ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ১১ আগস্ট ২০২২ ||  শ্রাবণ ২৭ ১৪২৯ ||  ১২ মহরম ১৪৪৪

গাজীপুরে চাহিদার তুলনায় কোরবানির পশু কম 

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৩৯, ২ জুলাই ২০২২  
গাজীপুরে চাহিদার তুলনায় কোরবানির পশু কম 

শিল্প অধ্যুষিত গাজীপুর জেলায় এবার চাহিদার তুলনায় প্রয়োজনীয় কোরবানির পশু ঘাটতি রয়েছে। জেলায় কোরবানির জন্য ৮৮ হাজার ৭০০টি পশু প্রস্তুত থাকলেও ঘাটতি রয়েছে ৫৩ হাজার ৮১৪টি। তবে আশপাশের জেলায় পর্যাপ্ত গরু থাকায় ঘাটতি মেটানো সম্ভব বলে মনে করেন প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তারা।

এদিকে চাহিদামতো পশু না থাকায় হাটে ভালো দাম পাওয়ার আশা করছেন খামারিরা।  হাটে চাহিদার তুলনায় বেশি পশু থাকলে দাম কমে যায়। ভালো দামের আশায় খামারিরা কোরবানির বাজার ধরার জন্য পশু লালন-পালন করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। কেউ শখের বশে, কেউ বেকারত্বের অভিশাপ ঘোচাতে, কেউ সংসারে স্বচ্ছলতা আনতে,আবার কেউ বাণিজ্যিকভাবে এসব খামার গড়ে তুলেছেন।

জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের তথ্য মতে, গাজীপুরে মোট ৫ হাজার ৭০০টির বেশি খামার রয়েছে। এরমধ্যে সদরে খামারির সংখ্যা ৯৩০, কালিয়াকৈরে ৯৯১, শ্রীপুরে ১২৮৪, কাপাসিয়ায় ১৩০৮ ও কালিগঞ্জে ১২১০ জন খামারি রয়েছে। 

প্রাণিসম্পদ দপ্তর সূত্র জানায়, গাজীপুর জেলায় কোরবানির জন্য ১ লাখ ২৮ হাজার ৭০৮টি পশু প্রয়োজন হলেও খামারিরা ৮৮ হাজার ৭০০টি পশু প্রস্তুত করেছেন। এর মধ্যে গাজীপুর সদরে ৬ হাজার ৪৩, কালিয়াকৈরে ২৪ হাজার ৫৪০, শ্রীপুরে ৬ হাজার ৪৮, কাপাসিয়ায় ১১ হাজার ৯১৮ ও কালিগঞ্জে ২৮ হাজার ২৩৬ টি পশু প্রস্তুত করেছেন খামারিরা। যার মধ্যে ষাড় গরুর সংখ্যা ৪১ হাজার ১৪৩, বলদ ৪ হাজার ১২৪, গাভী ১০ হাজার ৫২০, মহিষ ১৪ হাজার ৩১, ছাগল ২৭ হাজার ৫৫৭ এবং ভেড়া রয়েছে ৩ হাজার ৮২৫টি।  

গাজীপুর সদর ও কালিয়াকৈর উপজেলার থেকে কাপাসিয়া, শ্রীপুর ও কালিগঞ্জ উপজেলায় খামারের সংখ্যা বেশি। এসব এলাকার গ্রামে গ্রামে ঘুরে ও হাট থেকে পশু কেনা শুরু করেছেন ব্যাপারীরা।  ইতোমধ্যে জেলার বিভিন্ন হাটগুলোতে গরু ওঠতে শুরু হয়েছে। আসন্ন ঈদকে কেন্দ্র করে কোরবানির জন্য এখন থেকেই গরু কিনে মজুদ শুরু করেছেন তারা। 

গাজীপুর জেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা এস এম উকিল উদ্দিন বলেন,গাজীপুরে কোরবানির পশুর কোন ঘাটতি হবে না। পার্শ্ববর্তী জেলাগুলোতেও পর্যাপ্ত গরু রয়েছে। আশা করছি সব মিলিয়ে পশুর ঘাটতি পূরণ করা সম্ভব হবে। জেলায় ৩৮টি বাজার রয়েছে যার প্রতিটি বাজারে টিম রাখা হবে,পাশাপাশি ইউনিয়ন পর্যায়ে আমাদের যে কর্মী রয়েছে তারাও থাকবে।

/টিপু/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়