ঢাকা     সোমবার   ০৪ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২০ ১৪২৯ ||  ০৩ জিলহজ ১৪৪৩

২৫০ মিটার ভাঙা রাস্তার জন্য ঘুরতে হয় ১০ কি.মি. পথ  

রাজবাড়ী প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৩৫, ২৩ জুন ২০২২   আপডেট: ২২:৫১, ২৮ জুন ২০২২
২৫০ মিটার ভাঙা রাস্তার জন্য ঘুরতে হয় ১০ কি.মি. পথ   

রাস্তা আছে, তবে মাত্র ২৫০ মিটার রাস্তার সংস্কার হচ্ছে না দীর্ঘদিন। ফলে ৫ গ্রামের মানুষকে ১০ কি.মি. পথ ঘুরে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে।

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার বহরপুর বাজার-মৃধার বটতলা রাস্তাটির সংস্কার হচ্ছে না প্রায় এক যুগ। ফলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে ওই এলাকার সাধারণ মানুষকে। 
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঘটনাস্থল থেকে বালু তোলার কারণেই রাস্তাটি ভেঙে গেছে।

জানা যায়, উপজেলার বহরপুর থেকে বাহিরচর পর্যন্ত রাস্তা পাকা। কিন্তু এই পাকা রাস্তার কিছু অংশ কাঁচা রয়ে গেছে। এই অংশটুকু ভেঙে নেমে গেছে পুকুরের মধ্যে, যার দৈর্ঘ্য প্রায় ২৫০ মিটার। ফলে মানুষ পায়ে হেঁটে এটুকু পার হতে পারলেও যানবাহন চলাচল করতে পারে না। 

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার ১৫ গ্রামের মানুষের যাতায়াতের প্রধান পথ এটি। কিন্তু রাস্তার সামান্য অংশ ভেঙে যাওয়ায় সবাইকে ১০ কি.মি. পথ ঘুরে যাতায়াত করতে হচ্ছে। সমস্যা স্বীকার করে বহরপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড মেম্বার শুকুর খান বলেন, ‘১৫ বছর আগে রাস্তাসংলগ্ন জমিতে পানি জমে গেলে ভাঙন শুরু হয়। এর ৩ বছর পর রাস্তাটি বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এরপর আর সংস্কার করা হয়নি।’

সংস্কারের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে একাধিকবার আবেদন জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি। 

তবে বহরপুর ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল করিম অভিযোগ করে বলেন, ‘কয়েক বছর ধরে স্থানীয় কিছু মানুষ রাস্তার পাশ থেকে বালু উত্তোলন করছে। যে কারণে রাস্তাটি ভেঙে গেছে। বাধা দিলেও তারা শোনে না। যারা বালু উত্তোলন করেছিল তারা ভেঙে যাওয়া স্থান ভরাট করে দিতে চেয়েও পরে দেয়নি।’

একই অভিযোগ করেছেন বালিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, ‘সেখানে এখন ব্রিজ করার মতো অবস্থা নেই। বরাদ্দ পেলে সংস্কার করা হবে।’

এলজিইডির বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রকৌশলী বাদশা আলমগীর এ প্রসঙ্গে জানান, রাস্তাটির জন্য ডিপিপি দেওয়া হয়েছে। অনুমোদন পেলেই কাজ শুরু হবে।
 

সুকান্ত/তারা 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়