙা অংশটুকুর ওপর ষ্টিলের সরু বেইলি ব্রিজ নির্মাণ করে দেয়। সাময়িক সময়ের জন্য যান চলাচলের জন্য এ ব্যবস্থা করলেও এখন পর্যন্ত এভাবেই রয়েছে ব্রিজটি।

ভেড়ামারা পৌরসভার কাউন্সিলর সোলাইমান হোসেন বলেন, ব্রিজের ওপর বেইলি ব্রিজ খুবই অপ্রশস্ত।  সে কারণে যানবাহন পারাপারে ধীরগতি। 

ট্রাকচালক মোতালেব হোসেন বলেন, ব্রিজে উঠার সময় অতিরিক্ত কম্পন হয়।  বেইলি ব্রিজে উঠতে গেলে মালবাহী গাড়ি ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে। একটু অসতর্ক হলেই নির্ঘাত বড় দুর্ঘটনা।

জেলা ট্রাক ও ট্যাংক লরি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মাহাবুল হাসান রানা বলেন, এই ব্রিজে একটি গাড়ি ঠিকমতো পার হতে পারে না। একটি পার হলে অপরটি ব্রিজের ওপর দাঁড়িয়ে থাকে।

ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান মিঠু বলেন, ব্রিজটি দ্রুত নির্মাণ প্রয়োজন।  ঝুঁকি নিয়ে আর কত দিন পার হবে যানবাহন। সড়ক ও জনপথ বিভাগসহ সংশ্লিষ্টদের উচিত এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া।

কুষ্টিয়া জেলার সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী পিয়াস কুমার সেন বলেন, এখনো ব্রিজ নির্মাণের প্রকল্প অনুমোদন হয়নি।  বিগত অর্থবছরে ব্রিজ উন্নয়ন প্রকল্পে চেষ্টা করা হয়েছিল, কিন্তু হয়নি। এছাড়া আরও কিছু প্রকল্প জমা দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু কাজ হয়নি। চলতি অর্থবছরের মার্চ মাসে প্রকল্প আবারও জমা দিয়েছি, যতটুকু জানতে পেরেছি সম্ভবত পাস না হতে পারে।

কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাকিরুল ইসলাম বলেন, ব্রিজটির প্রকল্প খুলনা জোন হয়ে সড়ক বিভাগে জমা দিয়েছি।   সেখান থেকে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের যাচাই-বাছাইয়ে প্রথম লিস্টে (তালিকায়) আপাতত নেই। তবে লিস্টে ঢোকানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। 

/এসবি/

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়